ব্যায়াম ছাড়াই ওজন কমানোর কার্যকরী কৌশল (সহজ উপায়)

5/5 - (2 votes)

ব্যায়াম ছাড়াই ওজন কমানোর কার্যকরী কৌশল –বর্তমানে মানুষ অনেক বেশি ফিটনেস সচেতন যার কারণে শরীরের অতিরিক্ত ওজন কারোরই পছন্দ নয়। অনিচ্ছা সত্ত্বেও শরীরের বৃদ্ধি পেলে তা খুবই অস্বস্তি কর সকলের জন্য। শরীরের অতিরিক্ত ওজন যেমন এর জন্য মঙ্গলজনক নয় তেমনি মানুষের বাহ্যিক সৌন্দর্য নষ্ট করে।তাই নিজেকে সুন্দর এবং সুস্থ রাখতে ওজন কমানোটা খুব জরুরী।অতিরিক্ত ওজন কমানো এতটা জরুরী বলেই মানুষ বিভিন্ন উপায় খুঁজতে থাকে কিভাবে শরীরের ওজন কমানো যায়।শরীরের বাড়তি ওজন কমানোর একটি অন্যতম কৌশল হল শারীরিক ব্যায়াম। কিন্তু ব্যায়াম করে শরীর কমানো অনেকটা পরিশ্রমের বিষয় যার কারণে অনেকেই চায় ব্যায়াম ছাড়াই কিভাবে শরীরের  বাড়তি ওজন কমানো যায়।

ব্যায়াম ছাড়াও শরীরের ওজন কমানোর সম্ভব তবে যদি ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকারী কৌশল আপনার জানা থাকে।শরীরের বাড়তি ওজন কমানোর একমাত্র উপায় শারীরিক ব্যায়াম নয়।ব্যায়াম ছাড়াও ওজন কমানোর বিকল্প উপায় অবশ্যই আছে।ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকারী কৌশল জানা থাকলে আপনিও শরীরের বাড়তি ওজন দ্রুত কমাতে পারবেন।

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকরী কৌশল  তা আবার কিভাবে সম্ভব?আপনি কি এটাই ভাবছেন?হ্যাঁ তাও সম্ভব যদি সঠিক নিয়ম মেনে চলা যায়।অনেকের পক্ষেই হয়তো ব্যায়াম করার সময় নেই কিন্তু শরীরের ওজন দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে এমতবস্থায় তাকে বাড়তি ওজন কমানোর জন্য ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকারী কৌশল অবলম্বন করতেই হবে।তাই আজকের আর্টিকেলটি লিখব ব্যয়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকারী কৌশল সম্পর্কে।আপনি যদি ব্যাংক ছাড়া ওজন কমাতে চান তাহলে আমাদের আজকের আর্টিকেলে শেষ পর্যন্ত সাথে থাকুন এবং জানতে পারবেন ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর গুরুত্বপূর্ণ টিপস।

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর উপায়

নিঃসন্দেহে শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে শারীরিক ব্যায়াম খুবই গুরুত্বপূর্ণ।কিন্তু সবার পক্ষে ব্যায়াম করে ওজন কমানো সম্ভব হয় না যার কারণে বিকল্প উপায় খুজে থাকেন। ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকরী কৌশল জানা থাকলে বাড়তি ওজন কমানো খুব কঠিন নয়।চলুন দেখে নেই ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকরী কৌশল গুলো কি কি

তরল ক্যালরি ত্যাগ করুন

যারা ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমাতে চাচ্ছেন তাদেরকে অবশ্যই তরল ক্যালোরি ত্যাগ করতে হবে। অনেকেই আছেন কফি খোর কিংবা চা খোর তাদের ওজন দ্রুত বাড়ে।তাই ব্যাংক ছাড়া ওজন চা কফি বাদ দিতে হবে গ্রিন টি খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন।

