অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের নতুন নিয়ম ২০২২।Birth Certificate Correction Online Bangladesh

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সংশোধন নতুন নিয়ম 2022  :এই 2022 এর নতুন আপডেট জন্ম সনদ কিভাবে আপনি কারেকশন করবেন,সেটি খুব সহজ করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন অফিস। এইজন্য আপনারা আমার দেওয়া পোষ্টটি খুব মনোযোগ সহকারে পড়বেন,তাহলে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ খুব সহজে ঘরে বসেই কারেকশন করতে পারবেন।

অন্য পোস্ট:ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নতুন নিয়ম ২০২২।

    Birth Certificate Correction Online Bangladesh

    Birth Certificate Correction Online Bangladesh


    বর্তমান বাংলাদেশ সরকারের নতুন আইনে জন্ম সনদ এবং ভোটার আইডি কার্ড  সমান মূল্যায়ন করা হচ্ছে। আপনি যদি এখন বাংলাদেশের কোন কর্মক্ষেত্রে যোগদান করেন অথবা কোন ক্ষেত্রে আপনার ভোটার আইডি কার্ড প্রয়োজন হয়ে থাকে,তাহলে তার সঙ্গে এখন আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রয়োজন পড়বে।

    তবে একটি সময় যদি ভোটার আইডি কার্ড আপনার থেকে থাকতো, তাহলে আপনার জন্ম সনদ প্রয়োজন পড়তো না। তবে বর্তমান সময় এখন ভোটার আইডি কার্ডের পাশাপাশি প্রতিটি প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রয়োজন পড়তেছে।

    এজন্য বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিককে এখন ভোটার আইডি কার্ডের পাশাপাশি জন্ম সনদের পিছনে অনেক সময় এবং অর্থব্যয় করতেছে।

    শেষ দুই মাসে সরকারিভাবে একটি সার্ভেতে জানা গেছে, বাংলাদেশের 20 থেকে 25 শতাংশ মানুষের জন্ম নিবন্ধন সনদ এ কোন না কোন ভুল হয়ে আছে। যেমন হয়তোবা বাবার নামে ভুল, হয়তো বা মায়ের নাম ভুল, হয়তো বা নিজের নামের বানান ভুল অথবা নিজের সার্টিফিকেট এর সঙ্গে নিজের জন্ম সনদের তারিখ ঠিক নেই।

    এজন্য এই ভুল সনদের নাগরিকেরা প্রতিনিয়ত নিজেদের ইউনিয়ন পরিষদে ছুটাছুটি করতেছে এবং অনেক সময় ব্যয় করতেছে, তার পরেও সঠিক হয়তো সার্ভিস পাইতেছেনা।

    কিন্তু হয়তোবা অনেকেই জানেনা, জন্ম নিবন্ধন সনদের যে কোন ভুলের সংশোধন ঘরে বসেই অনলাইনের মাধ্যমে এই নতুন 2022 সালের নিয়মে করা হয় আজকে আমি সেটি আপনাদেরকে জানাবো।

     

    জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের নতুন নিয়ম ২০২২।Birth Certificate Correction Online Bangladesh

    আপনারা হয়তো বা জানেন জন্ম নিবন্ধন সনদ এখন ডিজিটাল কপি বের হয়েছে এই ডিজিটাল কপি ছাড়া কোন কর্মক্ষেত্রে বা কোন প্রয়োজনে এটি আর অন্য আগের মত মেনুয়াল জন্ম নিবন্ধন কপি মূল্যায়ন হচ্ছে না।

    এজন্যই যখন মেনুয়াল জন্ম নিবন্ধন সনদ থেকে কম্পিউটারে এন্ট্রি প্রদান করেছেন যিনি, সেই সময় অনেকেরই এই ভুল হয়েছে যে ভুলগুলো আমি ইতিপূর্বে আলোচনা করেছি।

    আপনার যদি জন্ম নিবন্ধন সনদ এই ধরনের কোনো তথ্য সংশোধন করার প্রয়োজন পড়ে থাকে, তাহলে আপনি সেটি মোবাইলের মাধ্যমেও করতে পারবেন, অথবা কম্পিউটারের মাধ্যমে করতে পারবেন। এই দুই ভাবেই আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ এর ভুল সংশোধন করতে পারবেন। তবে পারতপক্ষে আমি পরামর্শ দিব আপনারা সবসময় কম্পিউটারের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন সনদ ভুল সংশোধন করার চেষ্টা করবেন,কারণ এটি আবেদন করার পর একটি প্রিন্ট কপি প্রয়োজন পড়ে থাকে।

    প্রথমে আপনি এই লিংকে ক্লিক করে জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের এই সরকারি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন।

    এর পরে আপনি যে কাজটি করবেন ওই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর জন্ম নিবন্ধন সংশোধন আবেদন বলে একটি অপশন রয়েছে সেই অপশনটিতে ক্লিক করবেন।

