স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম নির্বাচন করুন আপনার মেয়েদের জন্য(সুন্দর নাম)

দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম –প্রত্যেকটি শিশু পৃথিবীতে আসার পর সাত দিনের মধ্যেও আকিকা দিয়ে তার জন্য একটি সুন্দর ইসলামিক নাম রাখা প্রতিটি মুসলিম বাবা-মার উপর ওয়াজিব। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের মুসলমানদের মধ্য ইসলামী সংস্কৃতি ও মুসলিম ঐতিহ্যের সাথে মিল রেখে শিশুর নাম নির্বাচন করার প্রবণতা দেখা যায়। বর্তমানে তথ্যপ্রযুক্তির নির্ভরতা বেশি থাকায় অনেকেই মোবাইল ইন্টারনেটে শিশুদের ইসলামিক নামের খোঁজ করে থাকে।

স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম

আবার অনেকেই নবজাতকের নাম নির্বাচনে পরিচিত আলেম ওলামাদের শরণাপন্ন হন।তবে যেভাবে শিশুর নাম নির্বাচন করা হোক না কেন শিশুর নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে সঠিক নীতিমালা অনুসরণ করে শিশুর নাম বাছাই করাই উত্তম।

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ এর পক্ষ থেকে সবাইকে জানাচ্ছি স্বাগতম। সুপ্রিয় ভিজিটর বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই? আশা করছি নিশ্চয়ই ভালো আছেন।বরাবরের মতো আমি আজকেও নতুন একটি আর্টিকেল নিয়ে আপনাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছি। আমরা অনেকেই বিভিন্ন ওয়েবসাইটে স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক সার্চ করে থাকি।

ন দিয়ে ছেলেদের অর্থসহ ইসলামিক নামের নতুন তালিকা দেখুন

কিন্তু সঠিক নাম বা অর্থ সংক্রান্ত বিভিন্ন ত্রুটির কারণে নাম বাছাই করতে পারি না। কিন্তু বন্ধুরা এ নিয়ে চিন্তার কোন কারণ নেই আপনাদের সুবিধার জন্য স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম নিয়ে আমি আজকের আর্টিকেলটি লিখছি। তাই স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম বাছাই করতে শেষ পর্যন্ত আর্টিকেলটি আপনাকে পড়তে হবে।

মেয়েদের ইসলামিক নাম

কোন শিশুর নাম রাখার ক্ষেত্রে নেককার ব্যক্তিদের নামে তার নামকরণ করা উত্তম হোক সেই শিশুটির ছেলে কিংবা মেয়ে। এর ফলে সংশ্লিষ্ট নামের অধিকারী ব্যক্তির স্বভাব চরিত্র নবজাতকের মাঝে প্রভাব ফেলার ব্যাপারে আশাবাদী হওয়া যায়। এ ধরনের আশাবাদী ইসলামে বৈধ। যদি কোন ব্যক্তির কিংবা শিশুর নাম ইসলাম সম্মত না হয় বরঞ্চ ইসলামী শরীয়তে নিষিদ্ধ এমন নাম হয় তাহলে এর নাম পরিবর্তন করা উচিত।

হাদিসে বর্ণিত আছে যে, মহিলা সাহাবীর জনক রাদিয়াল্লাহু আনহাই এর নাম ছিল বাররা (পূর্ণবতী)। তার এই নাম শুনে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাকে বললেন তুমি কি আত্মস্থুতি করছো? এমন সময় রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার নাম পরিবর্তন করে জয়নব রাখলেন।

আ দিয়ে ছেলেদের অর্থসহ ইসলামিক নামের তালিকা

একটি নবজাতক শিশুর নাম রাখার সময় কিছু কথা আমাদের মাথায় রাখা উচিত। আমাদের প্রিয় নবী রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন শিশু জন্মের পরপরই তার নাম রাখা যাবে, শিশুর জন্মের সপ্তম দিনে তার নাম রাখা যাবে, অর্থাৎ এ থেকে এটাই প্রমাণ হয় যে ইসলাম নাম রাখার বিষয়ে মুসলমানদেরকে অবকাশ দিয়েছেন। কোরআনে বর্ণিত আছে আল্লাহ তায়ালা কোন কোন নবীর নাম তাদের জন্মের পূর্বে রেখেছেন।

দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

সরফিনা- ইসলামিক নামের অর্থ- নোংরা থেকে দূরে থাকতে পছন্দ করেন।

সহেলী- ইসলামিক নামের অর্থ- বান্ধবী।

সাইদা- ইসলামিক নামের অর্থ- নদী।

সায়মা- ইসলামিক নামের অর্থ- উপবাসী।

সাইয়ারা- ইসলামিক নামের অর্থ- তারকা।

সাগরিকা- ইসলামিক নামের অর্থ- রাজকুমারী; ভদ্রমহিলা; অভিজাত বংশীয় নারী।

সাকেরা- ইসলামিক নামের অর্থ- কৃতজ্ঞ।

সাজেদা- ইসলামিক নামের অর্থ- ধার্মিক।

সাদিকা- ইসলামিক নামের অর্থ- সৎ; আন্তরিক।

সাদিয়া- ইসলামিক নামের অর্থ- সৌভাগ্যবতী।

সানজা- ইসলামিক নামের অর্থ- অতীব মর্যাদা এবং সম্মান জ্ঞাপন করা যায় এমন এক চরিত্রের গৌরব সম্পূর্ণ নারী।

ই দিয়ে ছেলেদের ইসলামিক নাম এবং নামের অর্থ

সানজিদা- ইসলামিক নামের অর্থ-বিবেচক।

সানাহ- ইসলামিক নামের অর্থ- একটি পর্বতের শীর্ষ থেকে উঠন্ত উজ্জ্বল সূর্যোদয়।

সাফিখা- ইসলামিক নামের অর্থ- করুন এবং দয়ালু মনের অধিকারী।

সাফিয়া- ইসলামিক নামের অর্থ- দয়ালু মনের অধিকারী।

সাবা- ইসলামিক নামের অর্থ- সুবাসি বাতাস।

সাবিনা- ইসলামিক নামের অর্থ- ফুল পুষ্প ছোট তলোয়ার।

সাবিহা- ইসলামিক নামের অর্থ- রূপসী দ্রুতগামী অশ্ব।

সামিনা- ইসলামিক নামের অর্থ- নাদুসনুদুস; পৃষ্ঠ; সুখী।

সামিয়া- ইসলামিক নামের অর্থ- রোজাদার।

সামিহা- ইসলামিক নামের অর্থ- দানশীলা।

সাইদা- ইসলামিক নামের অর্থ- মুখ্য কিংবা নেতা।

সারিকা- ইসলামিক নামের অর্থ- সুন্দর্যময় একটি জিনিস; প্রকৃতি।

সারিনা- ইসলামিক নামের অর্থ- যে খুব সাহায্যদায়ক বা যার কাছ থেকে অতি সহজে সাহায্য পাওয়া যায়।

সালওয়া- ইসলামিক নামের অর্থ- সততা।

সালমা- ইসলামিক নামের অর্থ- প্রশান্ত।

সালিনা- ইসলামিক নামের অর্থ- একটি মেয়ে যে চাঁদের সৌন্দর্যের সঙ্গে জন্মগ্রহণ করেছে।

সালিমা- ইসলামিক নামের অর্থ- সুস্থ।

সাহিরা- ইসলামিক নামের অর্থ- পর্বত।

সিদ্দিকা- ইসলামিক নামের অর্থ- একটি মেয়ে যে তার কথা সবসময় রাখে।

সাহাদা- ইসলামিক নামের অর্থ- যে নিজের চোখে দেখা প্রমাণ প্রদান করে থাকেন।

সোহানা- ইসলামিক নামের অর্থ- ঘাসের ওপর বিদ্যমান শিশিরের ন্যায় কোমল হৃদয়।

সোহিলা- ইসলামিক নামের অর্থ- রাতের আকাশে একটি জ্বলন্ত তারা।

দিয়ে মেয়েদের কোর‌আন হাদিসের নাম

সারাফ আতিকা- হাদিসের নামের অর্থ- গানরত সুন্দরী।

সালওয়া- হাদিসের নামের অর্থ- সততা।

সিরাত- হাদিসের নামের অর্থ- অভ্যন্তরীণ সৌন্দর্য এর অধিকারী; খ্যাতি এবং যশ সম্পূর্ণ নারী।

