ত দিয়ে মুসলমান মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

ত দিয়ে মুসলমান মেয়েদের ইসলামিক নাম –প্রত্যেকটি শিশু পৃথিবীতে আসার পর সাত দিনের মধ্যেও আকিকা দিয়ে তার জন্য একটি সুন্দর ইসলামিক নাম রাখা প্রতিটি মুসলিম বাবা-মার উপর ওয়াজিব। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের মুসলমানদের মধ্য ইসলামী সংস্কৃতি ও মুসলিম ঐতিহ্যের সাথে মিল রেখে শিশুর নাম নির্বাচন করার প্রবণতা দেখা যায়।

বর্তমানে তথ্যপ্রযুক্তির নির্ভরতা বেশি থাকায় অনেকেই মোবাইল ইন্টারনেটে শিশুদের ইসলামিক নামের খোঁজ করে থাকে। আবার অনেকেই নবজাতকের নাম নির্বাচনে পরিচিত আলেম ওলামাদের শরণাপন্ন হন।তবে যেভাবে শিশুর নাম নির্বাচন করা হোক না কেন শিশুর নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে সঠিক নীতিমালা অনুসরণ করে শিশুর নাম বাছাই করাই উত্তম।ত দিয়ে মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু।SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ এর পক্ষ থেকে সবাইকে জানাচ্ছি স্বাগতম। সুপ্রিয় ভিজিটর বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই? আশা করছি নিশ্চয়ই ভালো আছেন।বরাবরের মতো আমি আজকেও নতুন একটি আর্টিকেল নিয়ে আপনাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছি। আমরা অনেকেই বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ত দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক সার্চ করে থাকি।

স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম নির্বাচন করুন

কিন্তু সঠিক নাম বা অর্থ সংক্রান্ত বিভিন্ন ত্রুটির কারণে নাম বাছাই করতে পারি না। কিন্তু বন্ধুরা এ নিয়ে চিন্তার কোন কারণ নেই আপনাদের সুবিধার জন্য ত দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম নিয়ে আমি আজকের আর্টিকেলটি লিখছি। তাই ত দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম বাছাই করতে শেষ পর্যন্ত আর্টিকেলটি আপনাকে পড়তে হবে।

মেয়েদের ইসলামিক নাম

কোন শিশুর নাম রাখার ক্ষেত্রে নেককার ব্যক্তিদের নামে তার নামকরণ করা উত্তম হোক সেই শিশুটির ছেলে কিংবা মেয়ে। এর ফলে সংশ্লিষ্ট নামের অধিকারী ব্যক্তির স্বভাব চরিত্র নবজাতকের মাঝে প্রভাব ফেলার ব্যাপারে আশাবাদী হওয়া যায়। এ ধরনের আশাবাদী ইসলামে বৈধ। যদি কোন ব্যক্তির কিংবা শিশুর নাম ইসলাম সম্মত না হয় বরঞ্চ ইসলামী শরীয়তে নিষিদ্ধ এমন নাম হয় তাহলে এর নাম পরিবর্তন করা উচিত।

হাদিসে বর্ণিত আছে যে, মহিলা সাহাবীর জনক রাদিয়াল্লাহু আনহাই এর নাম ছিল বাররা (পূর্ণবতী)। তার এই নাম শুনে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাকে বললেন তুমি কি আত্মস্থুতি করছো? এমন সময় রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার নাম পরিবর্তন করে জয়নব রাখলেন।

একটি নবজাতক শিশুর নাম রাখার সময় কিছু কথা আমাদের মাথায় রাখা উচিত।

ন দিয়ে ছেলেদের অর্থসহ ইসলামিক নামের নতুন তালিকা দেখুন

আমাদের প্রিয় নবী রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন শিশু জন্মের পরপরই তার নাম রাখা যাবে, শিশুর জন্মের সপ্তম দিনে তার নাম রাখা যাবে, অর্থাৎ এ থেকে এটাই প্রমাণ হয় যে ইসলাম নাম রাখার বিষয়ে মুসলমানদেরকে অবকাশ দিয়েছেন। কোরআনে বর্ণিত আছে আল্লাহ তায়ালা কোন কোন নবীর নাম তাদের জন্মের পূর্বে রেখেছেন।

