মোবাইল বিশেষজ্ঞদের মতে সঠিক নিয়মে মোবাইল চার্জ করার নিয়ম-2022

সঠিক নিয়মে মোবাইল চার্জের কৌশল :-2022 সালে শতকরা প্রায় 90 ভাগেরও বেশি মানুষ এই স্মার্ট মোবাইল এবং বাটন মোবাইল ব্যবহার করে থাকে। সেক্ষেত্রে আমাদের যে সমস্যাটি হয়, সেটি হচ্ছে এক বছরের মধ্যে আমাদের মোবাইলের ব্যাটারির সমস্যা হয়ে যায়।

এজন্য আজকে আমি আপনাদেরকে জানাবো বিস্তারিতভাবে কিভাবে আপনি আপনার মোবাইল ফোন চার্জ দিবেন এবং মোবাইল ফোন কিভাবে ব্যবহার করলে আপনার ব্যাটারি  ডাউন হবে না, সে সম্পর্কিত সকল তথ্য আজকে আমার এই পোস্ট থেকে জানতে পারবেন। তবে হ্যাঁ অবশ্যই আপনারা মনোযোগ সহকারে এই পোস্টটি পড়তে হবে।

সঠিক নিয়মে মোবাইল চার্জ করার নিয়ম
সঠিক নিয়মে মোবাইল চার্জ করার নিয়ম

হঠাৎ করে মোবাইলের চার্জ কমে যাওয়ার কারন

80% ব্যবহারকারীর মোবাইল ব্যাটারি এক বছরের মধ্যে হারিয়ে যায়। এজন্য মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখতে হলে প্রথমে মোবাইল চার্জ করার নিয়ম জেনে নিতে হবে। মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার জন্য

মোবাইলের চার্জ কমে যাওয়ার কারন
মোবাইলের চার্জ কমে যাওয়ার কারন

আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে আপনি আপনার মোবাইল কিভাবে চার্জ করছেন। কারণ আপনি যদি ব্যাটারি ভুলভাবে চার্জ করেন তাহলে ব্যাটারি দ্রুত নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

 

স্মার্টফোন চার্জ করার সঠিক নিয়ম না জেনে ভুলভাবে স্মার্টফোন চার্জ করার ফলে হঠাৎ করে মোবাইলের চার্জ কমে যায়, মোবাইলের ব্যাটারি ফুলে যায়, চার্জ স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফুরিয়ে যায় এবং কিছু ক্ষেত্রে আরও মারাত্মক সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই আপনার ফোনের ব্যাটারি দীর্ঘ সময় ভালো রাখতে হলে সঠিকভাবে মোবাইল চার্জ দেওয়ার নিয়ম জেনে নিতে হবে।

মোবাইল বিশেষজ্ঞদের মতে সঠিক নিয়মে মোবাইল চার্জ দেওয়ার নিয়ম

নতুন পরিস্থিতিতে আমরা স্মার্টফোনকে খুব একটা পাত্তা দিই না।এটাই সবচেয়ে বড় সমস্যা। কারণ খুব অল্প সময়ের মধ্যেই আমাদের মোবাইলের ব্যাটারির অবস্থা দ্রুত খারাপ হয়ে যাচ্ছে।

এন্ড্রয়েড নতুন ফোন কিনার পর যেসব বিষয় চেক করবেন?

তাই আপনি যদি আপনার ফোনের ব্যাটারির শক্তি চিরকাল ধরে রাখতে চান, তাহলে আপনাকে সম্পূর্ণরূপে জানতে হবে কিভাবে মোবাইলটি সঠিকভাবে চার্জ করতে হয়। আপনার মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার একমাত্র উপায় হল এটিকে সঠিকভাবে চার্জ করা।

মোবাইল চার্জ দেওয়ার সময়
মোবাইল চার্জ দেওয়ার সময়

মোবাইল চার্জ দেওয়ার সময় কখন?

মোবাইল ফোন কখন চার্জ দিবেন? একটি স্মার্টফোন চার্জ করার সঠিক সময় হল যখন ব্যাটারি 50% এর কম চার্জ হয়ে আসে। মোবাইলে চার্জের পরিমাণ 50% থেকে 90% এর মধ্যে রাখা ভালো। যখনই পরিমাণ 50% এর নিচে নেমে যায় তখন মোবাইল চার্জ দিতে অনেক বেশি চার্জ সময় লাগেনা। আরও একটি জিনিস মনে রাখবেন 90% – 95% এর বেশি চার্জ করবেন না। তাই 90% চার্জের পর চার্জার খুলে রাখুন। নিয়ম মেনে চার্জ দিলে মোবাইলের ব্যাটারির ১০০% অনেক ভালো থাকবে।

 

 

কত % এর নিচে চার্জ আসলে আর সেই মোবাইল চালানো ঠিক না?

