গেম খেলে টাকা আয় পেমেন্ট বিকাশে –নগদে -রকেটে

গেম খেলে টাকা আয়-আসসালামু আলাইকুম আশা করছি সকলে ভালো আছে, যাহারা শুধুমাত্র গেম খেলে টাকা আয় করতে চান এবং পেমেন্ট নিতে চান বাংলাদেশি পেমেন্ট গেটও বিকাশের মাধ্যমে নগদের মাধ্যমে বা রকেটের মাধ্যমে। আজকের এই পোস্টটি সম্পূর্ণ তাদের জন্য। আজকের এই পোস্টে আপনাদেরকে জানানো হবে বর্তমানে সবচাইতে জনপ্রিয়  যে সকল গেমস রয়েছে সেই সকল গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে এই সম্পর্কে এ টু জেড। অর্থাৎ আপনি বর্তমানে গেম খেলে কোন ওয়েবসাইট বা কোন মাধ্যম গুলি ব্যবহার করে বিকাশের মাধ্যমে সেই টাকা পেমেন্ট উইথড্র দিবেন এ টু জেড এ বিষয়গুলি জানতে পারবেন।গেম খেলে টাকা আয়

অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয়

অনেকে হয়তো বা অবাক হচ্ছেন যে গেম খেলে টাকা আয় করা কি আসলে সম্ভব? হ্যাঁ সম্ভব আপনি চাইলে গেম খেলেও হাজার হাজার টাকা আপনি অনলাইনের মাধ্যমে আয় করতে পারবেন এজন্য আপনার ইচ্ছে আপনার ধৈর্য এবং আপনার সঠিক গাইডলাইন থাকতে হবে। তাহলে আপনি অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট উইথড্র করতে পারবেন।

আরও জানুন-মোবাইল দিয়ে টাকা আয় করার নতুন মাধ্যম (প্রমাণসহ)

আমি আপনাদেরকে নিজে অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় করার কিছু মাধ্যম দিয়ে দিচ্ছি –

অনলাইন টুর্নামেন্টস – দেখুন বর্তমানে অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে অনেক মোবাইল এপ্লিকেশন রয়েছে যে অ্যাপ্লিকেশন বা ওয়েবসাইটগুলোতে আপনি একদম লাইভ আকারে অনলাইনে গেমসে আপনি টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করে কিন্তু অনলাইনে গেম খেলে টাকা আয় করতে পারবেন।

গেম স্ট্রিমিং – আপনি যদি বর্তমানে ফেসবুক ইউটিউবে যান তাহলে অসংখ্য ভিডিও আপনি দেখতে পাবেন যেগুলি গেমস খেলার ভিডিও। হঠাৎ বর্তমানে এত পরিমান জনপ্রিয় গেমস রয়েছে যে এই সকল গেমসে কিভাবে খেলতে হয় কিভাবে উইন হতে হয় এই সম্পর্কের ভিডিওগুলি কিন্তু প্রচুর পরিমাণে মানুষ দেখে থাকে। তাই আপনি চাইলে আপনার পছন্দের গেমস টি গেমিং স্ট্রিমিং করে সেই ভিডিও থেকেও আপনি আয় করতে পারবেন এছাড়াও ভিউয়ার্সগুলি থেকে আপনি টিপস গ্রহণ করতে পারবেন।

গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন 

গেম তৈরি – অনেকে রয়েছে যারা গেমস খেলতে খেলতে সেই সম্পর্কিত গেমস অ্যাপ্লিকেশন বা গেমস কিন্তু তৈরি করে ফেলে অথবা অনেকেই কিন্তু গেম খেলতে খেলতে সেই গেম সম্পর্কিত অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করার ফলে সেই গেম কোম্পানিগুলিকে উন্নয়নের কাজের সাপোর্ট করে ও টাকা আয় করতে পারে।

উপরের এই সকল বিষয় শুধুমাত্র উদাহরণ অনলাইনে গেম খেলে টাকা উপার্জনের অনেক উপায় আছে। আপনারা যদি আগ্রহী হন এবং দক্ষতা থাকে তাহলে উপযুক্ত উপায় আপনি নিজে থেকেই বেছে নিতে পারবেন। তবে অবশ্যই মনে রাখবেন অনলাইনে টাকা উপার্জন করতে গেম খেলার সময় দক্ষতা এবং সময় প্রয়োজন।

কি ধরনের গেম খেলে টাকা ইনকাম করা যায়?

বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক গেম কোম্পানি রয়েছে যাদের গেমসগুলি আপনি খেলে বা উপরে দেখানোর নিয়ম অতিবাহিত করে বা তাদের শর্ত সাপেক্ষে এবং অন্যান্য  আরো অনেক মাধ্যম রয়েছে যেগুলি মাধ্যম ব্যবহার করে সেই সকল কোম্পানি থেকে আপনি খুব সহজেই গেম খেলে টাকা আয় বিকাশে আপনি উইথড্র দিতে পারবেন। তো চলুন এমন কিছু জনপ্রিয় বাংলাদেশের গেম মিং ওয়েবসাইট বা অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে আপনাদেরকে জানাই।

Freefire – বর্তমানে ছেলে-মেয়ের সকলেরই এত পরিমান জনপ্রিয় এই গেমসটিতে এই গেমসে নেশায় পড়ে অনেকে তো আবার ধ্বংস হয়ে গিয়েছে। আবার অনেকে প্রচুর পরিমাণ টাকা এই অনলাইন থেকে ফ্রি ফায়ার গেমস থেকে উইথড্র করেছে।

PUBG- এই গেমসটিও এত জনপ্রিয় যে, জুয়া হিসেবে অনেকে কিন্তু এই গেমসটি ব্যবহার করে থাকে। অবশ্যই এই গেমসটি খেলার আগে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে এবং বুঝে শুনে তারপরে খেলতে হবে।

Candy Crush- ছোট -বড়-বয়স্ক -বৃদ্ধা  যে বয়সের কথা বলেন না কেন এই গেমসটি তাদের সকলের কাছেই কিন্তু অনেক জনপ্রিয়। সকল শ্রেণীর সকল পেশাজীবী মানুষ হোক কিন্তু পরিবারে এই গেমসটি খেলে থাকে। কিন্তু আসলে অনেকেই জানে না যে এই গেমস এ কেউ চাইলে আপনি টাকা আয় করতে পারেন। তাই আপনারা চাইলে এই গেমসটি খেলেও টাকা আয় করতে পারবেন।

MPL- নতুন হিসেবে এই গেমস টি ও বর্তমানে অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। হাফিজালি এই গেমসটি খেলেও টাকা আয় করতে পারবেন।

LUDO- এই গেমসটি সম্পর্কে জানার আগে আগে বলুন যে এই গেমসটি খেলে নাই এমন কোনো মোবাইল ইউজার আছে কিনা?দেখুন বর্তমানে প্রত্যেকটি পরিবারের প্রত্যেকটি পেশাজীবী মানুষের সবচাইতে প্রিয় গেম লুডু গেম। এই লুডু গেম থেকে বিভিন্ন মাধ্যমে টাকা আয় করা যায়।

Rise Of kingdoms- এই গেমসটি কি পরিমান জনপ্রিয় আপনি যদি শুধুমাত্র google এ লেখাটুকু দিয়ে সার্চ করেন তাহলে আপনি নিজেই অবাক হয়ে যাবেন যে প্রতি সেকেন্ডের সার্চ ভলিউম কি পরিমাণ। হঠাৎ এই গেমসটি খেলেও প্রজেক্ট ভিত্তিক আপনি কিন্তু অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