সুমাইয়া- হাদিসের নামের অর্থ- সুখ্যাতি অথবা সুউচ্চ; সমুন্নত; স্বতন্ত্র নির্দেশনের অধিকারী।

সুমিরাহ- হাদিসের নামের অর্থ- রাজকুমারী অর্থে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

সুরাইয়া- হাদিসের নামের অর্থ- সুন্দর; বিনয়ী।

সুলতানা- হাদিসের নামের অর্থ- মহারানী।

সাইয়ারা- হাদিসের নামের অর্থ- তারকা।

সারাহ- হাদিসের নামের অর্থ- অভিজাত বংশের নারী; রাজকুমারী।

সামীমা- হাদিসের নামের অর্থ- সত্য অর্থাৎ খাঁটি যে সততা এর সাথে জীবন যাপন করে এমন।

সাবিয়া- হাদিসের নামের অর্থ- প্রকাশিত হয়েছে এমন এক গুণ যা সবাইকে মুগ্ধ করে।

সাফা- হাদিসের নামের অর্থ- কাবা এর কাছে অবস্থিত একটি পাহাড়।

সাফিনা- হাদিসের নামের অর্থ- এমন একটি ছোট নৌকা বুঝায় যেটি খুব সুন্দর দেখতে।

সাহিবা- হাদিসের নামের অর্থ- এমন একজন নারী যে খুব মহান এবং মহীয়সী।

সাফিরা- হাদিসের নামের অর্থ- এমন একজন মহিলা যে ভ্রমণ করতে পছন্দ করে।

সামারিনা- হাদিসের নামের অর্থ- এক চরিত্র এর নারী যে ফুলের সমতুল্য।

সাফিরুন- হাদিসের নামের অর্থ- এই শব্দটি পাখি কন্ঠের ঐকতান বুঝায়।

সাবুরা- হাদিসের নামের অর্থ- এই শব্দ দ্বারা ধৈর্যশীল নারীকে বোঝায়।

সাকিবা- হাদিসের নামের অর্থ- যে নারী সূক্ষ্ম বুদ্ধির অধিকারী এমন একজনকে বোঝানো হয়ে থাকে।

