জমির দলিল বের করার নিয়ম-কিভাবে জমির দলিল বের করা হয় এখানে জানুন

জমির দলিল বের করার নিয়ম-জমি সংক্রান্ত বিভিন্ন ধরনের ঝামেলা থাকতে পারে সব ধরনের ঝামেলা এড়াতে প্রয়োজন সেই জমির দলিল। আমাদের চারপাশে সব থেকে বেশি নজরে পড়ে জমি নিয়ে বিরোধ সেই বিরোধ সৃষ্টি শুরু সময় থেকে এখন পর্যন্ত চলমান।

ই -পাসপোর্ট ফরম পূরণ করার নিয়ম

জমি নিজের দখলে রাখা জমির সীমানা নির্ধারণ করা নিয়ে অনেকের মধ্যেই ঝামেলা গন্ডগোল হয়ে থাকে আর এই সমস্যা আরো দ্বিগুণ পরিমাণে বৃদ্ধি পায় যখন জমির দলিল না পাওয়া যায় বা কিভাবে জমির দলিল পেতে হয় সেটি সম্পর্কে কেউ অজ্ঞ থাকে।

জমির দলিল বের করার নিয়ম
জমির দলিল বের করার নিয়ম

বর্তমান সময়ে ভূমি সম্পর্কিত মামলা  ভূমি নিয়ে বিভিন্ন অভিযোগ দেশকে ডিজিটালাইজ করার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে পুরাতন পদ্ধতির পাশাপাশি ডিজিটাল পদ্ধতিতে ও জমির দলিল পাওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে বর্তমানে।

আজকে আমাদের আলোচনার মুখ্য বিষয় হল জমির দলিল কিভাবে বের করা হয়। আপনি যদি এখন পর্যন্ত জমির দলেই বের না করে থাকেন তাহলে দেখে নিন কিভাবে জমির দলিল বের করতে হয়।আজকের এই আলোচনায় প্রয়োজনীয় বিষয় হিসেবে জমির দলিল বের করার নিয়ম বা যেকোনো প্রকার জমির দলিল খুঁজে পাওয়ার পদ্ধতি সম্পর্কে আলোকপাত করা হবে।

জমির দলিল

জমির দলিল হচ্ছে নির্দিষ্ট ভূমি সম্পর্কিত সকল তথ্যের সমষ্টি। প্রতিটি জমির দলিলে জমির দাগ নম্বর থাকে।নির্দিষ্ট দাগ নম্বরের মৌজা একটি ভূখণ্ডের বিষয়ে কর খাজনা ক্রয়-বিক্রয় ওয়ারিস হিসেবে হস্তান্তর ইত্যাদি সব বিষয়ে যে কাগজে সরকারি স্টাম্প সমেত ও সরকারি রেকর্ডে স্থান পায় তাই হচ্ছে জমির দলিল।

শুধুমাত্র জমি ক্রয় বিক্রয়ের জন্য যে কাগজটি সেটি দলিল নয় বরং জমি সম্পর্কিত সকল প্রকার তথ্য যে কাগজে উল্লেখিত থাকে সেটি দলিল হিসেবে গণ্য হয়।

জমির দলিলের প্রয়োজনীয়তা

ব্যক্তির জমির মালিকানা নির্ধারণ করা হয় জমির দলিলের মাধ্যমে। জমির দলিল ব্যতীত জমি নিয়ে বিভিন্ন প্রকার সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় তাই জমির দলিলের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। একজন জমির মালিকের কাছে জমির দলিল থাকা আবশ্যকীয় অন্যথায় জমির মালিক হওয়া সত্ত্বেও জমি অন্যজনের নিকট দখল হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

জমির দলিলে জমির মালিক হিসেবে যার নাম উল্লেখ থাকে তিনি জমির মালিক বলে গণ্য হন। তাই প্রকৃত মালিকের কাছে জমির দলিল থাকা আবশ্যিক। জমি বন্টন বা ক্রয়-বিক্রয়ের পর নিজের নামে রেজিস্ট্রি করে যার যার জমি তার তার নিকট হস্তান্তর করাই উত্তম।