পরিশ্রমই হতে হবে 

আপনার পক্ষে ব্যায়াম করা যদি সম্ভব না হয় তাহলে আপনাকে ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকারী কৌশল জানতে হবে।ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমাতে চাইলে আপনাকে পরিশ্রমী হতে হবে।আপনার পক্ষে ব্যায়াম করা যদি সম্ভব না হয় তাহলে এমন কোন কাজ বাছাই করে যাতে শরীর থেকে ঘাম ঝরে।আপনি প্রতিদিন সিঁড়ি বেয়ে ওপরে নিচে ওঠা নামা করেও শরীর থেকে ঘাম ঝরাতে পারেন।মূলত আপনার এমন কাজ বাছাই করতে হবে যে কাজগুলো করলে শরীর থেকে ঘাম ঝরবে।

অল্প উপকরণে খাবার তৈরি করুন

খাবারের স্বাদ বাড়াতে আপনি যদি খাবারে অতিরিক্ত তেল, মসলা, প্যাকেটজাত উপকরণ ব্যবহার করে থাকেন তাহলে তা আজ থেকেই বাদ দিন।কারণ এটি কমানো তো দূরে থাক ওজন বাড়াতে সাহায্য করে।

পর্যাপ্ত পানি পান করুন

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমাতে চাইলে অবশ্যই পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করতে হবে তা না হলে দেহের বিপাকক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হবে।পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করলে হজম প্রক্রিয়া ঠিক থাকে। প্রতিবেলা খাবার খাওয়ার আগে প্লাস পানি পান করুন এতে করে কম খাবারেই পেট ভরে যাবে।

নিয়মিত ঘুমান

ওজন কমানোর আরো একটি কৌশল হল ঘুম। আমেরিকান গবেষণায় প্রমাণিত তারা প্রতি রাতে সাড়ে ছয় ঘন্টা থেকে সাড়ে আট ঘণ্টা ঘুমায় তাদের দেহে একেবারেই চর্বি থাকে না।

খাবার চিবিয়ে খান

খাবার খাওয়ার সময় ভালোমতো না চিবিয়ে গিলে ফেললে হজমজনিত সমস্যা হওয়ার পাশাপাশি শরীরে ওজন বৃদ্ধি পায় তাই সবসময় গেলে খেয়াল রাখতে হবে খাবার যাতে ভালোমতো চিবিয়ে খাওয়া হয়।এতে করে হজম শক্তি ভালো থাকবে। অল্প খাবারই পেট ভরবে।

বেশি বেশি শাকসবজি খাওয়ার অভ্যাস করুন

প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় বেশি বেশি শাক-সবজি খেতে হবে।এছাড়াও ভিটামিন, প্রোটিন, মিনারেল সবজি প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

খাবার থেকে চিনি বাদ দিন

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমাতে হলে অবশ্যই চিনি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার কে না বলতে হবে।ওজন বাড়ানোর জন্য চিনি প্রথম স্থানে আছে।তাই যারা ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমাতে চান একবারে না পারলেও ধীরে ধীরে মিষ্টি বাদ দেওয়ার চেষ্টা করুন।

প্রোটিন যুক্ত খাবার বাড়িয়ে দিন

আপনার খাদ্য তালিকায় ডাল ডিম সয়া জাতীয় খাবারগুলো যুক্ত করে ডায়েট চার্ট তৈরি করুন। এ সমস্ত প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবারের আপনাকে দীর্ঘক্ষণ ক্ষুধা মুক্ত রাখতে সাহায্য করবে।

নিয়মিত হাঁটুন

ওজন কমাতে চাইলে আপনি প্রতিদিন কিংবা সন্ধ্যায় ৩০ থেকে ৪০ মিনিট হাঁটার অভ্যাস করবেন। নিয়মিত আপনি পূর্ণাঙ্গ ব্যায়াম না করেই শরীরে ওজন কমাতে পারবেন। এছাড়াও নিয়মিত হাটা বিপাক ক্রিয়া উন্নতি করে।

খাদ্য তালিকায় ফাইবার যুক্ত করুন

ফাইবার সমৃদ্ধ খাওয়ার ফলে আপনি দীর্ঘক্ষণ ক্ষুধা মুক্ত থাকতে পারবেন আপনার শরীরের ওজন দ্রুত কমবে। ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার কোলেস্টরেল নিয়ন্ত্রণ করবে।