সানিনা- হাদিসের নামের অর্থ- শিশু কালের বন্ধু কিংবা ভালো বন্ধু বুঝানো হয়।

দিয়ে মেয়েদের সুন্দর নাম

সানা নামের অর্থ এমন একজন মহিলা যে প্রতিভা সম্পন্ন হয়।

সানাম নামের অর্থ এটি এমন একটি নাম যার অর্থ সৌন্দর্য বোঝায়।

সারাফ নামের অর্থ নওয়ার।

সাবাহাত নামের অর্থ সুন্দর্য মন্ডিত হওয়া।

সাহানা নামের অর্থ ধৈর্যশীল বা ধৈর্য ধরে রাখতে পারে এমন মহিলা।

সামরিন নামের অর্থ সফল নারী।

সানিহা নামের অর্থ উঁচু; লম্বা; উজ্জ্বল।

সুমনাহ নামের অর্থ আরবের নাম।

সুসান নামের অর্থ একটি ফুল।

সাকাফা নামের অর্থ জ্ঞানী নারী।

সুনাত নামের অর্থ নিয়ম অথবা দিক।

সুলাফা নামের অর্থ উৎকৃষ্ট; অসাধারণ ও মনোনীত।

সুকাইনা নামের অর্থ নিস্তব্ধতা।

সুভানা নামের অর্থ খাঁটি।

সুবায়তাহ নামের অর্থ সাহসী নারী।

সুভা নামের অর্থ ভোরবেলা কিংবা উষাকে চিহ্নিত করে।

সুবাহা নামের অর্থ সুন্দর্য।

সিমিন নামের অর্থ রূপো দিয়ে তৈরি এমন বস্তু।

সিতারা নামের অর্থ যে নারী নিজের হার স্বীকার করে।

সীমাদ নামের অর্থ রূপো  কিংবা পারদের সমতুল্য এমন।

সায়্যাহ নামের অর্থ খুব সুন্দর গন্ধ।

সুরফা নামের অর্থ যার চরিত্র খুবই উন্নত।

সুকরা নামের অর্থ স্বর্ণকেশী।

সার্বিয়া নামের অর্থ ধনী নারী।

সাবরিয়াহ নামের অর্থ ভাগ্যবতী নারী।

দিয়ে মেয়ে শিশুর পূর্ণাঙ্গ নাম

সালমা মাহফুজা- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত তারা।

সালমা ফৌজিয়া- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- সফল প্রশান্ত।

সালমা মালিহা- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত সুন্দরী।

সালমা মাসুদা- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত সৌভাগ্যবতী।

সালমা নাবিলাহ- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত ভদ্র।

সালমা আফিয়া পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ প্রশান্ত পূণ্যবতী।

সালমা আনিকা- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত সুন্দরী।

সালমা আঞ্জুম- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ-প্রশান্ত তারা।

সালমা ফারিহা- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত সুখী।

সালমা নাওয়ার- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত ফুল।

সালমা তাবাসসুম- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত হাসি।

সালমা সাবা- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত সুবাসি বাতাস।

সালমা সাবিহা- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- প্রশান্ত রূপসী।

সারাফ আতিকা- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- গানরত সুন্দরী।

সারাফ নাওয়ার- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- গানরত ফুল।

সারাফ রুমালী- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- গানরত কবুতর।

সারাফ ওয়ামিয়া- পূর্ণাঙ্গ নামের অর্থ- গানরত বৃষ্টি।

দিয়ে বিশিষ্ট নারীদের নাম

সুখাইলা বিনতে উবায়দা রাদিয়াল্লাহু-সংক্ষিপ্ত নাম সুখাইলা (রাঃ)।

সাইদা বিনতে হারিস রাদিয়াল্লাহু-সংক্ষিপ্ত নাম- সাইদা (রাঃ)

সালমা বিনতে মা’কাল আনসারীও রাদিয়াল্লাহ-সংক্ষিপ্ত নাম-সালমা (রাঃ)।

সামুরা বিনতে কাইস আনসারিয়া- সংক্ষিপ্ত নাম- সামরা (রাঃ)।

সালমা- রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের খাদেমা।

সুমাইয়া- আম্মার বিন তোয়াইসের মা।

সানা বিনতে আসমা বিনতে সালত- সংক্ষিপ্ত নাম- সানা (রাঃ)।

সাহলা বিনতে সাহল (রাঃ)- সংক্ষিপ্ত নাম- সাহলা (রাঃ)।

সিরিন মারিয়া- কিবতীয়ার বোন- সংক্ষিপ্ত নাম- সিরিন (রাঃ)।

উম্মে সুলাইম রাদিয়াল্লাহু।

সুন্দর নামের গুরুত্ব

শাইখ বকর আবু যায়েদ বলেন,”ঘটনা ক্রমে দেখা যায় ব্যক্তির নামের সাথে তার স্বভাব ও বৈশিষ্ট্যের মিল থাকে। এটাই আল্লাহ তায়ালার হেকমতের দাবি। যে ব্যক্তি নামের অর্থ সফলতা রয়েছে তার চরিত্রেও সফলতা পাওয়া যায়। যার নামের মত গম্ভীর্যতা আছে তার চরিত্রেও গম্ভীর্যতা পাওয়া যায়। খারাপ নামের অধিকারী লোকের চরিত্র খারাপ হয়ে থাকে। ভালো নামের অধিকারী ব্যক্তির চরিত্র ভালো হয়ে থাকে।,”

প দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থসহ তালিকা ২০২৩

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কারো ভালো নাম শুনে আশাবাদী হতেন। হুদাইবিয়ার সন্ধি কালে মুসলিম ও কাফের দুই পক্ষের মধ্য টানা পূরণের এক পর্যায়ের আলোচনার জন্য কাফেরদের প্রতিনিধি হয়ে সুহাইল ইবনে আমর নামে এক ব্যক্তি এগিয়ে এলো। তখন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সুহাইল নামে আশাবাদী হয়ে বলেন,” সুহাইল তোমাদের জন্য সহজ করে দিতে এসেছেন।”

ইসলামে নামকরণের সময়

শিশু জন্মগ্রহণ করার পর কখন নামকরণ করা সুন্নত। এই সম্পর্কে আলেমদের কয়েকটি মত আছে কেউ কেউ বলেছেন শিশু জন্মের সপ্তম দিনে নামকরণ ও আকিকা করা সুন্নত।

হযরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু হতে বর্ণিত আছে যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হযরত হাসান ও হোসাইন রাদিয়াল্লাহুর আকিকা করলেন জন্মের সপ্তম দিনে এবং তাদের দুইজনের নাম রাখলেন ইবনে হাব্বান ও আল মুস্তাদরাক।

কেউ কেউ মনে করেন শিশুর জন্ম হবার পরপরই তার নামকরণ করা সুন্নাত। তারা হযরত আনাস রাদিয়াল্লাহু হতে বর্ণিত হাদিস দলিল হিসেবে পেশ করেন।

হযরত আনাস রাদিয়াল্লাহু হতে বর্ণিত,আব্দুল্লাহ ইবনে আবি তালহার জন্ম হলে তাকে নিয়ে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কাছে গেলাম। তখন তিনি উটকে হাত বুলিয়ে আদর করছিলেন। তিনি জিজ্ঞাসা করলেন তোমার কাছে কি খেজুর আছে? আমি বললাম হ্যাঁ।তারপর আমি তাকে খেজুর দিলাম। তিনি তা চিবিয়ে নরম করলেন এবং শিশুটির মুখ ফাক করে তার মুখের ভেতর ভরে দিলেন।

শিশুটি তখন তার মুখ নাড়াতে শুরু করল। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, আনসারদের প্রিয় হচ্ছে খেজুর। পরে তার নাম রাখলেন আব্দুল্লাহ (বায়হাকি)।এ থেকে স্পষ্ট যে শিশু জন্মের পর পরই তার নাম রাখা যায়।

আল- মাউসুআ আলফিকহিয়া কুয়েতিয়া”অর্থাৎ কুয়েতস্থ ফিকহ বিষয়ক বিশ্বকোষ গ্রন্থে বলা হয়েছে-“নাম রাখার মূলনীতি হচ্ছে-

গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন

নবজাতকের যেকোনো নাম রাখা জায়েজ যদি না তা শরীয়তের কোন নিষেধাজ্ঞা না থাকে।কিন্তু অনন্ত চিরঞ্জীব মৃত্যু জয় এই অর্থবোধক নাম কোন ভাষাতেই রাখা কোন অবস্থায় জায়েজ নয়। কারণ নশ্বর সৃষ্টি কে অবিনশ্বর সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর গুণাবলীতে ভূষিত করা জায়েজ নেই।

শিশু জন্মগ্রহণ করার পর নিজের নাম নিজে রাখতে পারে না। এটা পিতা-মাতা বা অন্যান্য আত্মীয় স্বজনের দায়িত্ব পিতা-মাতা বা যারাই নাম রাখবে তাদের উচিত সুন্দর নাম রাখা। এই প্রসঙ্গে হযরত ইবনে আব্বাস ও আবু সাঈদ থেকে বর্ণিত আছে যে,” রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যার সন্তান জন্মগ্রহণ করে সে যেন তার সুন্দর নাম রাখে ও সুশিক্ষা দেয় এবং সাবালক হলে তার বিবাহ দেবে। প্রাপ্তবয়স্ক হলে বিবাহর না দেবার কারণে গুনাহ হলে সেই গুনা তার পিতার উপর বর্তাবে।” (বায়হাকি, হাদীসটি  যঈফ)

সচরাচর জিজ্ঞাসা

প্রশ্ন: সামিহা নামের অর্থ কি?