মোবাইলে বিভিন্ন গেম খেলার সময়, ইউটিউবে ভিডিও দেখার সময়, বিভিন্ন ওয়েবসাইট দেখার সময় এবং আরও অনেক কিছুর সময় আপনার মোবাইল চার্জ করার কথা মনে থাকে না। কিন্তু হঠাৎ করেই আপনি যখন লো বেটারির সিগন্যাল দেখতে পান, তার মানে আপনার ফোনে 20% চার্জ আছে। যাইহোক, আমরা এটি করতে এতই ব্যস্ত যে চার্জ 20% এর চেয়ে অনেক কম হলেও সেই কাজ করা থেকে বিরত থাকিনা।আটা কখনই করবেননা।কত % চার্জে আসলে আর সেই মোবাইল চালানো ঠিক না

আর এভাবেই 55% মানুষ দিনের পর দিন তাদের মোবাইল ফোনের ব্যাটারির শক্তি নষ্ট করে। মোবাইলের ব্যাটারির চার্জ 20% এর কম হলে অনেক ক্ষেত্রেই তা দুর্বল হয়ে যায়। তাই দিনের পর দিন যখন চার্জে 20% কম ভারী গেম, অ্যাপ মোবাইলে ব্যবহার করা হয়, তখন ব্যাটারি নিঃসন্দেহে দুর্বল হয়ে পড়ে।

তাই দীর্ঘ সময় ধরে মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার প্রথম উপায় হল, আপনার ফোনের চার্জের পরিমাণ কখনই 20% এর কম হতে দেবেন না। তাছাড়া চার্জ 20% এর কম হলে মোবাইল ব্যবহার করবেন না।

বিশেষজ্ঞদের মতে মোবাইলে কত % চার্জ করা দরকার?

যদি হয় আপনার প্রশ্ন- আপনি কি ১০০% চার্জ করবেন? না, আপনার ফোন কখনই 100% পর্যন্ত চার্জ করবেন না। বিভিন্ন মোবাইল এক্সপার্টরা বলেছেন যে কোন স্মার্টফোনে 100% চার্জ না দিয়ে 90-95% ব্যাটারি চার্জ করলে ব্যাটারি ভালো থাকবে।তাই আপনি চেষ্টা করবেন ৯০-৯৫% এর মধ্যে চার্জ করতে।

E SIM সুবিধা ও অসুবিধাসমূহ -বদলে যাবে সিম প্রযুক্তির ভবিষ্যৎ-2022

তবে হ্যাঁ, এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ব্যাটারি পুনরায় ক্যালিব্রেট করা হবে, Android OS আবার আপনার ফোনের সঠিক ব্যাটারি স্তর দেখাতে সক্ষম হবে। তাই মাসে অন্তত 1-2 বার 0-100% চার্জ দিতে হবে।

চার্জে মোবাইল লাগিয়ে কি কোন কাজ করা যাবে?

এক কথাই উত্তর,চার্জের সময় ফোন ব্যবহার করবেন না। অনেকে মোবাইল চার্জ দিয়ে গেম খেলে, ভিডিও দেখে বা অন্যান্য কাজ করে। এতে মোবাইল ফোনের ব্যাটারি বিস্ফোরিত হতে পারে। এমন মোবাইল বিস্ফোরণের খবর বিভিন্ন খবরে দেখতে পাবেন।এজন্য এই কাজ করবেননা। এতে আপনার ব্যাটারি ভালো থাকবে।চার্জে মোবাইল লাগিয়ে কি কোন কাজ করা যাবে?

যখন মোবাইল চার্জ করার সময় ব্যবহার করা হয়, তখন মোবাইলের ডিসপ্লে, প্রসেসর এবং অন্যান্য যন্ত্রাংশ ব্যাটারি থেকে পাওয়ার ব্যবহার করে। এতে মোবাইলের ব্যাটারি অতিরিক্ত গরম হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এতে আপনার মোবাইলের ব্যাটারি খুব অল্প সময়ের মধ্যে নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

ব্লুটুথ চালু রাখলে কতটুকু ব্যাটারির ক্ষয় হয়?

