অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম। ১০০% প্রমান সহ নিজের অভিজ্ঞতা।Make Money Fast

অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম(Make Money Fast) অর্থাৎ ইন্টারনেটের মাধ্যমে ঘরে বসেই আপনার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে  অথবা কম্পিউটারের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Make Money Fast

Make Money Fast

এই কথাটা একবারে আমাদের দেশে খুবই কমন বা পরিচিত একটি কথা।কারণ এই অনলাইনে প্রতারণার কারণে অনেকেই ইনভেস্ট করে অনেক অর্থ-সম্পদ হারিয়েছে এবং পথে বসেছে।

কিন্তু আমি আজকে যে ওয়েবসাইট নিয়ে কথা বলব, সেটি বাংলাদেশ নয় পুরো বিশ্বে এখন 2022 সালে সবচাইতে পপুলার একটি ওয়েবসাইট, এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি হানডেট পারসেন আপনার মোবাইল অথবা কম্পিউটার এর মাধ্যমে প্রতিদিন 2 থেকে 3 ঘন্টা সময় ব্যয় করে 4 থেকে 5 ডলার অর্থাৎবাংলাদেশের টাকায় 300 থেকে 500 টাকা আপনিও অনায়াসেই কোন ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই ইনকাম করতে পারবেন এবং সেটি বিকাশ অথবা নগদ পেমেন্ট নিতে পারবেন।

আসলে আমি যতই কথা বলি না কেনো,আপনি যদি বিশ্বস্ততার সহিত এইটা একবার এই ওয়েভসাইটে কাজ করে দেখেন,তাহলেই আপনারা বুঝতে পারবেন এটা আসলেই সত্যি ইনকাম করা যায় কিনা।

তাই আমি নিজেই নিজের অভিজ্ঞতা থেকে আপনাদেরকে বলবো আপনারা এই ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করুন এবং ঘরে বসেই অনায়াসে 400 থেকে 500 টাকা প্রতিদিন ইনকাম করুন।

যারা অনলাইন থেকে বিভিন্ন রকম ইনকাম করে থাকেন তারা এই সাইটটি ভিজিট করা মাত্রই বুঝে ফেলবে, যে এই সাইটটি একটি বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট যার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা আসলেই সম্ভব।

চলুন তাহলে দেখে নিন আপনারা কিভাবে ঘরে বসে অনলাইনে মাধ্যমে টাকা ইনকাম করবেন।

অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম। ১০০% প্রমান সহ নিজের অভিজ্ঞতা।how to make money from online

প্রথমে আপনি এই লিংক থেকে সেই বিশ্বস্ত www.workupjob.com ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন।
 
এরপরে আমাদের পোষ্টে দেওয়া পিকচারের মত, সেই ওয়েবসাইটের একটি হোমপেজ আপনার স্ক্রিনে চলে আসবে।

অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম। ১০০% প্রমান সহ নিজের অভিজ্ঞতা

ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর আপনি তিনটি অপশন প্রথমে দেখতে পাবেন। একটি হচ্ছে “হোমপেজ “আরেকটি “লগইন” আরেকটি “রেজিস্টার “আপনি রেজিস্টার অপশনে ক্লিক করে আপনার অ্যাকাউন্টটি তৈরি করে নিন।

মনে রাখবেন একাউন্ট তৈরীর সময় আপনি যে তথ্যগুলি পূরণ করবেন, সেগুলো অবশ্যই আপনার অ্যাকাউন্টের মূল তথ্য হিসাবে বিবেচিত হবে। এজন্য আপনি মিথ্যা কোন ভুল তথ্য দিলে আপনি আপনার কাজ করে সঠিকভাবে উইথড্র টাকা করতে পারবেন না।

 

রেজিস্ট্রার অপশন এ ক্লিক করার পর, আপনার একটি উইন্ডো আসবে। যেখানে লেখা থাকবে “ক্রিয়েট অন একাউন্ট” এখানে আপনার তথ্য প্রদান করতে হবে।  এখানে প্রথমেই আপনার তথ্য হিসেবে দিতে হবে “অরিজিনাল ফুল নেম “এটি আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ডে যেটি দেওয়া থাকবে আপনি সেটি দেওয়ার চেষ্টা করুন। পরে আপনার একটি একটিভ মেইল এড্রেস প্রদান করতে হবে। যেখানে আপনার সব ধরনের ভেরিফিকেশন ডাটা চলে যাবে। এরপরে আপনার একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করবেন। তারপরে আপনি কোন কান্ট্রি এই দেশকে সিলেক্ট করতে হবে। এরপরে I Agree অপশন এ টিক দিয়ে ক্রিয়েট একাউন্ট এ ক্লিক করুন।এরপরে আপনার মেইল এড্রেসে একটি মেইল চলে যাবে।

তারপরে আপনিও ইমেইলে আপনার ওয়েবসাইটের লিংক দেওয়া থাকবে। সেখানে আপনি আপনার অ্যাকাউন্টটি ভেরিফিকেশন করে পুনরায় লগইন করুন। লগইন করার জন্য আপনার মেইল এড্রেস টি আপনার ইউজার আইডিতে দিন। আপনার পাসওয়ার্ড এর জায়গায় আপনি আপনার পাসওয়ার্ডটি বসিয়ে কন্টিনুয়ে বাটনে ক্লিক করুন।ব্যাস আপনার অ্যাকাউন্টটি সম্পূর্ণ ভাবে তৈরি হয়ে গেছে।