উত্তর: সামিহা নামের অর্থ দানশীলা।

প্রশ্ন: সাবিহা নামের অর্থ কি?

উত্তর: সাবিহা নামের অর্থ সুন্দরী।

প্রশ্ন: সুমাইয়া নামের অর্থ কি?

উত্তর: সুমাইয়া নামের অর্থ উচ্চ;উন্নত।

শেষ কথা-

প্রিয় পাঠক পাঠিকা বন্ধুরা আপনি যদি স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম‌ খুঁজতে আজকের আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই এতক্ষণে আপনি আর্টিকেল থেকে মেয়েদের স দিয়ে ইসলামিক নামটি বাছাই করতে পেরেছেন। আজকের আর্টিকেলের স দিয়ে মেয়েদের যে নামগুলো প্রকাশ করা হয়েছে তার সবগুলোই ইসলামিক নাম এবং এর অর্থ গুলো সুন্দর। তাই আপনি নিশ্চিন্তে আপনার পছন্দ অনুযায়ী আজকের আর্টিকেল থেকে আপনার শিশুর নাম বাছাই করতে পারেন।

[বিশেষ দ্রষ্টব্য, উল্লেখিত নাম গুলো সম্পূর্ণ ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত তাই কোন ভুল ত্রুটি থাকলে অবশ্যই মার্জনা করবেন]

আজকের আর্টিকেলটি যদি আপনার সামান্যতম উপকারে আসে তাহলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে ওয়েবসাইটটির কথা শেয়ার করতে ভুলবেন না। আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি। সকলে ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন।

পোস্ট ট্যাগ-

সৌদি মেয়েদের ইসলামিক নাম স দিয়ে,স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২২,স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২১,স দিয়ে মেয়েদের নামের তালিকা অর্থসহ,স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক সুন্দর নাম অর্থসহ,পাকিস্তানি মেয়েদের ইসলামিক নাম স দিয়ে,স দিয়ে দুই অক্ষরের মেয়েদের ইসলামিক নাম,স শ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম।

আরও পড়ুন –

দুই অক্ষরের ছেলেদের অর্থসহ ইসলামিক নামের তালিকা দেখুন

আ দিয়ে মেয়েদের অর্থসহ ইসলামিক নামের তালিকা দেখুন

ক দিয়ে ছেলেদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

ল দিয়ে মেয়েদের সুন্দর অর্থসহ ইসলামিক নাম ২০২৩

ব দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম এবং অর্থ

স দিয়ে ছেলেদের অর্থসহ ইসলামিক নামের তালিকা ২০২৩

র দিয়ে ছেলে শিশুর ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২৩

ম অক্ষর দিয়ে মেয়ে শিশুর ইসলামিক সুন্দর নাম

হ দিয়ে ছেলেদের ইসলামিক নামের তালিকা (ইসলামিক অর্থসহ)

স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ (আরবি নাম সুন্দর অর্থসহ)

দুই অক্ষরে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ (বিভিন্ন বর্ণ দিয়ে)

SS IT BARI– ভালোবাসার টেক ব্লগের যেকোন ধরনের তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কিত আপডেট পেতে আমাদের মেইলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন.

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ৪৯২ other subscribers

প্রতিদিন আপডেট পেতে আমাদের নিচের দেয়া এই লিংক এ যুক্ত থাকুন

SS IT BARI- ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুনঃ এখানে ক্লিক করুন

SS IT BARI- ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃ এখানে ক্লিক করুন।
SS IT BARI- ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে :এএখানে ক্লিক করুন এবং দারুণ সব ভিডিও দেখুন।
গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে :এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন।
SS IT BARI-সাইটে বিজ্ঞাপন দিতে চাইলে যোগাযোগ করুন :< strong>এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- টুইটার থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- লিংকদিন থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- ইনস্টাগ্রাম থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- টুম্বলার (Tumblr)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে :এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- পিন্টারেস্ট (Pinterest)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

কোন অভিজ্ঞতা ছাড়াই অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চাইলে সাথেই থকুন : এখানে ক্লিক করুন।

SS It BARI JOB NEWS

SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ টিম