    এরপরে আপনি দেখতে পাবেন পিতা মাতার নাম সংশোধন করুন বলে একটা অপশন আসবে,যদি আপনার পিতা মাতার নাম সংশোধন করার প্রয়োজন হয়ে থাকে, তাহলে আপনি তাদের নিম্নলিখিত দেওয়া নিয়মগুলো অনুসরণ করে আপনার পিতা-মাতার নাম খুব সহজেই সংশোধন করতে পারবেন।

    তবে একটি বিষয় মনে রাখবেন,আপনার জন্ম সনদ সংশোধন করার জন্য প্রথমেই আপনার মেনুয়াল জন্ম সনদ কার্ডটি আপনার সঙ্গে রাখবেন এবং আপনার মেনুয়াল জন্ম সনদ টি প্রথমে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ডিজিটালে সনদ আবেদন করে নিতে হবে।

    যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদটি ডিজিটাল কপি না করা হয়ে থাকে, তাহলে আপনি অনলাইনের মাধ্যমে কখনোই আপনার জন্ম নিবন্ধন এর নাম ঠিকানা এই ধরনের ভুলের সংশোধন করতে পারবেন না।

    তারমানে আপনি যতক্ষণ পর্যন্ত আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ কি ডিজিটাল করবেন না ততক্ষণ আপনি অনলাইনে সার্চ করলেও আপনার জন্ম সনদ টি দেখতে পাবেন না।

    আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ টি ডিজিটাল হয়ে গেলে,আপনি উপরের দেওয়া ওয়েবসাইটে ঢুকে আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার এবং আপনার জন্ম তারিখ দিয়ে নীচের অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করলেই আপনার ডিজিটাল জন্ম সনদ নিবন্ধন কার্ড টি দেখতে পাবেন।

    এরপর আপনারা যে কাজটি করবেন ডান পাশের দিকে তাকালে দেখতে পাবেন নির্বাচন করুন বলে একটি অপশন রয়েছে নির্বাচন করুন বাটনে ক্লিক করলে দুইটি অপশন দেখতে পাবেন একটি বাতিল এবং একটি কনফার্ম আপনি কনফার্ম বাটনে ক্লিক করুন।

    এখান থেকে আপনি ক্লিক করার পরে আপনার ঠিকানা সিলেট করুন, তারপরে আপনার জেলা, উপজেলা, এবং ইউনিয়নের নির্বাচন করুন।

    এখান থেকে সিলেক্ট করার পর দেখবেন এখানে নেক্সট নামের অপশন আছে।  আপনি এখান থেকে পরবর্তী ক্লিক করবেন।  পরবর্তীতে ক্লিক করার পর আপনি এখানে দেখতে পাবেন,যেখানে একটি টেক্সট আসছে যেখানে আপনি সর্বোচ্চ চারবার জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে পারেন।

    এরপরে নিচে দেখতে পাবেন তথ্য সংশোধন নির্বাচন বলে একটি অপশন রয়েছে।

    এর পরে আপনি নিচে আসলে দেখতে পাবেন তথ্য সংশোধন বলে একটি অপশন রয়েছে সে অপশনটিতে ক্লিক করলে আপনি দেখতে পাবেন আপনি আপনার জন্ম সনদ এ কি কি পরিবর্তন প্রয়োজন হবে আপনি সেখান থেকে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য সংশোধন করে নিন।

    যেমন আপনার বাংলা নাম ভুল হলে এখান থেকে বাংলা নাম নির্বাচন করুন, ইংরেজি নামের সাথে ইংরেজি নির্বাচন করুন।  জন্ম তারিখের জন্ম তারিখ নির্বাচন করার পরে, আপনি পছন্দসই এবং সংশোধন করা তথ্য দেখতে পাবেন।  একটি বক্স আসবে।  যেহেতু আমি জন্মতারিখ সংশোধন করব, তাই এখান থেকে সংশোধন করা হবে, মানে যা সংশোধন করব তাই দেব।

    এর পরে আপনি তাদের দেওয়া নিয়ম অনুসারে সঠিক ভাবে আপনার ভোটার আইডি কার্ড দেখে আপনার জন্ম তারিখ অথবা যেটি পরিবর্তন করতে চাচ্ছেন বা সংশোধন করতে চাচ্ছেন সেটি খুব সুন্দর ভাবে দুই-তিনবার দেখে পূরণ করে নিনIপূরণ করে নেওয়ার পরে নিচে আসলে দেখতে পাবেন আপনার মোবাইল নাম্বার এবং ইমেইল এড্রেস দিতে বলবে।

    তবে অবশ্যই আপনারা মনে রাখবেন আপনার দেওয়া এই ফোন নাম্বার এবং ইমেইল এড্রেস দিতে কিন্তু আপনার জন্ম সনদের সকল সংশোধনের আপডেট আপনি পেয়ে যাবেন।