এরপর আপনার স্কিনের ডানপাশে আপনার নামসহ প্রোফাইলটি দেখতে পাবেন।

আপনার প্রোফাইলটি সম্পূর্ণভাবে কমপ্লিট হয়ে গেলে, আপনি প্রোফাইলে ক্লিক করে আপনার সব ধরনের ডাটা চেক করে নিন।

এবং আপনি এই প্রোফাইল থেকেই প্রতিদিন কত কাজ করেছেন কত টাকা আপনি পেয়েছেন এবং কত টাকা উইথড্র করেছেন সেই বিষয়গুলো ভালভাবে বুঝতে পারবেন।

এর পরে আপনি আপনার স্কিনের বামপাশে আসলে কিছু অপশন দেখতে পাবেন সেখান থেকে ফাইন্ড জব অপশন টি ক্লিক করলেই আপনি দেখতে পাবেন এখন একটিভ অবস্থায় কতগুলো কাজ আপনার জন্য অপেক্ষা করতেছে। এবং সেই কাজের জন্য আপনি কত টাকা আপনাকে পে মানে দিবেন ওই ওয়েবসাইট কম্পানি।

এরপরে আপনি এই লিস্ট থেকে আপনার পছন্দের কাজটিতে ক্লিক করবেন। ধরুন আমি এখন” বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে ইনকাম “এই কাজটিতে ক্লিক করতেছি। ক্লিক করার পর আপনি দেখতে পাবেন খুব সুন্দর ভাবে বাংলায় তারা লিখে দিয়েছে কি কি কাজ করতে হবে। তো এখানে লেখা আছে যে এই লিংকটিতে ওপেন করে, গুগল ক্রোম ব্রাউজার থেকে ছবির উপরে ক্লিক বা বিজ্ঞাপন এর উপরে ক্লিক করে তার একটি স্ক্রিনশট আমাদেরকে জমা দিন।

 

এর পরে আপনি যে কাজটি করবেন সেই রিকোয়ারমেন্ট ওয়াইস কাজ সম্পন্ন করার পর, ওনাদের যে ধরনের স্ক্রিনশট প্রয়োজন হবে সেটি স্ক্রিনশট দিয়ে।পরে আপনি দেখবেন নিচে “Submit requirement work prove” বলে একটি অপশন রয়েছে, সেখানে” All done ” অথবা বাংলায় লিখবেন সবকিছু আপনার রিকোয়ারমেন্ট ওয়াইস আমরা কমপ্লিট করেছি। এর একটু নিচে আসলে দেখতে পাবেন” আপলোড স্ক্রিনশট” সেখানে “ব্রাউজ অপশন” থেকে আপনি আপনার ওই স্ক্রিনশটটি শেয়ার করে, সাবমিট এ ক্লিক করলেই সাকসেসফুলি একটি এসএমএস আপনাকে দেখাবে।তারমানে আপনার কাজটি সম্পূর্ণভাবে হয়েছে এবং ওনারা খুব দ্রুত আপনার কাজটি চেক করে আপনার একাউন্টে পেমেন্ট দিয়ে দিবে।

 How To Make Money From Home: My Job

এর পরে আপনি চাইলে আপনার স্ক্রিনে থাকা বাম পাশ থেকে মাই ওয়ার্ক(My works) অপশন থেকে আপনি কতগুলি কাজ কমপ্লিট করেছেন, ওই কাজের এগেনস্টে কতগুলি কোম্পানি আপনাকে পেমেন্ট  করেছে, কতগুলি কাজ আপনার পেন্ডিং অবস্থায় রয়েছে, সব কিছুই খুব সহজেই দেখতে পাবেন।

অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম। ১০০% প্রমান সহ নিজের অভিজ্ঞতা


এর পরে আপনি আপনার ওই ওয়েবসাইটের স্কিনের হোমপেজ থেকে আর্নিং বলে একটি অপশন রয়েছে সেখান থেকে খুব সহজেই আপনার টোটাল ব্যালেন্স টি আপনি দেখতে পাবেন।

 

আপনার টাকা” উইথড্র “করার জন্য আপনার প্রোফাইলের নামের উপরে ক্লিক করলে, কিছু অপশন দেখতে পাবেন সেখান থেকে” ওয়ালেট” অপশনটিতে ক্লিক করলে আপনি এখানে আপনার টোটাল ব্যালেন্স সহকারে কিভাবে আপনি কোন মাধ্যমে টাকা উঠাবেন, সেটির বিস্তারিত দেওয়া আছে এখানে” নগদ “বিকাশ “সিলেক্ট করে আপনার অ্যাকাউন্ট নাম্বার দিয়ে” উইথড্র” অপশনে ক্লিক করলেই আপনার একাউন্টে টাকা জমা হয়ে যাবে।

 

আশা করছি এই অনলাইনে থেকে কিভাবে ঘরে বসেই আপনি প্রতিদিন 400 থেকে 500 টাকা ইনকাম করবেন তার পুরো বিষয়টি আমি আপনাদেরকে কিলিয়ার ভাবে বুঝাতে পেরেছি এরপরেও যদি আপনাদের কোন এই সাইট থেকে ইনকাম করার বিষয় নিয়ে কোনো প্রশ্ন অথবা জানার থাকে তাহলে অবশ্যই এই পোস্টটির কমেন্টস করুন আমাদের টিমের আপনাকে লাইফ সাপোর্ট হিসেবে হেল্প করবে।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ অনলাইন থেকে এই ধরনের বিশ্বস্ত ওয়েবসাইট থেকে ঘরে বসে ইনকাম করার আরও তথ্য জানতে আমাদের সঙ্গেই থাকুন।

pp

SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ টিম

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.