ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবারের তালিকা (স্বাস্থ্য টিপস)

ভিটামিন ডি-ক্যালসিয়াম শোষণ এবং হাড়ের সুষ্ঠু গঠনের জন্য ভিটামিন ডি মানব দেহে খুবই প্রয়োজনীয়। ভিটামিন ডি এর উপকারে হাড়ের ক্যালসিয়াম তৈরি হওয়ার পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ এবং স্নায়ুপ্রেসির প্রক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করতে‌ সাহায্য করে।মানুষের কোষের জীবনচক্রেও ভিটামিন ডি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। এছাড়াও ভিটামিন ডি অটিজম, অটিমিয়ন ডিজিজ, ক্যান্সার, দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা, হতাশা, ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচা,প ফ্লু স্নায়ু পেশীর রোগ এবং অস্টিঅপরোসিসেসর চিকিৎসায় সাহায্যকারী হতে পারে। তাই ভিটামিন ডি পেতে গেলে ভিটামিন ডি যুক্ত খাবার খাওয়ার কোন বিকল্প নেই।

ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবারের তালিকা

ভিটামিন ডি এর অভাবে অনেক ধরনের সমস্যা শরীরে দেখা দেয় যার কারণে ডাক্তাররা ভিটামিন ডি যুক্ত খাবার খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন এইসব সমস্যার সমাধানকল্পে। বন্ধুরা ভিটামিন ডি যুক্ত খাবারগুলো নির্ধারণ করতে অনেকেরই সমস্যা হয় ভিটামিন বি যুক্ত খাবার সম্পর্কে না জানার কারণে। তাই আজকের আর্টিকেলে ভিটামিন ডি যুক্ত খাবারগুলো তুলে ধরব। ভিটামিন ডি যুক্ত খাবার গুলো কি কি জানতে আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়ুন এবং সাথে থাকুন।

ভিটামিন ডি

ভিটামিন ডি এমন একটি খনিজ যা মানব শরীরের শক্তিশালী হাড় তৈরিতে ক্যালসিয়ামকে সহায়তা করে। শরীরের ভিটামিনের ডি এর ঘাটতি হাড়ের ক্ষয় সহ নানা ধরনের জটিলতা সৃষ্টি করে বলে ভিটামিন ডি শরীরের অপরিহার্য একটি খনিজ হিসেবে বিবেচিত। ভিটামিন ডি জনিত রোগ গুলো থেকে পরিত্রাণ পেতে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হলে চিকিৎসক ভিটামিন ডি জাতীয় খাবার এবং ভিটামিন ডি যুক্ত বিভিন্ন ঔষধ বা ক্যাপসুল খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

জলবসন্ত রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা

হাড়ের ক্ষয় রোধ করার পাশাপাশি ভিটামিন ডি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকেও বাড়িয়ে দেয়। প্রতিটি মানুষের শরীরেই ভিটামিন ডি অতি প্রয়োজনীয়। ভিটামিন ডি এর অভাবজনিত কারণে শারীরিক দুর্বলতা সহ ইমিউনিটির ঘাটতি দেখা দেয়।

ভিটামিন ডি এর অভাবজনিত লক্ষণ

ভিটামিন ডি একটি ফ্যাট সোলিউবল সিকুস্টারয়েড।ভিটামিন ডি এর কাজ হচ্ছে দেহের অন্ত্র থেকে ক্যালসিয়ামকে শোষণ করা এটি আইরন ম্যাগনেসিয়াম এবং ফসফরাসকেও দ্রবীভূত করে। ভিটামিন ডি এর অভাবজনিত কারণে শিশুসহ বয়স্কদেরও অনেক ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। ভিটামিন ডি এর অভাবজনিত লক্ষণগুলো সম্পর্কে নিম্নে আলোচনা করা হলো-

