মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর সহজ উপায় (গুরুত্বপূর্ণ টিপস)

3.7/5 - (3 votes)

মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর সহজ উপায়-শরীরের ওজন বাড়ার অন্যতম কারণ হলো পেটের মেদ বা চর্বি।পেটে চর্বি জমলে পেট বড় হয়ে যায় তাতে দেখতে যেমন অসুন্দর লাগে তেমনি অস্বস্তিও লাগে।বিশেষ করে মহিলাদের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি হয়।পেটের মেদ কমাতে হলে আমাদের প্রতিদিনের কিছু বদ অভ্যাস দূর করতে হবে।এই বদভ্যাস গুলোই পেটের চর্বি জমার অন্যতম কারণ।

যেমন কোন শারীরিক পরিশ্রম করে সারাদিন শুয়ে বসে কাটানো, পেট ভরে ভালো-মন্দ খাওয়া, খাওয়ার পরে ঘুমিয়ে পড়া এই অভ্যাসগুলো এড়িয়ে গেলেই মহিলাদের পেটের মেদ দূর করা সহজ।বয়স বাড়ার সাথে সাথে মহিলাদের পেশি কমে যায় এবং খুবই জমতে শুরু করে।যুক্তরাষ্ট্রের অনুসারে ইস্ট্রোজেন এর মাত্রা কম থাকলে পেটে মেদ জমে।মহিলাদের পেটের মেদ কমানো সম্ভব কয়েকটি উপায়ে।

মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর উপায় জেনে রাখা উচিত কেননা অতিরিক্ত চর্বি বা মেদ জমলে শরীরের জন্য বিপদজনক।শরীরকে ফিট রাখতে অতিরিক্ত মেদ কিংবা চর্বি বার্ন করতে হবে।আজকে আলোচনা করব মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর সহজ সহজ কিছু উপায় সম্পর্কে।মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর কিছু কার্যকর উপায় রয়েছে যেগুলো জানা থাকলে পেটে খুবই সহজ হবে।এই উপায় গুলো সম্পর্কে জানতে হলে অবশ্যই আজকে আর্টিকেলের শেষ পর্যন্ত সাথে থাকবেন।

পেটে মেদ জমে কেন

খুবই অস্বস্তি কর অবস্থায় পড়তে হয় যদি পেটে অতিরিক্ত চর্বি বা মেদ থাকে।শরীরের তুলনায় পেট বড় দেখা যায় এতে করে সৌন্দর্য নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি শরীরে অনেক ধরনের সমস্যাও দেখা দেয়।পেটে মেদ জমার একটি অন্যতম কারণ হলো খাবার।খাবার থেকেই শরীরে মেদ জমে।তাই আগে জানতে হবে কোন ধরনের খাবার থেকে শরীরে মেদ জমতে পারে।

*উচ্চ চর্বিযুক্ত খাবার মেদ বাড়ায়।

*হাই ক্যালরি পেটে চর্বি জমার জন্য দায়ী।

*রেডমিট, কোমল পানীয়,ফাস্টফুড, ডুবু তেলে ভাজা খাবার পেটের মেদ বাড়ায়।

এছাড়াও খাবার বেশি খেলে, শারীরিক পরিশ্রম না করলে, নিয়মিত হাঁটাচলা না করলে পেটের চর্বি জমে।মহিলাদের পেটে মেদ বাড়ার সম্ভাবনা থাকে বেশি যার কারণে মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর উপায় জেনে রাখা উচিত।

তলপেটের চর্বি কমানোর উপায়

তলপেটে চর্বি জমা একটি কমন সমস্যা। না চাইতেই তলপিটে চর্বি জমে যায় যা নিয়ন্ত্রনে রাখা ও কষ্টকর।বিভিন্ন জিন তলপেটে চর্বি জমার জন্য দায়ী।এছাড়াও অনেকে স্ট্রেস কিংবা দুশ্চিন্তায় ভোগেন যার কারণে তলপেটে চর্বি জমে আর এটা মহিলাদের ক্ষেত্রে বেশি লক্ষণীয়।যার কারণে মহিলাদের পেটে মেদ কমানোর উপায় জানা থাকা অত্যন্ত জরুরী।তবে মেদ কমানো খুব সোজা নয় নিয়মিত কিছু বিধি নিষেধ মেনে না চললে মেদ কখনোই কমবে না।

গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন

বিশেষ করে বয়সের সাথে সাথে মেদ বাড়ার সম্ভাবনা থাকে বেশি তাই বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে খাবার-দাবারেও খেয়াল রাখতে হবে অতিরিক্ত চর্বি শরীর না নেয়।তলপেটে মেদ কমানোর উপায় গুলো জেনে নিন ;

ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন

শরীরের ওজন বাড়লে তলপেটে মেদ বাড়বে এটাই স্বাভাবিক। তাই ওজন যাতে নিয়ন্ত্রণে থাকে এটি সব সময় খেয়াল রাখতে হবে। ওজন কমিয়ে রাখতে স্বাস্থ্যকর খাবার শারীরিক ব্যায়ামের কোন বিকল্প নেই।বিশেষ করে মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর জোরে জোরে প্রতিদিন হাঁটার অভ্যাস করুন কিংবা দৌড়ান এবং পেশী গঠনের ব্যায়াম এটা করবেন।এতে করে ওজন যেমন নিয়ন্ত্রণে থাকবে তেমনি তলপেটের মেদ কমবে।

স্বাস্থ্যকর খাবার তালিকা তৈরি করুন

তলপেটের মেদ কমাতে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় থাকতে হবে ফল, সবজি, সালাদ লাল চাল এবং লাল আটার রুটি।মিষ্টি কিংবা মিষ্টি জাতীয় খাদ্য গুলো এড়িয়ে চলবেন, প্রক্রিয়াজাত খাবার কোমল পানিও ফাস্টফুড না খেয়ে প্রাকৃতিক খাবার, ঘরের তৈরি কম মসলায় রান্না করা খাবার খাওয়ার চেষ্টা করবেন।

শারীরিক ব্যায়াম করতে হবে

তলপেটের মেদ কমাতে অবশ্যই শরীর থেকে ঘাম ঝরবে এমন কাজ করা জরুরি। আর শরীর থেকে ঘাম ঝরানোর অন্যতম উপায় হল ব্যায়াম করা। ক্রাঞ্চ, উঠা বসা,হাটা  চলা,দৌড়ানো,  দড়ি লাভ, সুইমিং, সাইকেলিং  পেটের মেদ কমানোর উপযোগী ব্যায়াম।শুধুমাত্র ব্যায়াম করলেই চলবে না মাথা থেকে স্ট্রেস, দুশ্চিন্তা কমাতে হবে।

নিয়মিত ঘুম

তলপেটের মেদ কমানোর জন্য পরিমান মত ঘুম জরুরী। আসলে ঘুম যদি না হয় তাহলে শরীর সুস্থ থাকেনা বিভিন্ন রোগব্যাধি শরীরে দেখা দিতে পারে ঘুমের অভাবে। তাই তলপেটের মেদ কমানোর পাশাপাশি শরীরকে সুস্থ রাখতে চাই রাতে অন্তত ৮ থেকে ৯ ঘন্টা ঘুম।

এছাড়াও তলপেটের মেদ কমাতে হলে স্বাস্থ্যকর খাবার এবং ব্যায়াম করার পাশাপাশি কম ক্যালরি শর্করা ও চিনি মুক্ত খাবার খেতে হবে এবং খাবারে থাকবে প্রচুর পরিমাণে আশ।

দিনে পেটের মেদ কমানোর উপায়

পেটের মেদ কমানো সহজ কাজ নয়।ওজন কমানোর জন্য ডায়েট, হাটাহাটি করলে ওজন কমবে কিন্তু অনেক সময় পেটের মেদ কমে না।পেটের মেদ কমানোর জন্য শারীরিক ব্যায়াম করার পাশাপাশি কিছু কৌশল অবলম্বন করতে হবে।বিশেষ করে মহিলাদের পেটের মেদ কমানো প্রয়োজন হয় বেশি।৭দিনে মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর সহজ কিছু উপায় সম্পর্কে জেনে নিন;

প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন

শরীরের রোগ ব্যাধি কম রাখার কৌশল হল প্রচুর পরিমাণে বিশুদ্ধ পানি পান করা। বেশি বেশি পানি পান করলে শরীর থেকে অনেক রোগব্যাধি দূরে থাকে। এছাড়াও দ্রুত পেটের মেদ ও ওজন কমাতে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা উচিত।

সবুজ চা

সবুজ চায়ে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সহ কিছু প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান যা পেটের মেদ কমাতে করে।শরীরের ওজন ও পেটের মেদ কমাতে নিয়মিত সবুজ চা পান করার অভ্যাস করুন।

লেবু পানি

সকালে বাসি পেটে গরম পানিতে পানির অর্ধেক লেবুর রস মিশিয়ে পান করলে পেটের মেদ কমানোর জন্য তা খুবই উপকারী।এছাড়াও লেবু পানি পান করলে লিভার পরিষ্কার থাকে।