সুন্দর নামের গুরুত্ব

শাইখ বকর আবু যায়েদ বলেন,”ঘটনা ক্রমে দেখা যায় ব্যক্তির নামের সাথে তার স্বভাব ও বৈশিষ্ট্যের মিল থাকে। এটাই আল্লাহ তায়ালার হেকমতের দাবি। যে ব্যক্তি নামের অর্থ সফলতা রয়েছে তার চরিত্রেও সফলতা পাওয়া যায়। যার নামের মত গম্ভীর্যতা আছে তার চরিত্রেও গম্ভীর্যতা পাওয়া যায়। খারাপ নামের অধিকারী লোকের চরিত্র খারাপ হয়ে থাকে। ভালো নামের অধিকারী ব্যক্তির চরিত্র ভালো হয়ে থাকে।,”

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কারো ভালো নাম শুনে আশাবাদী হতেন। হুদাইবিয়ার সন্ধি কালে মুসলিম ও কাফের দুই পক্ষের মধ্য টানা পূরণের এক পর্যায়ের আলোচনার জন্য কাফেরদের প্রতিনিধি হয়ে সুহাইল ইবনে আমর নামে এক ব্যক্তি এগিয়ে এলো। তখন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সুহাইল নামে আশাবাদী হয়ে বলেন,” সুহাইল তোমাদের জন্য সহজ করে দিতে এসেছেন।”

ইসলামে নামকরণের সময়

শিশু জন্মগ্রহণ করার পর কখন নামকরণ করা সুন্নত। এই সম্পর্কে আলেমদের কয়েকটি মত আছে কেউ কেউ বলেছেন শিশু জন্মের সপ্তম দিনে নামকরণ ও আকিকা করা সুন্নত।

হযরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু হতে বর্ণিত আছে যে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হযরত হাসান ও হোসাইন রাদিয়াল্লাহুর আকিকা করলেন জন্মের সপ্তম দিনে এবং তাদের দুইজনের নাম রাখলেন ইবনে হাব্বান ও আল মুস্তাদরাক।

কেউ কেউ মনে করেন শিশুর জন্ম হবার পরপরই তার নামকরণ করা সুন্নাত। তারা হযরত আনাস রাদিয়াল্লাহু হতে বর্ণিত হাদিস দলিল হিসেবে পেশ করেন।

হযরত আনাস রাদিয়াল্লাহু হতে বর্ণিত,আব্দুল্লাহ ইবনে আবি তালহার জন্ম হলে তাকে নিয়ে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কাছে গেলাম। তখন তিনি উটকে হাত বুলিয়ে আদর করছিলেন। তিনি জিজ্ঞাসা করলেন তোমার কাছে কি খেজুর আছে? আমি বললাম হ্যাঁ।

তারপর আমি তাকে খেজুর দিলাম। তিনি তা চিবিয়ে নরম করলেন এবং শিশুটির মুখ ফাক করে তার মুখের ভেতর ভরে দিলেন। শিশুটি তখন তার মুখ নাড়াতে শুরু করল। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, আনসারদের প্রিয় হচ্ছে খেজুর। পরে তার নাম রাখলেন আব্দুল্লাহ (বায়হাকি)।

এ থেকে স্পষ্ট যে শিশু জন্মের পর পরই তার নাম রাখা যায়।

ত দিয়ে মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

তাবিয়া- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- অনুগত।

তাবাসসুম- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- মুচকি হাসি।

তাসনিয়া- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- প্রশংসিত।

তাহসিনা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- উত্তম।

তাহিয়্যাহ- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- শুভেচ্ছা।

তোহফা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- উপহার।

তাখমিনা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- অনুমান।

তাযকিয়া- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- পবিত্রতা।

তাসলিমা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- সমর্পন।

তাসমিয়া- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- নামকরণ।

তাসনিম- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- বেহেশতের ঝর্ণা।

তাসফিয়া- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- পবিত্রতা।

তাসকিনা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- সান্তনা।

তাসমিম- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- দৃঢ়তা।

তাশবিহ- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- উপমা।

তাকিয়া- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- শুদ্ধ চরিত্র।

তাকমিলা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- পরিপূর্ণ।

তামান্না- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- ইচ্ছা।

তামজিদা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- মহিমা কীর্তন।

তাহজিব- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- সভ্যতা।

তাওবা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- অনুতাপ।

তানজিম- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- সুবিন্যাস্ত।

তাহিরা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- পবিত্র।

তবিয়া- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- প্রকৃতি।

তরিকা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- রীতিনীতি।

তাইয়্যিবা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- পবিত্র।

তহুরা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- পবিত্রা।

তুরফা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- বিরল বস্তু।

তাহমিনা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- বিরত থাকা।

তাহামিনা- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- মূল্যবান।

তানমীর- মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থ- ক্রোধ প্রকাশ করা।