ঘরে বসে ওজন কমানোর উপায়

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকারী কৌশল জানা থাকলে আপনি ঘরে বসেই দ্রুত ওজন কমাতে পারবেন।প্রাকৃতিকভাবে ঘরে বসে যদি ওজন কমানোর চেষ্টা করে থাকেন তাহলে আপনার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু টিপস যেগুলো নিয়মিত মেনে চললে নিঃসন্দেহে দ্রুত কমবে।চলুন বিষয়গুলো তুলে ধরি;

গ্রিন টি

গ্রিন টি ওজন কমাতে সাহায্য করে। যাদের অভ্যাস আছে তারা দুধ চা কিংবা রং চা বাদ দিয়ে গ্রিন টি খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। গ্রিন টি শরীরকে চাঙ্গা রাখতে শরীরের মেদ কমাবে।গ্রিন টি পান করলে পচনতন্ত্রে জমে থাকা ক্ষতিকর যেসব পদার্থ রয়েছে তা শরীর থেকে বের হয়ে যায়।তাই প্রতিদিন কালো চা,দুধ চা,কফি  খাওয়া বাদ দিয়ে গ্রিন টি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে দ্রুত  ওজন কমাতে হলে।

খাদ্য নিয়ন্ত্রণ করতে হবে

প্রতিদিন যদি এক কেজি ওজন কমাতে হয় তাহলে অবশ্যই প্রতিদিনের খাদ্য অভ্যাস নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।অবশ্যই প্রতিদিন ঠিক সময়ে ব্রেকফাস্ট লাঞ্চ ডিনার করতে হবে এবং কোন বেলাতেই অতিরিক্ত খাওয়া যাবেনা।দুধ মিষ্টি অ্যালকোহল ২৪ ঘন্টার খাবারে রাখা যাবেনা।

পরিমাণমতো ঘুম

ওজন কমানোর একটি অন্যতম কৌশল হল সঠিক সময়ে পরিমাণমতো ঘুম।ঘুম কম হলে শরীরের ওজন বাড়বে এছাড়াও শারীরিক অনেক অসুস্থতাও দেখা দেয়। তাই রাতে অন্তত ৭ ঘন্টা ঘুমানোর অভ্যাস করতে হবে।

নিজেকে স্ট্রেস মুক্ত রাখুন

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর একটি কার্যকারী কৌশল হলো দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকা। মুখে যদি আপনি সারা রাজ্যের চিন্তা নিয়ে সময় কাটান তাহলে আপনার ওজন বাড়তে পারে এতে কোন সন্দেহ নেই। তাই ঘরে বসে ওজন কমাতে দুশ্চিন্তা নিজের মধ্যে রাখা যাবে না।

মেয়েদের দ্রুত ওজন কমানোর উপায়

সুস্থ থাকার একটি পূর্ব শর্ত হলো ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা। বাড়তি ওজন বিভিন্ন রোগের আশঙ্কা বাড়ায় যার কারনে অতিরিক্ত ওজন সবার জন্যই ক্ষতিকর।মেয়েদের ক্ষেত্রে দ্রুত ওজন বাড়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।অনেক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে এসব মেয়েদের শারীরিক ওজন বেশি তাদের অসুস্থ হওয়ার প্রবণতাও বেশি এছাড়াও শারীরিক-মানসিক ও হরমোন জনিত বিভিন্ন প্রকারের সমস্যা দেখা দিতে পারে অতিরিক্ত ওজনের মেয়েদের।তাই সুস্থ এবং ফিট থাকতে মেয়েদের দ্রুত ওজন কমানোর উপায় বের করে ওজন কমানোর চেষ্টা করতে হবে।

গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন

মেয়েদের দ্রুত ওজন কমানোর জন্য কিছু নিয়ম-নীতি মেনে চললেই যথেষ্ট।মেয়েদের দ্রুত ওজন কমানোর উপায় গুলোর মধ্যেও রয়েছে নিয়মিত হাঁটাচলা করা পরিমিত খাওয়া ঘুমানো পরিমাণ মতো পানি খাওয়া শরীরের যত্ন নেওয়া শারীরিক ব্যায়াম করা ইত্যাদি।মেয়েদের ওজন কমানোর জন্য কিছু ঘরোয়া টিপস ফলো করলেই ওজন দ্রুত কমবে।

