বাচ্চার পুষ্টি নিয়ে ভাবছেন?অধিক পুষ্টিগুণ সম্পূর্ণ বাচ্চার খাবার তালিকা

বাচ্চার খাবার তালিকা-আপনার বাচ্চা কিছুই খায় না? বাচ্চার পুষ্টি নিয়ে ভাবছেন ? অধিক পুষ্টিগুণ সম্পূর্ণ কিছু খাবারের কথা আজকে আপনাদের জানাবো, বাচ্চাদের  পক্ষে অল্প পরিমান খাওয়া  এবং তা নিয়ে বাবা-মার অত্যাধিক  উদ্বিগ্ন হওয়া  খুব সাধারণ বিষয়।  প্রতিটি খাবার খাওয়ানোর সময় আমরা চিন্তা করি  আমার বাচ্চার সঠিক পুষ্টি পাচ্ছে তো।অধিক পুষ্টিগুণ সম্পূর্ণ বাচ্চার খাবার তালিকা

আপনার বাচ্চা কিছুই  খায় না ?                

১। বাচ্চাদের পেটের আকার ছোট।

২। 1 থেকে 5 বছরের বাচ্চাদের  ক্ষুধার তীব্রতা কম থাকে।

৩। বাচ্চাদের  চারিপাশের জগত নিয়ে আগ্রহ বেশি থাকে , যার ফলে তাদের খাবারের চেয়ে খেলার আগ্রহ বেশি।

৪। 1 থেকে 5 বছরের শিশুদের শারীরিক বৃদ্ধির  হার অন্য বয়সের তুলনায় কম , এর জন্য খাবারের চাহিদাও কম।

৫। শিশুরা তাদের নিজেদের পছন্দ-অপছন্দের  রাখতে চাই।

৬। একটি খাবার একবার পছন্দ হলে পরবর্তীতে তা অপছন্দ হওয়া  সাধারণ ব্যাপার। অধিক পুষ্টিগুণ সম্পূর্ণ বাচ্চার খাবার তালিকা।

বাচ্চার খাবারের পুষ্টিগুণ

প্রতিটি বাবা-মা চায় তার বাচ্চাকে পুষ্টিকর খাবার খায়াতে।কিন্তু যেসব খাবারে পুষ্টিগুণ অনেক বেশি বাচ্চারা সেগুলো খেতে চায় না । তাই আজ আপনাদের কিছু পুষ্টিগুণ ভরা খাবারের কথা বলব যেগুলো আপনারা  খুব সহজেই বাড়িতে তৈরি করে বাচ্চাকে খাওয়াতে পারবেন । পুষ্টিকর খাবার গুলো সাধারণত মাছ ,মাংস, দুধ ,ডিম ,  ডাল , সবজি    ইত্যাদি দিয়ে তৈরি করা হয় ।

 অধিক পুষ্টিগুণ সম্পূর্ণ বাচ্চার খাবার তালিকা

১। খিচুড়ি              

দুই মুঠ চাল, এক মুঠ  ডাল ,  সামান্য তেল , একটা ডিম  অথবা এক টুকরা মাছ /মাংস , এক মুঠ সবজি  সব একসাথে রান্না করে   খিচুড়ি তৈরি করতে হবে । প্রতিদিন দুই থেকে তিনবার   খাওয়ানো যেতে পারে ।

২।পুষ্টিগুঁড়া   

চালু বিভিন্ন রকম ডালের গুঁড়া কে একত্র করে পুষ্টি গুড়া বানানো হয় । এর সাথে বাদাম ,চিনি ,গাজর, মিষ্টি কুমড়া, কমলার রস , কলা ইত্যাদি মিশিয়ে   এর পুষ্টিমান আরো বাড়ানো যায় । একে “ঘরে তৈরি সেরেলাক “ও বলা হয়ে থাকে ।

??গুগল নিউজে সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন??