মেদ কমাবে দারুচিনি

আমরা অনেকেই জানি না দারুচিনি মেটেবলিজম বাড়াতে সাহায্য করে পেটের মেদ কমাতে এটি খুবই উপকারী। এছাড়াও শরীরের শর্করার মাত্রা কমাতে সাহায্য করে দারুচিনি।

সাবুদানায় রয়েছে ওমেগা থ্রি

ওমেগা থ্রি শরীরের ওজন কমাতে সহায়তা করে যা আপনি পাবেন সাবুদানায়।দ্রুত পেটের মেদ কমাতে সাবুদানা খেতে পারেন কেননা এতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ক্যালসিয়াম, লোহা ও প্রচুর পরিমাণে ফাইবার।

পেটের মেদ কমানোর খাবার তালিকা

শরীরে ওজন বৃদ্ধি পেলে সবার আগে পেটের মেদ বাড়ে। আর এটি মহিলাদের জন্য বেশি অস্বস্তিকর তাদের বাহ্যিক সৌন্দর্য নষ্ট করে পেটের অতিরিক্ত মেদ।তাই মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর সহজ উপায় বের করতে  মেদ কমানোর জন্য খাদ্য তালিকা প্রস্তুত করতে হবে।

সবুজ টাটকা শাকসবজি

শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমাতে হলে এবং ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হলে অবশ্যই প্রতিদিন খাবারের কার সবুজ শাকসবজি বেশি বেশি রাখতে হবে। যেসব শাকসবজিতে অত্যাবশ্যক ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ থাকে সেই শাকসবজি পেটে চর্বির পরিমাণ কমায় এছাড়াও শরীরে পানি ধরে রাখতে সাহায্য করে।তাই পেটের মেদ কমাতে প্রতিদিনের খাবারে ভাতের তুলনায় সবজি থাকতে হবে।

খাবার তালিকায় মটরশুঁটি

মটরশুঁটি পেটের অতিরিক্ত চর্বি কমাতে সাহায্য করে এছাড়াও ক্ষমতা বাড়ায়।শরীরের মাংসপেশির বিকাশ ঘটাতে মটরশুঁটি সহায়তা করে।

নাস্তায় রাখুন তরমুজ

তরমুজ এমন একটি ফল যাতে রয়েছে ভিটামিন সি।শরীর থেকে বাড়তি সোডিয়াম সরিয়ে শরীরকে ক্ষুধা হীন রাখতে তরমুজ পরে কেননা এতে রয়েছে ৮২ শতাংশ পানি।

ওটস

ওর ওজন কমাতে কতটা কার্যকারী জানি। শরীরের বাড়তি ওজন কমাতে অবশ্যই আপনার নাস্তার প্লেটে ওরস রাখবেন। ওটস কম ক্যালরিযুক্ত। এটি শরীরকে শক্তি জোগাতে সাহায্য করে।

কাজুবাদামে ক্ষুধা নিবারণ

সকালের নাস্তায় রাখতে পারেন কাজুবাদাম এতে রয়েছে ভিটামিন ই।এছাড়াও দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা রাখতে এটি সাহায্য করবে।কাজুবাদাম শরীরে আমিষের চাহিদা ও পূরণ করতে যথেষ্ট।

আঁশযুক্ত মিষ্টি ফল আপেল

পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করে আপেল কেননা এটি একটি আঁশযুক্ত মিষ্টি ফল।আপেল আঁশযুক্ত ফল হওয়ায় দীর্ঘক্ষণ পেট ভর্তি রাখে যার কারণে অতিরিক্ত খাবার না খেয়ে আপেল খাওয়া ভালো।

মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর ঔষধ

মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর উপায় হিসেবে অনেকেই ওষুধকে বেছে নেয়।বর্তমানে বাজারে অনেক ধরনের পাওয়া যায় শরীরের চর্বি কমানোর জন্য কিন্তু তা আপনার ক্ষতি ছাড়া আর কিছুই করবে না। আপনি যতদিন ওষুধ খাবেন ততদিন আপনার ওজন কম থাকলেও ওষুধ খাওয়া ছেড়ে দিলে শরীরে আবার আগের মত ওজন বৃদ্ধি পাবে পেটের মেদ বাড়বে।