প্রতিদিন এক কেজি করে দ্রুত ওজন কমানোর উপায়

বিভিন্ন পুষ্টিবিদদের মতামত অনুসারে  ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য প্রতিদিন কিছু বিধি নিষেধ মানতে হবে। এতে করে সুস্থ থাকার পাশাপাশি ওজনও নিয়ন্ত্রণে আসবে। প্রতিদিন যদি নিয়ম করে চলা যায় তাহলে প্রতিদিন ১ কেজি করে দ্রুত ওজন কমানো সম্ভব।আর যদি ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমাতে চান তাহলে ব্যায়াম  ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকরী কৌশল জেনে আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে।অনেকেই ভাবতে পারেন প্রতিদিন এক কেজি ওজন কমানো অনেক কঠিন কাজ কিন্তু এই ধারণা ঠিক নয় একটু চেষ্টা করলেই সহজেই প্রতিদিন ১ কেজি ওজন কমানো যাবে।দেখে নিন মেয়েদের দ্রুত কমাতে প্রতিদিন ১ কেজি ওয়েট লস এর উপায়:

বেশি বেশি শসা খান

ওজন কমানোর জন্য বেশি বেশি শসা খেতে হবে কেননা শসা অ্যালকালাইন মুক্ত রাখতে সহায়তা করে।প্রতিদিন যদি খাদ্য তালিকায় শসা থাকতে হবে। শসা খেলে অল্প খাবার এই পেট ভরে যাবে এতে করে ক্ষুধা ও মিটবে ওজনও কমবে।

প্রচুর পানি খাবেন

ওজন ও শরীরে মেদ কমাতে পানি পান করার বিকল্প নেই।  শারীরিক ব্যায়াম করা ছাড়াই ওজন কমাতে প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে।শরীরে জমে থাকা  টক্সিন এবং শর্করাকে বের করতে সাহায্য করে পানি।প্রচুর পরিমাণে পানি পান করার ফলে প্রস্রাবের সাথে শরীরে থাকা সকল ক্ষতিকর পদার্থ  বের হয়ে যায় যার ফলে  শরীর সুস্থ থাকে এবং শরীরের মেদ কমার পাশাপাশি ওজন কমে।

টাটকা শাকসবজি ফলমূল

ওজন কমানোর একটি কৌশল হল শাকসবজি বেশি বেশি খাওয়ার সাথে ফলমূল খেতে হবে।তবে বিন্স জাতীয় সবজি কম খেতে হবে কারণ প্রোটিন থাকে প্রচুর শরীরে ওজন বৃদ্ধির জন্য দায়ী। তাই বিনস জাতীয় সবজি পরিহার করতে হবে।

 গ্রিন টি পান করুন

গ্রিন টি ওজন কমাতে সাহায্য করে। যাদের অভ্যাস আছে তারা দুধ চা কিংবা রং চা বাদ দিয়ে গ্রিন টি খাওয়ার অভ্যাস করতে পারেন। গ্রিন টি শরীরকে চাঙ্গা রাখতে শরীরের মেদ কমাবে।গ্রিন টি পান করলে পচনতন্ত্রে জমে থাকা ক্ষতিকর যেসব পদার্থ রয়েছে তা শরীর থেকে বের হয়ে যায়।তাই প্রতিদিন কালো চা,দুধ চা,কফি  খাওয়া বাদ দিয়ে গ্রিন টি খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে দ্রুত  ওজন কমাতে হলে।

খাদ্য নিয়ন্ত্রণ করতে হবে

প্রতিদিন যদি এক কেজি ওজন কমাতে হয় তাহলে অবশ্যই প্রতিদিনের খাদ্য অভ্যাস নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।অবশ্যই প্রতিদিন ঠিক সময়ে ব্রেকফাস্ট লাঞ্চ ডিনার করতে হবে এবং কোন বেলাতেই অতিরিক্ত খাওয়া যাবেনা।দুধ মিষ্টি অ্যালকোহল ২৪ ঘন্টার খাবারে রাখা যাবেনা।