৩। সবজির পিঠা      

বিভিন্ন সবজি মিশ্রিত পিঠা  একটি পুষ্টিকর খাবার  যা তৈরি করা হয় বিভিন্ন রকম  প্রধান শস্য যেমন চাল, ডাল ও সবজি মিশিয়ে  । যখন চাল,ডাল  এবং   শাক একসাথে মেশানো হয়    তা আমিষের গুণগত মান বৃদ্ধি করে ।                                   

৪। ছোট মাছের চপ    

ছোট মাছের চপ নাস্তা বা প্রধান খাবার সাথে খাওয়া হয়ে থাকে । এটি তৈরি করার জন্য চালের গুড়া , কাচকি /মলা/ঢেলা /পুটি/ ইত্যাদি মাছ ও সবজি ব্যবহার করা হয়ে থাকে । এখানে বিভিন্ন ধরনের সবজি ব্যবহার করা হয় যা বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন ,  খনিজ লবণ  ও খাদ্যআঁশ পাওয়া যায়। চালের গুঁড়ো খাবারে ক্যালরির মান বাড়ায় । আর ছোট মাছে রয়েছে  ভিটামিন এ ডি  এবং ক্যালসিয়াম ।

৫।কলিজার চপ                     

চালের গুড়া, মুরগি/ খাসি /ভেড়া / গরুর কলিজা এবং সবজি দিয়ে তৈরি কলিজার একটি পুষ্টিকর খাবার । কলিজা একটি প্রথম শ্রেণীর আমিষ এতে পর্যাপ্ত পরিমাণে আয়রন, ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ রয়েছে । তাছাড়া এতে ব্যবহৃত হয়েছে সবজি  যা ভিটামিন ও খনিজ উপাদান ।

৬।সাগু আলুর বড়া       

চার ধরনের খাদ্য উপাদানে সমৃদ্ধ  সাগু আলুর বড়া একটি পুষ্টিকর নাস্তা । সাগু হলো পর্যাপ্ত  শর্করা  ও  ক্যালরি সমৃদ্ধ । এ থেকে ভিটামিন বি কমপ্লেক্স ও পাওয়া যায় । এর সাথে  ডিম  যোগ করলে আরো ভালো আমি সমৃদ্ধ খাবার হয় । শাকসবজি হলো ভিটামিন ,খনিজ উপাদান  শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে ।

৭।মিষ্টি আলুর হালুয়া      

আলুর হালুয়া একটি মৌসুমী  বৈচিত্র্য সমৃদ্ধ খাবার । মিষ্টি আলু  একটি  শর্করা সমৃদ্ধ গাছের মূল জাতীয়  সবজি যাতে অধিক পরিমাণে ভিটামিন এ , ভিটামিন-সি ,ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম ইত্যাদি   আছে  যা  দেহের বিভিন্ন কার্যক্রম  নিয়ন্ত্রণ ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে ।  ঘি দিয়ে রান্না করলে এর পুষ্টিমান আরো বেড়ে যায়।অধিক পুষ্টিগুণ সম্পূর্ণ বাচ্চার খাবার তালিকা।

৮।ফ্রুট কাস্টার্ড                                

ফ্রুট কাস্টার্ড  বাচ্চাদের জন্য একটি আদর্শ , পুষ্টিকর এবং  একইসাথে  উপাদেয় খাবার । সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিনেই খাবার দেওয়া যেতে পারে । এই খাবারে বিভিন্ন ধরনের ফল ব্যবহৃত হয়  যা শিশুর জন্য খুবই উপকারী । শিশুরা এমনিতে ফল খেতে চায় না । তাই এইভাবে     ফ্রুট কাস্টার্ড    তৈরি করে  শিশুকে ফল খাওয়াতে পারেন ।