    এরপরে আপনার প্রয়োজনীয় কিছু ডকুমেন্টস আপলোড করার প্রয়োজন হতে পারে ,এজন্য নিচে আসলে আপলোড ডকুমেন্টস থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড অথবা অন্য কিছু প্রয়োজন হলে তারা জানিয়ে দিবে এবং সেটি স্ক্যান করে আপলোড করে দিন।

    এরপরে আরো নিচে আসলে আপনি দেখতে পাবেন, আপনার পেমেন্ট মেথড টি শো করতেছে। আপনি দুইভাবে পেমেন্ট করতে পারবেন, চালানের মাধ্যমে এবং ক্যাশ এর ম্যাধমে। আপনারা যদি চালানের মাধ্যমে পেমেন্ট করে আসেন, তাহলে আপনি চালান নাম্বারটি দিয়ে সাবমিট বাটনে ক্লিক করলে আপনার আবেদনটি সম্পূর্ণভাবে হয়ে যাবে।

    এরপরে আপনার মোবাইল নাম্বারে একটি আবেদন নাম্বার আপনার ফোনে মেসেজ আকারে চলে আসবে। আপনি এই আবেদন পত্র প্রিন্ট আউট করে ওই নাম্বারটি সহ 15 দিনের মধ্যে আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদে অথবা সিটি করপোরেশনে গিয়ে আপনার আবেদনপত্রটি জমা দিন। তাহলেই ওনারা আপনাদের কে জানিয়ে দিবে কবে আপনার জন্ম নিবন্ধন কারেকশান কপিটি আপনাকে দিতে পারবে।

     অন্য পোস্ট:অনলাইনে ঘরে বসে নতুন ভোটার হওয়ার সহজ নিয়ম-২০২২

    আশা করছি উপরের দেওয়া এই নিয়মে আপনি খুব সহজেই ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে খুব দ্রুত আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ টি ভুল সংশোধন করতে পারবেন এবং এটি 2022 সালের একটি নতুন নিয়ম।

    এরপরেও যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ কারেকশন করতে কোন ধরনের কোনো প্রবলেমের সম্মুখীন হন,তাহলে আমাদের এই পোস্টে আপনি কমেন্টস করুন,আমাদের টিম খুব দ্রুত আপনাকে লাইভে এসে সাপোর্ট দিবে ইনশাল্লাহ।

     

    জন্ম সনদ নিবন্ধন সম্পর্কিত যে কোন তথ্যের জন্য হেল্প লাইনে কল করে আপনি অনেক তথ্য জেনে নিতে পারেন।

    হেল্পনাইন নাম্বার-১৬১৫২( রবিবার – বৃহস্পতিবার)

    অন্য পোস্ট:সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস এর শাখা সমূহ।


    মৃত্যু ব্যাক্তির নিবন্ধনের জন্য আবেদন-Death Certificate Online Apply

    আমাদের অনেক সময় মৃত কেউ মারা গেলে তার মৃত সার্টিফিকেটের প্রয়োজন হয়ে থাকে।

    তাই আপনি মৃতব্যক্তির সার্টিফিকেট কিভাবে নিবেন, তা আমি আপনাদের বলে দিচ্ছি।এজন্য প্রথমেই আপনি আমাদের দেওয়া এই লিংকে ক্লিক করুন।

    Death Certificate Online Apply
    Death Certificate Online Apply

    এরপরে একটি উইন্ডো আপনার সামনে ভেসে আসবে, সেখানে লেখা থাকবে নতুন মৃত্যু নিবন্ধনের জন্য আবেদন। সেখানে দুটি রিকোয়ারমেন্ট আপনার ফিলাপ করতে হবে একটি হচ্ছে মৃত ব্যক্তির জন্ম নিবন্ধন নাম্বার আরেকটি জন্ম নিবন্ধনের তারিখ। এই দুইটি ঘরে বসে আপনি অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করুন। এরপরে ওনার সব ডিটেইলস আপনি দেখতে পাবেন। সেখান থেকে পর্যায়ক্রমে ওই ওয়েবসাইটের নিয়ম অনুসারে আপনি খুব সহজেই 2022 সালের নতুন নিয়মে, নতুন মৃত ব্যক্তির নিবন্ধনের জন্য আপনি আবেদন করতে পারবেন।

    জন্ম এবং মৃত্যু সনদ সম্পর্কিত কিছু কমন প্রশ্ন এবং তার উত্তর দেওয়া হলো। আপনারা এই লিঙ্ক থেকে খুব সহজেই এই ধরনের আপনাদের প্রশ্নের এবং উত্তর পেয়ে যাবেন।

    pp

    তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক লেখালিখি করি। এর আগে বিভিন্ন পোর্টালের সাথে যুক্ত থাকলেও, SS IT BARI-আমার হাতেখড়ি। তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিশ্লেষণ বাংলায় জানতে ভিজিট করুন http://ssitbari.com

    ২ comments

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.