তবে গবেষকদের মতে লুরকাসিরিন পেটের মেদ কমানোর এমন একটি ঔষধ যা দীর্ঘ মেয়াদের হৃদযন্ত্রের ঝুঁকি ছাড়াই কমাতে সাহায্য করে।নিজেকে ফিট রাখতে অতিরিক্ত চর্বি বার্ন করতে কখনোই ওষুধ করা উত্তম সিদ্ধান্ত নয়। শারীরিক ব্যায়াম,খাবারের নিয়ন্ত্রণ করার মাধ্যমে শরীরের ওজন কমানোর চেষ্টা করতে হবে।

মহিলাদের মেদ কমানোর সহজ উপায় এবং দ্রুত সমাধান পেতে যারা সেবন করার সিদ্ধান্ত নেন তারা অনেক বড় ভুল করছেন।কোন ওষুধই পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ছাড়া নয় ওষুধেই পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া রয়েছে তাই জেনেশুনে শরীরে রোগ দাওয়াত করে না এনে খাবার নিয়ন্ত্রণ করুন, শারীরিক ব্যায়াম করুন যাতে করে শরীর থেকে ঘাম ঝরে এতে করে পেটের অতিরিক্ত মেদ কমবে এবং এবং ফিট থাকবে।

প্রশ্ন উত্তর

পেটের মেদ কমানোর ব্যায়াম কখন করা উচিত?

পেটের মেদ কমানোর জন্য উত্তম হল শারীরিক ব্যায়াম করা। ব্যায়াম করারও নির্দিষ্ট সময় আছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতে প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে সকাল ৯ টার মধ্যে ব্যায়াম করা উচিত।এ সময় ব্যায়াম করা শরীরের ওজন কমানোর উত্তম সময়।

পেটের মেদ কমানোর জন্য কি খাওয়া উচিত?

পেটের মেদ কমাতে খাবার তালিকায় ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার রাখুন। এছাড়াও গ্রিন টি খাওয়ার অভ্যাস করুন। গ্রিন টিতে রয়েছে যা পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করে। ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিডের উৎস আখরোট, কাঠবাদাম ও সামুদ্রিক মাছ যা শরীরের মেদ কমাতে কার্যকর।

মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর উপায় কি?

মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর সহজ উপায় হলো প্রতিদিন খাবার তালিকায় শাকসবজি, ফল ও পূর্ণ শস্য রাখা আশ, ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ পাওয়া যাবে।এসব খাবার যদি প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় থাকে তাহলে মহিলাদের পেটের মেদ দ্রুত কমবে।

মেদ কমাতে দিনে কতটুকু ফাইবার খাওয়া উচিত?

পেটের মেদ কমাতে কতটুকু ফাইবারখেতে হবে তা নিয়ে মত ভেদ রয়েছে। তবে অনেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতে, প্রায় ২৫ গ্রাম ফাইবার খাওয়া উত্তম।

শেষ কথা

মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর সহজ উপায় নিয়ে আজকের আর্টিকেলে বিস্তারিত আলোচনা করলাম। বর্তমানে ফিটনেস বিষয়টা খুবই জনপ্রিয়। সকলেই চাই ফিট থাকতে শরীরকে রাখতে। তাই পেটের মেদ কমানোর উপায় জানার আগ্রহ অনেকই প্রকাশ করেন।সকলের চাহিদার কথা মাথায় রেখে আজকের আর্টিকেলের আলোচিত বিষয় মহিলাদের পেটের মেদ কমানোর সহজ উপায়। বন্ধুরা সকলেই আশা করি আমাদের আজকের আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ বিষয়গুলো সম্পর্কে অবগত হয়েছেন। কোনো জিজ্ঞাসা থাকলে অবশ্যই কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না।আজকের মত বিদায় নিচ্ছি। আল্লাহ হাফেজ।

আপনার জন্য-

মেয়েদের দ্রুত ওজন কমানোর উপায়

বদহজম দূর করার উপায় সম্পর্কে সহজ সমাধান

স্বাস্থ্যকর মেসের খাবার তালিকা

মেয়েদের মধু খেলে কি হয়?

কোন কোন খাবারে পটাশিয়াম পাওয়া যায়?

আমাদের আরো সেবা সমূহ :-

↘️আমার ভিডিওগুলো পাবেন যে সকল মাধ্যমে 👇

➡️YouTube চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️Facebook পেজ ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️Instagram চ্যানেল ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️WhatsApp চ্যানেল ফলো করে রাখুন – এখানে ক্লিক করুন

➡️Treads চ্যানেল ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️TikTok চ্যানেল ফলো করে রাখুন-এখানে ক্লিক করুন

Lakhi Hasan

SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ টিম