পরিমাণমতো ঘুম

ওজন কমানোর একটি অন্যতম কৌশল হল সঠিক সময়ে পরিমাণমতো ঘুম।ঘুম কম হলে শরীরের ওজন বাড়বে এছাড়াও শারীরিক অনেক অসুস্থতাও দেখা দেয়। তাই রাতে অন্তত ৭ ঘন্টা ঘুমানোর অভ্যাস করতে হবে।

দিনে ১০ কেজি ওজন কমানোর উপায়

আপনি যদি দ্রুত ওজন কমাতে চান আপনাকে আদা জল খেয়ে নামতে হবে অতিরিক্ত ওজন কমানোর মিশনে। অতিরিক্ত ওজন কমানোর জন্য শুধুমাত্র ঘরোয়া উপকরণী নয় বরং আপনার খাদ্যাভ্যাস নিয়ন্ত্রণ করতে হবে আপনাকে প্রতিদিন হাঁটার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে এবং সময়মতো ঘুমাতে হবে। আপনাকে ওজন কমানোর উদ্দেশ্য নিয়ে এমন নিয়ম তৈরি করতে হবে যাতে প্রতিদিনের খাবার তালিকা হয় আদর্শ ডায়েট চার্টের মত।প্রতিদিনের খাবার থেকে অবশ্যই তো অতিরিক্ত ক্যালরিযুক্ত খাবার বাদ দিতে হবে। সাত দিনের দশ কেজি ওজন কমাতে হলে যা যা করণীয় তা দেখে নিন –

১) জাঙ্ক ফুড কে না বলতে হবে।

২) প্রতিদিন একই সময় খেতে হবে এবং খাবার অবশ্যই চিবিয়ে খেতে হবে।

৩) খাবার তালিকা থেকে ক্যলরি বাদ দিতে হবে।

৪) ক্ষুধা লাগার আগে খাবার খাওয়া যাবেনা।

৫) প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে।প্রতিবার খাবার আগে এক গ্লাস পানি পান করতে হবে যাতে পেট  খাবারে ভরে যায়।

৬) অধিক কার্বোহাইড্রেট যুক্ত খাবার বাদ দিতে হবে।

৭) রাতে সর্বনিম্ন এক ঘন্টা ঘুমাতে হবে।এবং সকালে ঘুম থেকে ওঠা যাবেনা।

লেবু দিয়ে ওজন কমানোর উপায়

ব্যায়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকরী কৌশল হলো নিয়মিত  লেবু খাওয়া।লেবু দিয়ে ওজন কমানোর উপায়  খুঁজলে ঘরে অবশ্যই লেবুর রাখুন।শরীরের ওজন কমানোর জন্য লেবু খুবই উপকারী।প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে এক গ্লাস লেবু পানি খেয়ে নিন এতে করে দ্রুত ওজন কমবে।এছাড়াও লেবু ভিটামিন সি সমৃদ্ধ আর ভিটামিন সি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এটা আমরা সবাই জানি।আপনি যদি প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস লেবু পানি পান করেন তাহলে শরীরের বাড়তি ওজন কমার পাশাপাশি কোষকে ক্ষতিকারক ফ্রী রেডিকল থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করবে।

শরীরের ফ্যাট কমাতে লেবু

লেবু দিয়ে দ্রুত ওজন কমানোর একটি কৌশল হল সকালে এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে পান করা।এক্ষেত্রে লেবুর রসের পরিমাণ এক কাপ পানির অর্ধেক হতে পারে কিংবা এর চেয়ে সামান্য কমও হতে পারে।বাসি পেটে এই লেবু পানিটি ফ্যাট কমাতে অনেক বেশি কার্যকরী।