ব্লুটুথ বন্ধ করলে ব্যাটারি লাইফ বেশি সাশ্রয় হয় না। 26 ঘন্টার সাধারণ পরীক্ষায় দেখা গেছে যে ব্লুটুথ চালু রাখলে ব্যাটারির আয়ু মাত্র 1.8% সাশ্রয় করতে দেখা গেছে।ব্লুটুথ চালু রাখলে কতটুকু ব্যাটারির ক্ষয় হয়?

ব্লুটুথ অন রাখলে 49.4% ব্লুটুথ চালু এবং 51% ছাড়৷ সম্পূর্ণ ব্যাটারি চার্জ চক্র দেখায় যে ব্লুটুথ শুধুমাত্র 4% অতিরিক্ত চার্জ । আর এই 4% ব্যাটারি দিয়ে আপনি 10 থেকে 15 মিনিট চার্জ পেতে পারেন।

তাই ব্যাটারির চার্জ বাঁচাতে সব সময় ব্লুটুথ বন্ধ রাখা জরুরি নয়। বিশেষ করে ফোন যখন স্লিপ মোডে থাকে, ব্লুটুথ চালু থাকলেও ব্যাটারির ওপর প্রভাব ফেলে না।

 

ব্যাটারির ক্ষয়রুধে মোবাইল অ্যাপ এর ব্যাবহার

কোনো না কোনো অ্যাপ সবসময় আপনার ফোনে কাজ করে। অনেক ব্যাকগ্রাউন্ড ফাংশন আছে মানে আপস রয়েছে যেগুলোর প্রয়োজন নেই, সেগুলো মোবাইল চার্জ করতে ব্যবহার করা হয়। এজন্য আপনি

মোবাইল অ্যাপ এর ব্যাবহার

ভালো অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ব্যাটারি অপটিমাইজেশন অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন। এই অ্যাপটি গরম হয়ে গেলে ব্যাটারি ঠান্ডা করতেও সাহায্য করে।

এতে মোবাইলের চার্জ দ্রুত ফুরিয়ে যাওয়া থেকে বাঁচবে এবং ব্যাটারিও ভালো থাকবে। মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখতে এ ধরনের অ্যাপ ব্যবহার করা খুবই লাভজনক বলে প্রমাণিত হয়েছে বিশেষজ্ঞদের মতে ।

সারারাত মোবাইল চার্জে লাগিয়ে রখা কি ঠিক?

সারা রাত মোবাইল চার্জে থাকা ব্যাটারির জন্য খুব খারাপ। উদাহারন সুরুপ বলতে পারি ,ক্ষুধার্ত হলে কতটা খাবেন, তার চেয়ে বেশি খাওয়ালে কী হবে, মোবাইলের ব্যাটারি তো এমনই।

ব্যাটারি যতটা চার্জ করা দরকার, তার বেশি চার্জ দিলে স্বাভাবিকভাবেই ব্যাটারির ওপর খারাপ প্রভাব পড়বে এবং চার্জ সংক্রান্ত নানা সমস্যার সৃষ্টি হবে। তাই যতটা প্রয়োজন চার্জ করার চেষ্টা করুন। সারা রাত মোবাইল চার্জ দেবেন না।

 Google News – নিয়মিত আপডেট পেতে  এখানে ক্লিক করুন

পাওয়ার ব্যাংক বা অন্যান্য চার্জার ব্যবহার করলে কি হয়?

না, এমনটা কখনই করবেন না। এতে মোবাইলের ব্যাটারির আয়ু কমে যাবে। আপনার চার্জার নষ্ট হয়ে গেলে বা খুঁজে না পাওয়া গেলে, অন্য একটি ভালো মানের চার্জার ব্যবহার করুন।

নিম্নমানের চার্জার ব্যবহার করবেন না। এতে ব্যাটারির ক্ষতি হয়। সস্তা এবং সস্তা চার্জার ব্যবহার করলে অনেক মোবাইলের ব্যাটারিতে আগুন লেগে যেতে পারে। তাই যতটা সম্ভব আপনার ফোনের সাথে দেওয়া চার্জারটি ব্যবহার করুন। পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহার করবেন না।

পাওয়ার ব্যাংক
পাওয়ার ব্যাংক

চার্জার নষ্ট হলে মোবাইল কোম্পানি সার্ভিস সেন্টারে গিয়ে আসল চার্জার কেনার চেষ্টা করবে। মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখতে সবার জন্য এটা মেনে চলা জরুরি।