ত (T) দিয়ে মেয়ে শিশুর ইসলামিক নাম

তাসনিয়া- ইসলামিক নামের অর্থ- প্রশংসিত।

তাহসিনা- ইসলামিক নামের অর্থ- উত্তম।

তনিমা- ইসলামিক নামের অর্থ- সুন্দর/ সৃষ্টিকর্তা/স্নিগ্ধতা।

তনুজা- ইসলামিক নামের অর্থ- দেহ /কন্যা।

তবলাহ- ইসলামিক নামের অর্থ- তিনি হাদিসের বর্ণনাকারী ছিলেন।

তবসিরা- ইসলামিক নামের অর্থ- জ্ঞান দান।

তবিহা- ইসলামিক নামের অর্থ- সৎ /সত্যবাদী।

তমিকা- ইসলামিক নামের অর্থ- মিষ্টি /খেজুর গাছ।

তমিজ- ইসলামিক নামের অর্থ- অনুভূতি/ বিনয়/ বিচক্ষণতা।

তমিজা- ইসলামিক নামের অর্থ- জনগণের ভাষা/ ভদ্রতা।

তরফা- ইসলামিক নামের অর্থ- গাছের ধরন।

তরুব- ইসলামিক নামের অর্থ- সুচেতা।

তরনিম- ইসলামিক নামের অর্থ- ছন্দ/ কণ্ঠস্বর।

তরফা- ইসলামিক নামের অর্থ- গাছের ধরন।

তসরিকা- ইসলামিক নামের অর্থ- সঠিক পথ দেখানো।

তাসবির- ইসলামিক নামের অর্থ- সুন্দর প্রতিকৃতি।

তসলিন- ইসলামিক নামের অর্থ- সুন্দর/ বিস্ময়কর।

ত দিয়ে কন্যা শিশুর নাম

তসিফা নামের অর্থ চালাক।

তুহুর নামের অর্থ বিশুদ্ধতা।

তাআকুল নামের অর্থ বুদ্ধিমান চিন্তা।

তাইকুল নামের অর্থ বুদ্ধিমান চিন্তা ভাবনা।

তাইফা নামের অর্থ জাতি/ উপজাতি।

তাইমা নামের অর্থ জোরে থান্ডার।

তায়মা নামের অর্থ উত্তর-পশ্চিম আরবে মরুদ্দ্যান।

তাইমিনা নামের অর্থ বিশুদ্ধ/ চালাক/ মূল্যবান।

গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন

তাইয়্যবা নামের অর্থ আনন্দদায়ক /ভালো।

তাইয়া নামের অর্থ ধার্মিক।

তাইয়াবা নামের অর্থ নিরীহ ব্যক্তি/ প্রেমময়।

তাইয়ুবা নামের অর্থ বিশুদ্ধ/ নিষ্পাপ/ আনন্দদায়ক।

তাইসা নামের অর্থ সজীবতায় পূর্ণ /জীবন পূর্ণ।

তাইসিন নামের অর্থ সুন্দর্যায়ন /প্রশংসা।

তাওফিকা নামের অর্থ আল্লাহর সাহায্য/ পূর্ণ মিলন।

তাওয়াবরা নামের অর্থ একটি ছোট্ট ড্রাম।

তাওয়া নামের অর্থ একজন ধর্মীয় ব্যক্তি।

তাওয়াদ নামের অর্থ স্নেহ/ ভালবাসা।

তাওয়াদুদ নামের অর্থ ভালোবাসা/ স্নেহ।

তাওসিয়া নামের অর্থ কমান্ড দিতে।

তাওহিদা নামের অর্থ আল্লাহর একত্ববাদে বিশ্বাস।

তাকওয়া নামের অর্থ আল্লাহ ভীতি/ ধর্মভীরুতা/ সতর্কতা।

তাকওয়িম নামের অর্থ সংশোধন।

তাকদিস নামের অর্থ পবিত্রতা।

তাকদুম নামের অর্থ অগ্রগতি।

তাকবীর নামের অর্থ আল্লাহকে মহামান্বিত করার জন্য।

তাকরিম নামের অর্থ সম্মান/ পবিত্রতা।

তাকসিন নামের অর্থ সন্তোষ।

তাকলিম নামের অর্থ বক্তৃতা।

তাকিজা নামের অর্থ উজ্জ্বল।

দিয়ে অর্থসহ মেয়েদের ইসলামিক নাম

তাকিয়া নামের বাংলা অর্থ ধার্মিক।

তাকিশা নামের বাংলা অর্থ সুস্থ /জীবিত।

তাগরিদ নামের বাংলা অর্থ কিচিরমিচির।

তাজ নামের বাংলা অর্থ মুকুট।

