ব্যবসা একটি হালাল মাধ্যম – আব্দুর রহমান আল হাসান

ব্যবসা একটি হালাল মাধ্যম – জীবিকা নির্বাহ করা প্রত্যেক মুসলমানের জন্য ফরজ। কেউ এই বিধানের বাহিরে নয়। নিজের জৈবিক চাহিদা মেটানোর জন্য প্রত্যেককেই বিভিন্ন উপায়ে জীবিকা নির্বাহ করে থাকে। কোনো খাবার খাওয়ার জন্য প্রথমে উক্ত খাবারটি তৈরি করতে হয়। এরপর সেই খাবারটি খাওয়া যায়। খাবার তৈরীর সিস্টেমটা দুইভাবে হতে পারে। ১. যমীনকে কর্ষণের মাধ্যমে। ২. কৃত্তিম উপায়ে বা বৈজ্ঞানিক উপায়ে খাবার তৈরীর মাধ্যমে।

ব্যবসা

যারা যমীনকে কর্ষণ করে খাবার উৎপন্ন করে তাদেরকে আমরা কৃষক বলে থাকি। আর যারা কৃত্তিম উপায়ে খাবার তৈরী করে থাকে তাদেরকে আমরা শ্রমিক বা প্রস্তুতকারক বলে থাকি। তবে উভয়জনের উদ্দেশ্য কিন্তু একই। প্রত্যেকেই খাবার উৎপন্ন করে নিজের জীবিকার জন্য বা পরিবার ও সমাজের জীবিকার জন্য। যাদেরই একটু বেশি জমি আছে তারাই চাষ করার পর বাজারে বাড়তি পণ্যগুলো বিক্রি করে দেয়। সমাজের দৃষ্টিতে এটাকেই আমরা ব্যবসা বলে থাকি।

বীমাকে ইসলাম কতুটুকু সমর্থন করে, জানতে পড়ুন

বইয়ের পাতায় ব্যবসার সংজ্ঞা দেয়া হয় এভাবে যে, ব্যক্তির মুনাফা পাওয়ার আশায় পণ্যদ্রব্য ও সেবাকর্ম উৎপাদনের মাধ্যমে উপযোগ সৃষ্টি এবং মানুষের বস্তুগত ও অবস্তুগত অভাব পূরণের লক্ষ্যে সেগুলো বণ্টন এবং এর সহায়ক সবরকম বৈধ, ঝুঁকিবহুল ও ধারাবাহিক কার্যকে ব্যবসা বলে।

ইসলামে ব্যবসা হলো হালাল। আল্লাহর নবী জীবনের শুরুতে ব্যবসা করেছেন। ইসলামের দাওয়াত দেয়ার সময়ও অনেক সাহাবী ছিলেন, যারা ছিলেন ব্যবসায়ী। ব্যবসাকে আল্লাহর নবী মর্যাদার চোখে উল্লেখ করেছেন। মেশকাত শরীফের হাদীসে আছে,

হযরত রাফে’ রা. হতে বর্ণিত,

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে জিজ্ঞাসা করা হলো, হে আল্লাহর নবী! মানুষের সকল উপার্জনের মধ্যে কোন উপার্জন পবিত্র? নবীজি বললেন, মানুষ নিজ হাতে যা কামাই করে এবং হালাল ব্যবসার মাধ্যমে যা উপার্জন করে।

তিরমিযি শরীফের আরেক হাদীসে রয়েছে, আবু সাইদ খুদরী রা. হতে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন, সত্যবাদী ও আমানতদার ব্যবসায়ী কেয়ামতের দিন, নবী-সিদ্দিক ও শহীদদের মাঝে থাকবে।

কুরআন শরীফেও আল্লাহ তা’আলা ব্যবাসায়ী এবং ব্যবসা সম্পর্কে অসংখ্য আয়াতে বর্ণনা করেছেন।

আল্লাহ তা’আলা সূরা নিসার ২৯ নং আয়াতে বলেন,

“হে ঈমানদারগণ, তোমরা একে অন্যের সম্পদ অন্যায়ভাবে গ্রাস করো না। কেবলমাত্র তোমরা পরষ্পরের সম্মতিতে যেই ব্যবসা করো, সেটাই বৈধ।”

আল্লাহ তা’আলা সূরা মুতাফফিফিনের ১-৩ নং আয়াতে বলেন,

“পরিতাপ সেই সকল ওজনমাপকারী এবং (ব্যবসায়ীদের) জন্য, যারা লোকদের কাছ থেকে পুরোপুরি মূল্য গ্রহন করে কিন্তু সে মাপের বেলায় বা ব্যবসার ক্ষেত্রে কম দেয়।”

দান-সদকা কেন করা উচিৎ, জানতে পড়ুন

কুরআনে আল্লাহ ব্যবসাকে সর্বদা হালাল ঘোষণা করেছেন। কিন্তু তিনি কঠিনভাবে সুদ এবং জালিয়াতিকে হারাম ঘোষণা করেছেন। উপরোক্ত আয়াতে আমরা সেটার কিছুটা হলেও বুঝতে পেরেছি। কুরআনে সূরা বাকারার ২৭৫ নং আয়াতে আল্লাহ বলেন,

“যারা সূদ খায় তারা কেয়ামতের দিন এমনভাবে উঠবে, দেখে মনে হবে শয়তান তাদেরকে বিভ্রান্ত করে ফেলেছে। কারণ তারা বলতো, ব্যবসা তো সুদেরই মতো। অথচ আল্লাহ ব্যবসাকে হালাল করেছেন আর সুদকে হারাম করেছেন।”

আরেক জায়গায় আল্লাহ বলছেন,

“আল্লাহ সুদকে নিশ্চিহ্ন করেন এবং দানকে বর্ধিত করেন। আর আল্লাহ কোনো অধিক কুফরীকারীকে ভালোবাসেন না।”

উপরোক্ত আয়াত থেকে আমরা বুঝলাম যে, ব্যবসা হলো একটা হালাল মাধ্যম। আর সুদ হলো একটা হারাম মাধ্যম।

আল্লাহ আমাদের সঠিকভাবে জীবন-যাপন করার তাওফীক দান করুন। আমীন।

SS IT BARI– ভালোবাসার টেক ব্লগের যেকোন ধরনের তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কিত আপডেট পেতে আমাদের মেইল টি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ৪২৮ other subscribers

এছাড়াও আমাদের প্রতিদিন আপডেট পেতে আমাদের নিচের দেয়া এই লিংক এ যুক্ত থাকুন।

SS IT BARI- ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যে কোনো প্রশ্ন করুনঃএখানে ক্লিক করুন

SS IT BARI- ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃএই পেজ ভিজিট করুন
SS IT BARI- ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে এএখানে ক্লিক করুনএবং দারুণ সব ভিডিও দেখুন।
গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতেএখানে ক্লিক করুনতারপর ফলো করুন।
SS IT BARI-সাইটে বিজ্ঞাপন দিতে চাইলে যোগাযোগ করুনএই লিংকে

স্বাস্থ্যকর খাবার সম্পর্কিত ইংলিশে সকল সঠিক তথ্য জানতে আমাদের SS IT BARI- ভালোবাসার টেক ব্লকের আরেকটি সংস্করণ, US IT BARI- All About Healthy Foods ওয়েব সাইট টি ভিজিট করতে পারেন।
বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন –www.usitbari.com

 

আব্দুর রহমান আল হাসান

আমি কওমী মাদ্রাসা থেকে উচ্চ মাধ্যমিকে পড়াশোনা করছি। এখন মেশকাত জামাতে অধ্যয়নরত আমি। লেখালেখিতে আগ্রহ আমার ছোটবেলা থেকেই। প্রায় সময়ই গল্প-উপন্যাস, বিজ্ঞান, ইতিহাস বিষয়ে লেখালেখি করি। লেখালেখির প্রাথমিক হাতেখড়ি আমার শ্রদ্ধেয় শিক্ষক কামরুল হাসান নকীব সাহেবের হাত ধরে। তারপর থেকে আর পেছনে ফিরে তাকাই নি। অনলাইন ফ্লাটফর্মে লেখালেখি আমার নিজস্ব ওয়েবসাইটের মাধ্যমে শুরু করি। এর মধ্যে দু’একটা সুনামধন্য পত্রিকায় লেখার সুযোগ পাই। বর্তমানে এসএস আইটি বারী ডট কমে ইসলামিক বিষয়ক লেখালেখিতে কর্মরত।

অবসরে তাফসীর, সীরাত গ্রন্থ, মুৃসলিম ইতিহাস, পৃথিবীর ইতিহাস, বিজ্ঞান ও বিশেষ করে জ্যোতির্বিজ্ঞান সম্পর্কিত বই পড়তে পছন্দ করি। পাশাপাশি নিজের দক্ষতা বাড়ানোর লক্ষ্যে গ্রাফিক্স, ওয়েব ডেপলপমেন্ট, এসইও, প্রোগ্রামিং ও মার্কেটিং শেখার চেষ্টা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.