দ্রুত মোবাইল চার্জ করার কার্যকরী উপায়

  • আপনার নিজের বা ভালো মানের চার্জার ব্যবহার করুন।
  • তৃতীয় পক্ষের ব্যাটারি অ্যাপ ব্যবহার করা বন্ধ করুন।
  • বিমান মোড সক্রিয় রাখুন।
  • ফোন বন্ধ করে চার্জ দিন।
  • ল্যাপটপ বা মাল্টিপ্লাগ ব্যবহার করা বন্ধ করুন।
  • চার্জ করার সময় ফোন ব্যবহার বা চালু রাখবেন না।
  • অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ এবং ফিচার বন্ধ করুন।
  • একটি USB অ্যাডাপ্টার ব্যবহার করুন।
  • ফোন কেস ব্যবহার করুন।

ভালো মোবাইল চার্জার চেনার উপায়

ফোনকে বাঁচিয়ে রাখতে চার্জার প্রয়োজন। কিন্তু বাজারে এখন প্রচুর নকল চার্জার রয়েছে। এই নকল চার্জার কেনা এবং ব্যবহার করলে ফোন বিস্ফোরিত হতে পারে।

স্যামসাং থেকে আসল এবং নকল চার্জারের মধ্যে পার্থক্য বলা কঠিন। চার্জারে একটি টেক্সট মুদ্রিত হয়। A-plus, Made in China টেক্সট ভালো করে দেখে নিন চার্জার ফিচার লেখা আছে কি না। যদি তাই হয়, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এটি একটি জাল।

?পাওয়ার ফুল ব্যাটারি, দাম 20 হাজার টাকার কম

একগুচ্ছ নকল আইফোন চার্জার খোলা বাজারে বিক্রি হয়। তাহলে কিভাবে বুঝবেন কোনটি নকল? আসল চার্জারটিতে লেখা “ক্যালিফোর্নিয়ায় অ্যাপল দ্বারা ডিজাইন করা হয়েছে।” নকল চার্জারে অ্যাপলের লোগোর রঙ তুলনামূলকভাবে কালো। তাই কেনার আগে ভালো করে দেখে নিন।

শাওমি মি. চার্জারটি হাতে নিন এবং তারটি কত বড় তা পরিমাপ করুন। যদি এটি 120 সেন্টিমিটারের কম হয় এবং অ্যাডাপ্টারটি তুলনামূলকভাবে বড় হয় তবে এটি একটি আসল চার্জার নয়।

মোবাইল চার্জার চেনার উপায়
মোবাইল চার্জার চেনার উপায়

তবে ওয়ান প্লাসের নকল চার্জার শনাক্ত করা কঠিন কিছু নয়। আপনি ড্যাশ চার্জার দিয়ে ফোন চার্জ করলে, ফ্ল্যাশ জ্বলে উঠবে। আপনি যদি ফ্ল্যাশ ছাড়াই স্ক্রিনে শুধুমাত্র চার্জিং সিগন্যাল দেখতে পান, তাহলে চোখ বন্ধ করে বুঝবেন এটি নকল।

হুয়াওয়ে এক্ষেত্রেও আসল চার্জার চেনা সহজ। চার্জারের উপরের বারকোড তথ্যের সাথে চার্জারে প্রিন্ট করা তথ্য মিলিয়ে নিন। যদি মিলে যায়, এটি আসল চার্জার। আর যদি না মিলে তাহলে নকল।

এভাবে প্রতিটা কম্পানির ভালো চার্জার দেখে শুনে কিনুন।

নতুন মোবাইল চার্জ দেওয়ার নিয়ম

একটি নতুন মোবাইল ফোন কেনা এবং প্রথমবার ব্যবহার করার আগে এটি আট ঘন্টা চার্জ করা একটি সাধারণ অভ্যাস ছিল। সেই সময়ে আমাদের গ্যাজেটগুলি নিকেল ক্যাডমিয়াম ব্যাটারি বা নিকেল মেটাল হাইড্রাইড ব্যাটারি ব্যবহার করত। সেই দিনগুলিতে আমরা আমাদের মোবাইলগুলি 80% চার্জ হওয়ার পরেই ব্যবহার করতে পারতাম।

কিন্তু মানুষও তাদের মনে মাধুর্য মিশিয়ে নিজের জন্য অনেক নিয়ম বেঁধে দিয়েছে যেমন মোবাইল বন্ধ করা এবং চার্জ করা বা ব্যবহার করা 100% চার্জ হয়ে গেলে। এবং সেই নতুন ব্যাটারি 100% চার্জ নিতে পাঁচ থেকে ছয় থেকে সাত ঘণ্টা সময় নেয়। কিন্তু তারপরও আমরা নিশ্চিত যে আট ঘণ্টা পর্যন্ত চার্জ দিয়ে আরেকটু নিশ্চিত হতে পারি। কারো কারো জন্য, পুরোপুরি চার্জ না হওয়া পর্যন্ত স্থির হয়ে বসে থাকা সম্ভব নয়। তাই তা ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে আট ঘণ্টা আমাদের কানে আটকে থাকে।