১) শিশুদের দেহের হার ঠিকমতো বৃদ্ধি পায় না।

২) এমনকি হাড় বাঁকা হয়ে যেতে পারে।

৩) বয়স্কদের ক্ষেত্রে হাড় নরম হয়ে যায়।

৪) আলজেইমার রোগ সৃষ্টি করে।

৫) ভিটামিন ডি এর অভাবে অ্যাজমার সমস্যা হতে পারে।

৬) ঘনঘন মাথা ঘামাতে পারে।

৭) শরীরে অবসাদ ক্লান্তি অনুভব হয়।

৮) মাথার চুল পড়ে যেতে থাকে ধীরে ধীরে।

৯) শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার হ্রাস পায়।

১০) হাড়, দাঁত কিংবা পেশীতে ব্যথা অনুভব হয়।

ভিটামিন ডি যুক্ত খাবার

শরীরের জন্য ভিটামিন ডি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি খনিজ। ভিটামিন ডি এর অভাবেরজনিত কারণে হাড়ের ক্ষয়সহ অন্যান্য অনেক ধরনের সমস্যা তৈরি হয়। যার ফলে ভিটামিন ডি যুক্ত খাবার খাদ্য তালিকায় থাকা খুবই জরুরী।গবেষকরা বলেন কিছু খাবার রয়েছে যার মধ্য ভিটামিন ডি পাওয়া যায়। সেগুলো সম্পর্কে জেনে নিন-

মাছ

বিভিন্ন ধরনের মাঝে রয়েছে ভিটামিন ডি বিশেষ করে চর্বিযুক্ত মাছ যেমন; স্যালমন, সারদিনস, টুনা, ম্যাককেরেল ইত্যাদি। দৈনিক ভিটামিন ডি এর চাহিদা ৫০ শতাংশ পূরণ হতে পারে একটি টুনা মাছের স্যান্ডউইচ বা তিন আউন্স ওজনের একটি স্যালমন মাছের টুকরো থেকে।

মাশরুম

মাশরুমে রয়েছে ভিটামিন ডি। মাশরুম সূর্যের আলোয় বড় হয় এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন ডি। তাই ভিটামিন ডি এর চাহিদা পূরণে নিয়মিত মাশরুম খেতে পারেন।

সুরক্ষিত কমলার জুস

বজারে কিছু ভালো ব্র্যান্ড রয়েছে যারা কমলার জুস তৈরিতে ভিটামিন ডি যোগ করে। ভিটামিন ডি এর উপাদান ধরে রাখতে পারে। তাই ভিটামিন ডি‌ এর জন্য ভাল ব্র্যান্ডের জুসও খাওয়া যেতে পারে। তবে খাওয়ার আগে প্যাকেটের গায়ে দেখে নিন কি কি উপাদান দিয়ে তৈরি হয়েছে। এছাড়াও ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণে কমলার জুস ঘরেও তৈরি করে খেতে পারেন।

ডিম

ডিমে হালকা পরিমাণ ভিটামিন ডি রয়েছে। তবে যাদের উচ্চ রক্তচাপ এবং উচ্চ কোলেস্টরেল রয়েছে তাদের ডিমের কুসুম খাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে।

দুধ

দুধ ভিটামিন ডি এর অন্যতম উৎস।ভিটামিন ডি এর ঘাটতি পূরণ করতে এবং শরীরের হাড়ের সক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে দুধ খুবই উপকারী।

টনসিলের সমস্যা ও সমাধানের উপায় জানতে ক্লিক করুন

গরুর কলিজা

ভিটামিন ডি এর অন্যতম অংশ উৎস হচ্ছে গরুর কলিজা। গরুর কলিজা থেকে ভিটামিন ডি পাওয়া যায়।তবে যাদের উচ্চ রক্তচাপ কোলেস্টরেলের সমস্যা রয়েছে তাদের এটি খাওয়ার ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত।

দগ্ধ জাতীয় খাবার

দগ্ধ জাতীয় খাবার যেমন পনির মাখন দই ছানা এগুলো থেকে ভিটামিন ডি পাওয়া যাবে। ভিটামিন ডি এর ঘাটতি পূরণ করতে দগ্ধ জাতীয় খাবার খেতে পারেন।

বাদাম

ভিটামিন ডি এর অন্যতম একটি উৎস হচ্ছে বাদাম নিয়মিত যদি বাদাম খাওয়া হয় তাহলে ভিটামিন ডি এর চাহিদা পূরণ হয়। বাদাম বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় খাওয়ার উপযোগী করে খাওয়া যায়। সব ভাবেই ভিটামিন ডি পাওয়া যাবে।

সূর্য থেকে ভিটামিন ডি খুব সহজেই পাওয়া যায়। সূর্যের আলোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ডি।