এছাড়াও কেউ যদি জমি কিনতে চায় তাহলে জমির আসল দলিল দেখেই কিনতে হয়। কেননা তা না হলে ভুয়া জমি ক্রয়ের শিকার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে এবং এর পরিণামে জেল ও জরিমানার মুখোমুখি হতে হয়।

জমির দলিল বের করার পদ্ধতি

জমির দলিল বের করতে হলে প্রথমেই জমি ক্রয়কারী ও বিক্রয় কারীর সম্পূর্ণ আইনি নাম জানতে হবে যেটি তাদের জন্ম নিবন্ধন বা ভোটার আইডি কার্ডে লেখা আছে। যদি জমিটি একের অধিক ব্যক্তির মালিকানা ধীনে থাকে তবে প্রত্যেককে অবশ্যই তালিকাভুক্ত করতে হবে এবং তাদের অবশ্যই দস্তাবেজটিতে স্বাক্ষর করতে হবে। জমি ক্রয়কারি বা বিক্রয়কারী বিবাহিত কিনা অবিবাহিত সে তথ্য এটিতে তালিকাভুক্ত করতে হবে।

এমনকি যদি কোন পক্ষের স্ত্রী লেনদেনের সাথে জড়িত না থাকে তার পরেও তাদের তালিকাভুক্ত করার প্রয়োজন হতেই পারে। নিশ্চিতভাবে রাষ্ট্রীয় আইন গুলি যথার্থভাবে মানতে হবে জমির অধিকার সম্পর্কে সকল প্রকার আইন মেনে নেয়া বাধ্যতামূলক ।প্রয়োজনে আইন সংস্থার কাছ থেকে পর্যাপ্ত আইনি পরামর্শ নিতে হবে।কিভাবে জমির দলিল বের করা হয়

জমির দলিল তৈরি করতে গেলে অবশ্যই জমির সকল প্রকার আইনি বিবরণ অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। যেমন এর মধ্য অনেকগুলি বিভাগ ব্লক বা প্লট নম্বর অন্তর্ভুক্ত থাকতে হবে। জমির মূল দলিল থেকে এই তথ্যটি পাওয়া যেতে পারে যা কাউন্টি ট্যাক্স অ্যাসেসর এবং কাউন্টি রেকর্ডারের অফিস উভয়ের সাথে ফাইলে থাকে।

এছাড়াও জমির দলিল বের করতে রাস্তার ঠিকানা হাউসিং ডেভেলপমেন্টের নাম অন্তর্ভুক্ত করলে জমি সনাক্তকরণের জন্য এটি সহজ হয়।

জমি লেনদেনের জন্য দলিলগুলো অবশ্যই লিখিতভাবে থাকতে হবে অন্যথায় চুক্তিটি বৈধ হবে না জমি যেখানে অবস্থিত সেই অনুযায়ী কাউন্টি সাথে দলিল গুলি ফাইলে রাখা হয়।

জমির দলিল বের করার জন্য অবশ্যই এর মধ্য এটি উল্লেখ থাকতে হবে যে এক ব্যক্তির কাছ থেকে অন্য ব্যক্তির কাছে মালিকানা আইনিভাবে হস্তান্তর করা হয়েছে। কিছু রাজ্য বা জেলার নির্দিষ্ট ভাষা রয়েছে যা অবশ্যই দলিলে ব্যবহার করা উচিত দলিলের জন্য সঠিক শব্দ চয়ন নিশ্চিত করার সর্বোত্তম উপায় হ’ল রাষ্ট্রের জন্য একটি বিন আমলের নমুনা জমির দলিল খুঁজে বের করা এবং এটি পড়া।

গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 

জমি ক্রয় করার সময় যেই মূল্যে ক্রয় করা হয়েছিল জমির দলিল তৈরি করতে সেই মূল্য তালিকাভুক্ত করার পাশাপাশি জমিতে বসবাসের ধরন বর্ণনা করতে হবে (যদি থাকে)। জমিতে যদি ঋণ বা বন্ধকী কারণে মালিকানা বদল হয় তবে এটিও দলিলে ব্যাখ্যা করতে হবে। যদি জমিটি বিক্রয়কারী একাধিক মালিক থাকে এবং একজন ক্রয় কারী থাকে তাদের ভাগের দলিল করে থাকেন তবে অসম শেয়ার এবং শেয়ারের শতাংশ রয়েছে কিনা তা উল্লেখ করতে হবে।