তাজউইদ নামের বাংলা অর্থ আল্লাহর প্রশংসা।

তাজমা নামের বাংলা অর্থ উত্তর-পশ্চিম আরবে মরুদ্দ্যান।

তাজমিনা নামের বাংলা অর্থ যিনি পূরণ করেন।

তাজমিরা নামের বাংলা অর্থ পুষ্প /ফল /বিনিয়োগ।

তাজমিন নামের বাংলা অর্থ একজন ভালো গুণ থাকা।

তাজরিন নামের বাংলা অর্থ জান্নাতের নদী।

তাজিনা নামের বাংলা অর্থ কবজ।

তাজুন নামের বাংলা অর্থ আল্লাহর দান।

তাজুর নামের বাংলা অর্থ বনিক।

তাজিনা নামের বাংলা অর্থ সুন্দর।

তাতিয়ানা নামের বাংলা অর্থ পরী রাজকন্যা/ পরী রানী।

তানজা নামের বাংলা অর্থ সুখ।

তানজিনা নামের বাংলা অর্থ সুন্দর।

তানজিন নামের বাংলা অর্থ আল্লাহর দান।

তানজিবা নামের বাংলা অর্থ জীবন।

তানজিম নামের বাংলা অর্থ অনেক মানুষের গ্রুপ।

তানজিল নামের বাংলা অর্থ নিচে পাঠান।

তানজিরা নামের বাংলা অর্থ স্বর্গীয় ফল।

তানজিয়া নামের বাংলা অর্থ পরিত্রাণ /উদ্ধার/ বিতরণ।

তানভীয়া নামের বাংলা অর্থ সোনা।

তানভী নামের বাংলা অর্থ সুন্দরের দেবী।

তানভীর নামের বাংলা অর্থ আলোর রশ্মি/ তারকা।

তানহা নামের বাংলা অর্থ সুন্দর।

তানহাজ নামের বাংলা অর্থ প্রশংসার যোগ্য।

তানাজ নামের বাংলা অর্থ প্রশংসার যোগ্য।

তানিয়া নামের বাংলা অর্থ পরী রাজকুমারী/ রানী।

তানিশা নামের বাংলা অর্থ উচ্চাকাঙ্ক্ষা/ ইচ্ছা /পরীর রানী।

তানিম নামের বাংলা অর্থ ধন্য হওয়া।

তাফরিন নামের বাংলা অর্থ আশ্চর্য /বিষ্ময়কর।

তাফিদা নামের বাংলা অর্থ জান্নাতের মিশরীয় নাম।

তাবিয়ান নামের বাংলা অর্থ প্রকাশ করুন।

আল- মাউসুআ আলফিকহিয়া কুয়েতিয়া”অর্থাৎ কুয়েতস্থ ফিকহ বিষয়ক বিশ্বকোষ গ্রন্থে বলা হয়েছে-“নাম রাখার মূলনীতি হচ্ছে-

নবজাতকের যেকোনো নাম রাখা জায়েজ যদি না তা শরীয়তের কোন নিষেধাজ্ঞা না থাকে।কিন্তু অনন্ত চিরঞ্জীব মৃত্যু জয় এই অর্থবোধক নাম কোন ভাষাতেই রাখা কোন অবস্থায় জায়েজ নয়। কারণ নশ্বর সৃষ্টি কে অবিনশ্বর সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর গুণাবলীতে ভূষিত করা জায়েজ নেই।

শিশু জন্মগ্রহণ করার পর নিজের নাম নিজে রাখতে পারে না। এটা পিতা-মাতা বা অন্যান্য আত্মীয় স্বজনের দায়িত্ব পিতা-মাতা বা যারাই নাম রাখবে তাদের উচিত সুন্দর নাম রাখা। এই প্রসঙ্গে হযরত ইবনে আব্বাস ও আবু সাঈদ থেকে বর্ণিত আছে যে,” রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যার সন্তান জন্মগ্রহণ করে সে যেন তার সুন্দর নাম রাখে ও সুশিক্ষা দেয় এবং সাবালক হলে তার বিবাহ দেবে। প্রাপ্তবয়স্ক হলে বিবাহর না দেবার কারণে গুনাহ হলে সেই গুনা তার পিতার উপর বর্তাবে।” (বায়হাকি, হাদীসটি  যঈফ)

সচারচর জিজ্ঞাসা

প্রশ্ন:তামান্না নামের অর্থ কি?