ভিটামিন ডি এর কার্যকারিতা

ভিটামিন ডি অত্যন্ত উপকারী একটি খনিজ হিসেবে কাজ করে। হাড়ের ক্ষয় রোধ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি ভিটামিন ডি এর কার্যকারিতা অনেক। ভিটামিন ডি মানব দেহে কি কি উপকার করে থাকে চলুন দেখে নেই-

১) ভিটামিন ডি শরীরের ক্লান্তি বা দুর্বলতা দূর করতে সাহায্য করে।

২) ভিটামিন ডি শরীরে ইমিউনিটির পরিমাণ বৃদ্ধি করে।

৩) দাঁত ও হাড়ের জন্য ভিটামিন ডি খুবই প্রয়োজনীয় খনিজ।

৪) ডায়াবেটিকস রোগীদের ক্ষেত্রে ভিটামিন ডি অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। ভিটামিন ডি শরীরে ইনসুলিন এর কার্যকারিতা বাড়াতে সাহায্য করে।

৫) ফুসফুসের জন্য ভিটামিন ডি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় খনিজ হিসেবে কাজ করে।

৬) শরীরে ক্যালসিয়াম বৃদ্ধিতে ভিটামিন ডি এর ভূমিকা অনেক।

৭) ভিটামিন ডি ক্যান্সারকে প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

৮) হাড়ের ক্ষয় রোধ করে।

ভিটামিন ডি যুক্ত ঔষধ বা ট্যাবলেট

হাড়ের নানা রকম সমস্যার মূল কারণ হচ্ছে ভিটামিন ডি এর অভাব।তাই বিভিন্ন খাবারের পাশাপাশি অতিমাত্রায় ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণ করতে বিভিন্ন ঔষধ বা ট্যাবলেট খাওয়া যেতে পারে। কিন্তু ওষুধ বা ট্যাবলেট খাওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী খেতে হবে। সচরাচর ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণজনিত সমস্যার সমাধানে যে সকল ঔষধ গুলো খাওয়া হয় সেগুলো হচ্ছে;

*Calbo D tablet

*Caldical D tablet

*Calbon D tablet

*Calcin D tablet

*Aristo d3 capsule

*D 1000 tablet

*D- cap capsule

*D- gain capsule

*D- revive capsule

*D- shine capsule

*D- star capsule

ভিটামিন ডি ঘাটতির কারণ

ভিটামিন ডি শরীরে অভাব থাকলে নানা রকম জটিলতার সৃষ্টি হয় যার ফলে এটি সমাধানে যথোপযুক্ত খাবার এবং ওষুধ সেবন করা হয়ে থাকে। ভিটামিন ডি এর অভাব দেখা দেওয়ার বেশ কিছু কারণ রয়েছে।ভিটামিন ডি এর অভাব দেখা দেওয়ার কারণগুলো হলো-

১) অতিরিক্ত সানস্ক্রিন ব্যবহার করে সূর্যালোকে ত্বকে প্রবেশ করতে বাধা দিলে।

২) পরিবেশ দূষিত এমন স্থানে বা দূষণ এলাকায় বসবাসের ফলে।

৩) আলো বাতাসে না গিয়ে আটকা ঘরে বসবাস করলে।

৪) ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার গুলো তালিকা থেকে বাদ দিলে।

ভিটামিন ডি যুক্ত শাকসবজি ফল

ভিটামিন ডি যে সব খাবার থেকে পাওয়া যায় তার মধ্যে শাকসবজি ও ফলের পরিমাণ কম। সাধারণত ভিটামিন ডি পাওয়া যায় গরুর কলিজা, ওটমিল দুধ ডিমের কুসুম মাশরুম, কমলার জুস, চর্বিযুক্ত মাছ কিংবা সামুদ্রিক মাছ, সূর্যের আলো ইত্যাদি থেকে

ভিটামিন ডি এর অভাব নির্ণয়

অনেক সময় শরীর দুর্বল থাকলে হাড়ের কিংবা মাংসপেশিতে ব্যথা অনুভব হলে অনেকেই ভিটামিন ডি এর অভাবের কথা সন্দেহ করেন। তাই ভিটামিন ডি এর অভাব নির্ণয় করতে হাসপাতালে গিয়ে পরীক্ষার মাধ্যমে দেখে নিন। ভিটামিন ডি এর অভাব নির্ণয় করতে কি পরিমান খরচ লাগবে তা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উপর নির্ভর করে।

গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন

রোদ হল ভিটামিন ডি এর প্রধান উৎস সকালের মিঠে রোদ ১০ থেকে ১৫ মিনিট গায়ে লাগাতে পারলেই আপনার শরীরে এই ভিটামিনের চাহিদা পূরণ হয়ে যাবে। এছাড়াও সমস্ত দুধ এবং দগ্ধজাত খাবারে এই ভিটামিন থাকে যেমন দই ইউগার্ড ইত্যাদি।

সচরাচর জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন

চিংড়ি মাছে ভিটামিন ডি পাওয়া যাবে কি?