সকল বিক্রয়কারী এবং ক্রয়কারীকে অবশ্যই আইনিভাবে বাধ্যতামূলক হওয়ার আগে বিক্রয়কৃত জমির দলিলটিতে স্বাক্ষর করতে হবে। কোথাও কোথাও এর জন্য স্বাক্ষরের সাক্ষীদের প্রয়োজন হয় বা নোটারি জনসাধারণের সামনে স্বাক্ষর করতে হতে পারে।দলিলের স্বাক্ষর করার পর এটি আইনগত বিক্রয় কারী বা এমন কাউকে হস্তান্তর করতে হবে যিনি আইনগত বিক্রয়কারীর পক্ষে কাজ করার জন্য এসেছে।

জমির দলিলের প্রকারভেদ

জমির দলিল শুধুমাত্র ক্রয় বিক্রয়ের কাগজটি নয় দলিল হল অন্যান্য ডকুমেন্টস ও জমির সম্পর্কিত সকল প্রকার তথ্য সম্মিলিত একটি পেপার।

জমির খতিয়ান

খতিয়ান হচ্ছে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রস্তুতকৃত জমির মালিকানা বা দাগের বর্ণনা সহ একটি নথিচিত্র।মূলত খতিয়ান প্রস্তুত করা হয় জমির প্রকৃত মালিকদের নিকট থেকে সরাসরি খাজনা আদায় করার জন্য এই খতিয়ান কে আবার কয়েক ভাগে ভাগ করা যায় ।যেমন:

  • *সিএস খতিয়ান
  • *এস এ খতিয়ান
  • *আর এস খতিয়ান
  • *বিএস খতিয়ান
  • *পেটি খতিয়ান

জমির মাঠ পর্চা

মাঠ পর্চা হচ্ছে সরকার কর্তৃক জমির মালিকদের নিকট খসড়া খতিয়ান। জমি জরিপ করার সময় জমি মালিকদের তাদের জমি সম্পর্কিত সকল তথ্য এই মাঠ‌ পর্চায় দেওয়া হয়ে থাকে। খতিয়ান প্রকাশের আগে একে খতিয়ানের পরিবর্তে অথবা বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা যায় যদি মাঠ পর্চায় কোন ভুল থাকে তবে খতিয়ান প্রকাশের পূর্বেই সেটি সংশোধন করতে হবে।

জমির বিক্রয় দলিল

জমি ক্রয় বিক্রয় সংক্রান্ত দলিল অর্থাৎ খতিয়ানে উল্লেখিত দাগ নাম্বারে কোন জমি কার নিকট ও কার কাছে বিক্রয় করা হলো তা উল্লেখ থাকে এই বিক্রয় দলিলে। মূলত এই দলিলকেই জমির মূল দলিল হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

একটি জমির জন্য সেই জমির দলিলের প্রয়োজনীয়তার বিকল্প নেই। মূলত জমির দলিলের মাধ্যমে নির্ধারিত হয় জমির প্রকৃত মালিক কে। তাই অবশ্যই জমির মালিকের কাছেই জমির দলিল থাকা বাধ্যতামূলক অন্যথায় জমি মালিকানা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারে। এছাড়াও জমি ক্রয় করার ক্ষেত্রে জমির আসল দলিল দেখে জমি ক্রয় করাই উচিত কোন কারণে বিক্রয় দলিল না পাওয়া গেলে সর্বশেষ খাজনা পরিষদ সহ অন্যান্য তথ্য যাচাই করে নেওয়া উচিত। তাই সচেতনভাবে সবকিছু বুঝে শুনে জমি কেনাই উত্তম।

জমির নকল দলিল কিভাবে পাওয়া যায়?