শরীরকে হাইড্রেট রাখে লেবু

আপনি যদি প্রতিদিন লেবু পানি পান করেন তাহলে আপনার শরীর হাইড্রেট থাকবে কারণ লেবু পানি পান করার ফলে শরীর থেকে দূষিত পদার্থ প্রস্রাবের সাথে বের হয়ে যায়। লেবু শরীরকে ডিটক্সিফাই করতে সহায়তা করে।শরীরের ক্ষতিকর পদার্থ বের হয়ে গেলে শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমে যায়।

হজম শক্তি বাড়াতে লেবু

হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস লেবু পানি খাবেন।যাদের কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা আছে এই লেবু পানি খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়ে যাবে। ওজন কমানোর পাশাপাশি লেবু পানি হজম শক্তি বাড়াতেও সাহায্য করে।

প্রশ্ন উত্তর

ব্যায়াম ছাড়া কি ওজন কমানো সম্ভব?

শরীরের ওজন দ্রুত কমাতে ব্যায়াম করার কোনো বিকল্প খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। তবে বিকল্প যে নেই তা নয়। ব্যায়াম ছাড়াও শরীর থেকে বাড়তি ওজন কমানো সম্ভব যদি আপনি আপনার জীবনযাত্রায় সঠিক নিয়ম মেনে চলেন। যেমন খাদ্য অভ্যাস পরিবর্তন,নিয়মিত হাঁটাচলা, দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকা, পরিমাণ মতো পানি পান করা, পরিমাণ মতো ঘুম ইত্যাদি।

ব্যায়াম ছাড়া পেটের মেদ কমানোর উপায়?

ব্যাম ছাড়া পেটের মেদ কমাতে হলে প্রতিদিনের খাবারে প্রোটিন এবং ফাইবারের স্বাস্থ্যকর উৎস যোগ করুন।শক্তিশালী ডাইট চার্ট তৈরি করুন যাতে করে শরীরে বাড়তি চর্বি খাবার থেকে না ঢুকে।

ওজন কমাতে হলে প্রতিদিন কত ক্যালরি খেতে হবে?

আপনি যদি প্রতিদিন এক কেজি ওজন কমাতে চান তাহলে আপনাকে৭ হাজার ৭০০ ক্যালরি বার্ন করতে হবে।আপনি এমন ধরনের পুষ্টিকর খাবার খাবেন তাতে ক্যালরির পরিমাণ কম থাকতে হবে।

শেষ কথা –

আমরা আজকের আর্টিকেলে ইতোমধ্যেই আলোচনা করেছি ব্যয়াম ছাড়া ওজন কমানোর কার্যকারী কৌশল সম্পর্কে।আজকের আলোচনায় যে টিপস গুলো দেওয়া হয়েছে প্রতিটি টিপস আপনাকে ব্যয়াম ছাড়া ওজন কমাতে সাহায্য করবে।তবে দ্রুত যদি আপনি ওজন কমাতে চান তাহলে ব্যক্তিগত পরামর্শ হবে আপনি যদি শরীরের ওজন দ্রুত কমাতে চান তাহলে আবশ্যিকভাবে আপনাকে প্রতিদিন কিছু ব্যায়াম বেছে নিতে হবে।আশা করছি আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের কিছুটা হলেও উপকারে আসবে। আজকের মত এই পর্যন্তই।আল্লাহ হাফেজ।

আপনার জন্য-

মেয়েদের দ্রুত ওজন কমানোর উপায়

বদহজম দূর করার উপায় সম্পর্কে সহজ সমাধান

স্বাস্থ্যকর মেসের খাবার তালিকা

মেয়েদের মধু খেলে কি হয়?

কোন কোন খাবারে পটাশিয়াম পাওয়া যায়?

আমাদের আরো সেবা সমূহ :-

↘️আমার ভিডিওগুলো পাবেন যে সকল মাধ্যমে 👇

➡️YouTube চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️Facebook পেজ ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️Instagram চ্যানেল ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️WhatsApp চ্যানেল ফলো করে রাখুন – এখানে ক্লিক করুন

➡️Treads চ্যানেল ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️TikTok চ্যানেল ফলো করে রাখুন-এখানে ক্লিক করুন

Lakhi Hasan

SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ টিম