উত্তর: চিংড়ি যেহেতু চর্বিযুক্ত একটি মাছ আর চর্বি জাতীয় মাছ কিংবা সামুদ্রিক মাছগুলোতে ভিটামিন ডি পাওয়া যায়। তাই চিংড়ি মাছের ভিটামিন ডি পাওয়া যাবে।

ভিটামিন ডি যুক্ত ফল কোনগুলো?

উত্তর:ভিটামিন ডি পাওয়া যায় বেশির ভাগই বিভিন্ন চর্বিযুক্ত মাছ এবং দগ্ধ জাতীয় খাবার থেকে। তবে কমলার জুসে ভিটামিন ডি পাওয়া যাবে।

সূর্যের আলো থেকে ভিটামিন ডি পেতে কতক্ষণ গায়ে লাগাতে হবে?

উত্তর: ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণ করতে সূর্যের আলোর কোন তুলনা নেই। সকালের কাঁচা রোদ ১০ থেকে ১৫ মিনিট শরীরে লাগালে ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণ হবে।

আমাদের শেষ কথা

সম্মানিত পাঠক পাঠিকা বন্ধুরা আমাদের আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা তুলে ধরার চেষ্টা করেছি ভিটামিন ডি যুক্ত খাবার কোনগুলো। আপনারা এতক্ষণ আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ে নিশ্চয়ই এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। আমাদের ওয়েবসাইটে আরও বিভিন্ন ধরনের আর্টিকেল পেতে অবশ্যই নিয়মিত ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন।

কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে ভুলবেন না। আর অবশ্যই আমাদের ওয়েবসাইটটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন এবং আমাদের সাথে থাকবেন। আজকের মতো বিদায় নিচ্ছি। সকলে ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন।

[বিশেষ দ্রষ্টব্য: উল্লেখিত সকল তথ্যগুলো সম্পূর্ণ ইন্টারনেট নির্ভর। কোথাও ভুল ত্রুটি থাকলে অবশ্যই ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।]

পোস্ট ট্যাগ-

ভিটামিন ডি যুক্ত শাকসবজি,ভিটামিন ডি ক্যাপসুল,ভিটামিন ডি অভাবের লক্ষণ,ভিটামিন ডি এর অভাব হলে করণীয়,ভিটামিন ডি বেশি খেলে কি হয়,ভিটামিন ডি এর উপকারিতা,ভিটামিন ডি এর অভাবে কি হয়,ভিটামিন ডি এর অভাবে কোন রোগ হয়।

আপনার জন্য আরো 

আপনার জন্য-

অ্যাজমা রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা 

থাইরয়েড রোগ থেকে মুক্তি পেতে করণীয়

চর্মরোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার কার্যকারী চিকিৎসা

যক্ষা বা টিবি রোগের লক্ষণ

ক্যান্সার রোগের যেসব লক্ষণ এড়িয়ে যাবেন না

শ্বেতী রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা সম্পর্কে জেনে নিন

SS IT BARI– ভালোবাসার টেক ব্লগের যেকোন ধরনের তথ্য সম্পর্কিত আপডেট পেতে আমাদের মেইল টি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ৪৯২ other subscribers

 

প্রতিদিন আপডেট পেতে আমাদের নিচের দেয়া এই লিংক এ যুক্ত থাকুন

SS IT BARI- ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুনঃ এখানে ক্লিক করুন

SS IT BARI- ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃ এখানে ক্লিক করুন।
SS IT BARI- ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে :এখানে ক্লিক করুন এবং দারুণ সব ভিডিও দেখুন।

SS IT BARI- টুইটার থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- লিংকদিন থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- ইনস্টাগ্রাম থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- টুম্বলার (Tumblr)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে :এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- পিন্টারেস্ট (Pinterest)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS It BARI JOB NEWS

SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ টিম