Clash royal– এই গেমটিও প্রজেক্ট ভিত্তিক একটি গেম । প্রতি ৩৫ সেকেন্ডে এক লক্ষ 15 হাজার ইউজার এই গেমটি খেলে থাকে। তাই আপনি চাইলে গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে এই গেমসটি ডাউনলোড করে আপনিও কিন্তু এই গেমস খেলে বিকাশ নগদ রকেটের মাধ্যমে টাকা উইথ দিতে পারবেন।

8 Ball Pool- এই গেমটিকে আমি ব্যক্তিগতভাবে ফ্যামিলি গেম বলে থাকি। অনেকেই কিন্তু লেভেল ভিত্তিক এই গেমটি পারিবারিকভাবেও খেলে থাকে। শুধু সঠিক গাইডলাইন জানা থাকলে এই গেম থেকেও আপনি টাকা আয় করতে পারবেন।

Real Racing 3- আপনাদের মধ্যে যারা রেসিং গেম খেলতে পছন্দ করেন। তাদের জন্য রেসিং গেম এর জনপ্রিয় একটি গেমস এটি।আপনার চাইলে এই রেসিং গেমস খেলেও আপনি হাজার হাজার টাকা আয় করতে পারবেন।

বর্তমানে জনপ্রিয় যতগুলি গেম কোম্পানি, অ্যাপ্লিকেশন  বা ওয়েবসাইট রয়েছে আমি সেই সকল প্রত্যেকটি গেমসের নেম সম্পর্কে উপরে আপনাদেরকে জানিয়েছি। আশা করছি আপনারা যারা গেম খেলে টাকা আয় করতে চান?  তারা উপরের এই গেমসগুলি খেলেও আপনি টাকায় করতে পারবেন।

গেম খেলে টাকা আয় সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন উত্তর

গেম কোম্পানি সরাসরি বিকাশে টাকা দেয়?

না আপনি বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে সেই গেমগুলি থেকে আয় করে সেই টাকা বিকাশের মাধ্যমে নিতে পারবেন।

গেম খেলে কত টাকা প্রতি মাসে আয় করা সম্ভব?

গেম খেলে হাজার হাজার টাকা আয় করা যায় নির্দিষ্ট ভাবে বলা যাবে না। কারণ গেম খেলে অনেক মাধ্যমে থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।

শেষ কথা – আপনাদের কি ব্যক্তিগতভাবে আমি পরামর্শ দিব।গেম খেলে টাকা আয় করা যায় এটা সত্য তবে আপনি চাইলে গেম খেলেও কিন্তু ভিডিও তৈরি করে বিভিন্ন ধরনের মাধ্যম থেকে আপনি উপার্জন করতে পারবেন। অনুরোধ করবো গেমসে জুয়া খেলে টাকা আয় করবেন না।গেম থেকে অনেক মাধ্যমিক কিন্তু উপার্জন করা যায় টাকা।

আপনার জন্য আরো 

আপনার জন্য-

ক্রেডিট কার্ড কি? ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের নিয়ম ২০২৪

বাংলাদেশে কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড সবচেয়ে ভালো?

ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারের নিয়মাবলী

SS IT BARI– ভালোবাসার টেক ব্লগের যেকোন ধরনের তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কিত আপডেট পেতে আমাদের মেইল টি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ৫০৬ other subscribers

SANAUL BARI

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ। আমি মো:সানাউল বারী।পেশায় আমি একজন চাকুরীজীবী এবং এই ওয়েবসাইটের এডমিন। চাকুরীর পাশাপাশি গত ১৪ বছর থেকে এখন পর্যন্ত নিজের ওয়েবসাইটে লেখালেখি করছি এবং নিজের ইউটিউব এবং ফেসবুকে কনটেন্ট তৈরি করি।
বিশেষ দ্রষ্টব্য -লেখার মধ্যে যদি কোন ভুল ত্রুটি হয়ে থাকে অবশ্যই ক্ষমার চোখে দেখবেন। ধন্যবাদ।