জমির দলিলের নকল তুলতে রেজিস্ট্রি অফিসে গিয়ে আসল দলিলের সহায়তায় জমিটি কত সালে কত নম্বর কলাম বইয়ের কত পৃষ্ঠায় নকল করা হয়েছে সেই সকল তথ্য প্রদান করে জমির নকল লাভের জন্য আবেদন করতে হবে আবেদন গ্রহণযোগ্য হলে পরবর্তীতে জমির নকল উত্তোলন করা হয়।

অনলাইনে জমির দলিল বের করার সুবিধা কি?

অনলাইনে জমির দলিল বের করার বহু সুবিধা রয়েছে। ঝামেলা হীন ভাবে জমির দলিল বের করা যায় একজনের শক্তি সময় উভয়ই সাশ্রয় হয়। জমির মালিকানা নিয়েও যেকোনো ঝামেলা আপত্তি দ্রুত নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয়।

আরো তথ্য

অনলাইন পাসপোর্ট আবেদন করার নতুন নিয়ম

নতুন নিয়মে পাসপোর্ট করতে কত টাকা খরচ লাগে

এক নজরে বাংলাদেশ পাসপোর্ট অফিস সমূহ-নতুন আপডেট

ই পাসপোর্ট কত দিনে পাওয়া যায়-নতুন নিয়মে আপডেট

আশা করি যারা ই পাসপোর্ট নিয়ে ভাবছেন এই পোস্টটি থেকে আপনাদের হানডেট পারসেন উপকারে আসতে পারে ই পাসপোর্ট সংক্রান্ত যে কোন তথ্য জানতে আমাদের ই-পাসপোর্ট এই ক্যাটাগরি টি ভিজিট করুন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ৪৭৭ other subscribers

প্রতিদিন আপডেট পেতে আমাদের নিচের দেয়া এই লিংক এ যুক্ত থাকুন

SS IT BARI- ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুনঃ এখানে ক্লিক করুন

SS IT BARI- ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃ এখানে ক্লিক করুন।
SS IT BARI- ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে :এএখানে ক্লিক করুন এবং দারুণ সব ভিডিও দেখুন।
গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে :এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন।
SS IT BARI-সাইটে বিজ্ঞাপন দিতে চাইলে যোগাযোগ করুন :এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- টুইটার থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- লিংকদিন থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- ইনস্টাগ্রাম থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- টুম্বলার (Tumblr)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে :এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- পিন্টারেস্ট (Pinterest)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

কোন অভিজ্ঞতা ছাড়াই অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চাইলে এই ফেসবুক পেজটি লাইক করে সাথেই থকুন : এখানে ক্লিক করুন।

{
“@context”: “https://schema.org”,
“@type”: “FAQPage”,
“mainEntity”: [{
“@type”: “Question”,
“name”: “জমির নকল দলিল কিভাবে পাওয়া যায়?”,
“acceptedAnswer”: {
“@type”: “Answer”,
“text”: “জমির দলিলের নকল তুলতে রেজিস্ট্রি অফিসে গিয়ে আসল দলিলের সহায়তায় জমিটি কত সালে কত নম্বর কলাম বইয়ের কত পৃষ্ঠায় নকল করা হয়েছে সেই সকল তথ্য প্রদান করে জমির নকল লাভের জন্য আবেদন করতে হবে আবেদন গ্রহণযোগ্য হলে পরবর্তীতে জমির নকল উত্তোলন করা হয়।”
}
},{
“@type”: “Question”,
“name”: “অনলাইনে জমির দলিল বের করার সুবিধা কি?”,
“acceptedAnswer”: {
“@type”: “Answer”,
“text”: “অনলাইনে জমির দলিল বের করার বহু সুবিধা রয়েছে। ঝামেলা হীন ভাবে জমির দলিল বের করা যায় একজনের শক্তি সময় উভয়ই সাশ্রয় হয়। জমির মালিকানা নিয়েও যেকোনো ঝামেলা আপত্তি দ্রুত নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয়।”
}
}]
}

SS It BARI JOB NEWS

SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ টিম