আসলে, কেন এটা হবে? কমপক্ষে 60% চার্জ বাধ্যতামূলক হওয়ার আসল কারণ হল “মেমরি ইফেক্ট” বা “ব্যাটারি ইফেক্ট”। আসলে, নিকেল ক্যাডমিয়াম ব্যাটারি বা নিকেল মেটাল হাইড্রাইড ব্যাটারি এই প্রভাবের জন্য বেশি চার্জ ধরে রাখতে পারে না। এটি সাধারণত এই “মেমরি ইফেক্ট” এর কারণে মোবাইল ফোনের ব্যাটারি স্বয়ংক্রিয়ভাবে চার্জ ফুরিয়ে যাওয়ার কারণে হয়ে থাকে। এই সমস্যাটি ঘটে যখন নিকেল ক্যাডমিয়াম ব্যাটারি বা নিকেল মেটাল হাইড্রাইড ব্যাটারি 60% চার্জ বা রিচার্জ করার আগে ব্যবহার করা হয়।

বর্তমান ব্যাটারিগুলি হল লিথিয়াম যাকে Li-Ion বা Li-PO বলা হয়। এই ধরনের ব্যাটারিতে “মেমরি ইফেক্ট” নেই। তাই চার্জ করার সময় আমি এই ধরনের কোনো নিয়ম না মানলেও, আমি চালিয়ে যাব। চার্জ না করে ব্যবহার করলে এই ধরনের ব্যাটারিতে কোনো সমস্যা হবে না।

যাইহোক, লিথিয়াম ব্যাটারির একটি সাধারণ সীমাবদ্ধতা আছে। অর্থাৎ, চার্জ 10% হলে আপনার ফোন ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন এবং আপনার ব্যাটারি 40% এর নিচে হলে আপনি চার্জ করবেন। আর একটা কথা, চার্জ দেওয়ার সময় ফোন ব্যবহার করলে তা বিপজ্জনক এবং বোকামি।

বিপজ্জনক কারণ মোবাইলের তেজস্ক্রিয়তার হার তখন প্রচণ্ডভাবে বেড়ে যায় এবং এটি বোকামি কারণ দুটি খোলা মুখের পাইপের একটি দিয়ে পানি ঢাললে অন্য পাশ থেকে পানি বেরিয়ে আসবে। আপনি যদি ভাবেন যে পাইপটি কিছুক্ষণের জন্য পূর্ণ হবে, তাহলে কি বোকামি নয়? চার্জ এবং স্রাব একসাথে গেলে, কিছু সংরক্ষণ করা সম্ভব নয়।

?ব্যাটারি ছাড়া ল্যাপটপ চালানো

?স্মার্টফোনের ব্যাটারি লাইফ বাড়ানোর সহজ টিপস জেনে নিন

?দুর্দান্ত ক্যামেরা ও শক্তিশালী ব্যাটারি সহ লঞ্চ হল

 

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ২৬৩ other subscribers

Join With Us

SS IT BARI- ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুনঃ এখানে ক্লিক করুন

SS IT BARI- ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃ এই পেজ ভিজিট করুন
SS IT BARI- ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে এএখানে ক্লিক করুন এবং দারুণ সব ভিডিও দেখুন।
গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন।
SS IT BARI-সাইটে বিজ্ঞাপন দিতে চাইলে যোগাযোগ করুন এই লিংকে

pp

তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক লেখালিখি করি। এর আগে বিভিন্ন পোর্টালের সাথে যুক্ত থাকলেও, SS IT BARI-আমার হাতেখড়ি। তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিশ্লেষণ বাংলায় জানতে ভিজিট করুন http://ssitbari.com

২ comments

  1. Mira Reply

    আপনার সাইটের ডিজাই এবং কন্টেন্ট কলিটি খুবই কার্যকারি। আমি অনেক উপকৃত হয়েছি আপনার সাইট ও কন্টেন্ট থেকে আশা করি অন্যরা উপকৃত হবে ।
    চাইলে আমার সাইটটি ভিজিট করতে পারেন Tips and Tricks

Leave a Reply

Your email address will not be published.