উত্তর: তামান্না নামের অর্থ ইচ্ছা।

প্রশ্ন:তামিমা নামের অর্থ কি?

উত্তর: তামিমা নামের অর্থ নিখুঁত /সম্পূর্ণ।

প্রশ্ন:তাম্মি নামের অর্থ কি?

উত্তর: তাম্মি নামের অর্থ খেজুর গাছ/ পাম গাছ/ যমজ।

শেষ কথা-

প্রিয় পাঠক পাঠিকা বন্ধুরা আপনি যদি ত দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম‌ খুঁজতে আজকের আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ে থাকেন তাহলে নিশ্চয়ই এতক্ষণে আপনি আর্টিকেল থেকে মেয়েদের ত দিয়ে ইসলামিক নামটি বাছাই করতে পেরেছেন। আজকের আর্টিকেলের ত দিয়ে মেয়েদের যে নামগুলো প্রকাশ করা হয়েছে তার সবগুলোই ইসলামিক নাম এবং এর অর্থ গুলো সুন্দর। তাই আপনি নিশ্চিন্তে আপনার পছন্দ অনুযায়ী আজকের আর্টিকেল থেকে আপনার শিশুর নাম বাছাই করতে পারেন।

[বিশেষ দ্রষ্টব্য, উল্লেখিত নাম গুলো সম্পূর্ণ ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত তাই কোন ভুল ত্রুটি থাকলে অবশ্যই মার্জনা করবেন]

আজকের আর্টিকেলটি যদি আপনার সামান্যতম উপকারে আসে তাহলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে ওয়েবসাইটটির কথা শেয়ার করতে ভুলবেন না। আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি। সকলে ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন।

পোস্ট ট্যাগ-

ত দিয়ে মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম,স ত দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম,ত দিয়ে আরবি নাম,Quran ত দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ,ত দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২২,ত দিয়ে মেয়ে বাবুর ইসলামিক নাম,ত দিয়ে মেয়েদের আধুনিক নাম হিন্দু,জান্নাত দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম,ত দিয়ে ছেলেদের ইসলামিক নাম।

আরও পড়ুন –

আ দিয়ে ছেলেদের অর্থসহ ইসলামিক নামের তালিকা

ই দিয়ে ছেলেদের ইসলামিক নাম এবং নামের অর্থ

প দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নামের অর্থসহ তালিকা ২০২৩

দুই অক্ষরের ছেলেদের অর্থসহ ইসলামিক নামের তালিকা দেখুন

আ দিয়ে মেয়েদের অর্থসহ ইসলামিক নামের তালিকা দেখুন

ক দিয়ে ছেলেদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

ল দিয়ে মেয়েদের সুন্দর অর্থসহ ইসলামিক নাম ২০২৩

ব দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম এবং অর্থ

স দিয়ে ছেলেদের অর্থসহ ইসলামিক নামের তালিকা ২০২৩

র দিয়ে ছেলে শিশুর ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২৩

ম অক্ষর দিয়ে মেয়ে শিশুর ইসলামিক সুন্দর নাম

হ দিয়ে ছেলেদের ইসলামিক নামের তালিকা (ইসলামিক অর্থসহ)

স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ (আরবি নাম সুন্দর অর্থসহ)

দুই অক্ষরে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ (বিভিন্ন বর্ণ দিয়ে)

SS IT BARI– ভালোবাসার টেক ব্লগের যেকোন ধরনের তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কিত আপডেট পেতে আমাদের মেইলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন.

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ৪৯২ other subscribers

প্রতিদিন আপডেট পেতে আমাদের নিচের দেয়া এই লিংক এ যুক্ত থাকুন

SS IT BARI- ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুনঃ এখানে ক্লিক করুন

SS IT BARI- ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃ এখানে ক্লিক করুন।
SS IT BARI- ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে :এএখানে ক্লিক করুন এবং দারুণ সব ভিডিও দেখুন।
গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে :এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন।
SS IT BARI-সাইটে বিজ্ঞাপন দিতে চাইলে যোগাযোগ করুন :< strong>এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- টুইটার থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- লিংকদিন থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- ইনস্টাগ্রাম থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- টুম্বলার (Tumblr)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে :এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- পিন্টারেস্ট (Pinterest)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

কোন অভিজ্ঞতা ছাড়াই অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চাইলে সাথেই থকুন : এখানে ক্লিক করুন।

SS It BARI JOB NEWS

SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ টিম