৯।ডাল সবজির স্যুপ   

ডালু সবজির স্যুপ  শিশুদের জন্য একই সঙ্গে একটি উপাদেয় ও পুষ্টিকর খাবার । এতে রয়েছে ডালের   আমিষ  সবজির আয়রন ,ভিটামিন ,ক্যালসিয়াম   , ফলিক এসিড  এবং অতি প্রয়োজনীয় আশঁ। এটি একটি সুস্বাদু খাবার হওয়ায় শিশুরা  অতি সহজেই সবজি এবং ডাল খেয়ে ফেলে ।

১০।গাজর আপেলের  সুপ   

গাজর আপেলের  সুপ  খুবই মজাদার একটি খাবার ।   এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন, মিনারেল  তেমনি রয়েছে খাদ্যআঁশ , ফাইবার  শরীরের জন্য ভীষণ দরকারি ।

১১।যব বা বালির সুপ      

যব বা বালি  একটি পুষ্টিকর শস্যদানা  যা আমিষ ,আয়রন ও খাদ্য আঁশে  ভরপুর । ডালের সঙ্গে রান্না করে পুষ্টিমান আরো বাড়ানো যেতে পারে ।

এই খাবারগুলো ছাড়াও  ঘরে তৈরি বিভিন্ন রকম  খাবার তৈরি করা যেতে পারে ।  যেগুলো  পুষ্টিগুণে ভরা  এবং শিশুর মানসিক বিকাশ  ও শারীরিক সুস্থতার জন্য  উপযোগী । আমরা ঘরে তৈরি পুডিং , পাস্তা , মিল্কশেক , বিভিন্ন ধরনের সালাদ, ফলের জুস   বাচ্চা।

আরও পড়ুন-

৬ মাস থেকে ৫ বছরের বাচ্চার খাবার নিয়ে   দুশ্চিন্তা দিন শেষ

চুল পড়া বন্ধের উপায় যেনে নিন

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করার ঘরোয়া উপায় 

খুব দ্রুত ওজন কমানো 

মুখে মধু মাখার উপকারিতা

রসুন খেলে কি হয়?

SS IT BARI– ভালোবাসার টেক ব্লগের যেকোন ধরনের তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কিত আপডেট পেতে আমাদের মেইল টি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ৪৯২ other subscribers

 

এছারাও আমাদের প্রতিদিন আপডেট পেতে আমাদের নিচের দেয়া এই লিংক এ যুক্ত থাকুন।

SS IT BARI- ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুনঃ এখানে ক্লিক করুন

SS IT BARI- ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃ এই পেজ ভিজিট করুন
SS IT BARI- ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে এএখানে ক্লিক করুন এবং দারুণ সব ভিডিও দেখুন।
গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন।
SS IT BARI-সাইটে বিজ্ঞাপন দিতে চাইলে যোগাযোগ করুন এই লিংকে

বাংলাদেশের সবচাইতে বড় উদীয়মান প্রশ্ন এবং উত্তরের বাংলা ওয়েবসাইট এবং ইনকাম করার ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম US IT BARI। আপনি এই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম বাংলা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রশ্ন এবং উত্তর করে জ্ঞান অর্জনের পাশাপাশি প্রতিমাসে ঘরে বসে ভালো মানের ইনকাম করতে পারবেন। তাই এখুনি আপনি আমাদের ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট খুলুন এবং জ্ঞান চর্চার পাশাপাশি ইনকাম করুন।

এ্যাকাউন্ট করতে এবং আরও বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন- www.usitbari.com 

SANAUL BARI

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ। আমি মো:সানাউল বারী।পেশায় আমি একজন চাকুরীজীবী এবং এই ওয়েবসাইটের এডমিন। চাকুরীর পাশাপাশি গত ১৪ বছর থেকে এখন পর্যন্ত নিজের ওয়েবসাইটে লেখালেখি করছি এবং নিজের ইউটিউব এবং ফেসবুকে কনটেন্ট তৈরি করি।
বিশেষ দ্রষ্টব্য -লেখার মধ্যে যদি কোন ভুল ত্রুটি হয়ে থাকে অবশ্যই ক্ষমার চোখে দেখবেন। ধন্যবাদ।

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *