কম্পিউটার কি? কম্পিউটারের জনক কে-কম্পিউটার কে আবিষ্কার করেন

কম্পিউটারের জনক -আধুনিক বিশ্বে কম্পিউটার বিশ্বের চালকা শক্তি হিসেবে ব্যবহৃত হয়। কম্পিউটার বিহীন আধুনিক বিশ্ব অকল্পনীয়। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির সবচেয়ে জরুরি হচ্ছে কম্পিউটার। কম্পিউটার মানুষের চিন্তা চেতনা চলাফেরা কে পরিবর্তিত করে আধুনিকতার ছোঁয়া এনে দিয়েছে।

কম্পিউটার এমন একটি ইলেকট্রনিক যন্ত্র যা প্রোগ্রাম ভেদে নানা রকম নিদর্শন অনুযায়ী বাইনারি ফরমের তথ্য উপাত্ত ধারণ ও হিসাবের কাজে ব্যবহার হয়ে থাকে। কম্পিউটার ব্যবহারকারীর নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করে। এটি ইনপুট ডিভাইসের সাহায্যে ডাটা গ্রহণ করে এবং প্রসেসিং করে আউটপুট ডিভাইস গুলোর সাহায্যে তথ্য আকারে সেই ডেটা সরবরাহ করে।কম্পিউটারের জনক কে

বর্তমানে প্রতিটি মানুষের ঘরে একটি না একটি কম্পিউটার পাওয়া যাবে। মানুষের দৈনন্দিন কাজে কম্পিউটারের ব্যবহার ব্যাপক। বন্ধুরা আজকে আমরা জানাবো কম্পিউটার কি এবং কম্পিউটারের আবিষ্কারক কে এছাড়াও এই সম্পর্কে আরো বিস্তারিত। তাই পুরো আর্টিকেলটির বিষয়বস্তু সম্পর্কে জানতে অবশ্যই শেষ পর্যন্ত সাথে থাকবেন।

কম্পিউটার কি

Computer শব্দটি এসেছে ল্যাটিন শব্দ computer থেকে। এর ইংরেজি অর্থ to computer যার বাংলা হল গণনার জন্য। কম্পিউটার এমন একটি ডিজিটাল ইলেকট্রনিক ডিভাইস যার মাধ্যমে বিভিন্ন এরিথমেটিক এবং লজিক্যাল অপারেশন স্বয়ংসম্পূর্ণ ভাবে সম্পূর্ণ করার উদ্দেশ্যে প্রোগ্রাম করা যায়। অর্থাৎ কম্পিউটার হলো এমন একটি যন্ত্র যা সাধারন বাইনারি হিসাব নিকাশের মাধ্যমে বিলিয়ন ট্রিলিয়ন হিসাব নিমিষেই সমাধান করে দিতে পারে।

কম্পিউটারের ইতিহাস বাংলাতে( A TO Z) বিস্থারিত জানুন

বর্তমানে কম্পিউটারের কাজ ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। যেকোনো কঠিন কাজ সহজে এবং কম সময়ে করতে কম্পিউটারের সাহায্য নেওয়া হয়। মানুষের দৈনন্দিন জীবন এখন কম্পিউটার নির্ভর। পুরো বিশ্বের খবরা-খবর ঘরের মধ্য বসে পেতে চাইলে কম্পিউটার একটি অন্যতম মাধ্যম।

কম্পিউটারের বিভিন্ন অংশ

কম্পিউটারের যাবতীয় অংশকে মূলত দুটি ভাগে ভাগ করা হয়। যেমন:

১) সফটওয়্যার।

২) হার্ড ওয়্যার।

কম্পিউটারের সফটওয়্যার

সফটওয়্যার হল কম্পিউটারের প্রধানকৃত নির্দেশাবলির একটি সেট যেখানে হার্ডওয়ারকে কি করতে হবে এবং কিভাবে করতে হবে তার জানান দেয়। যেমন ওয়েব ব্রাউজার, গেম, এবং ওয়ার্ড প্রসেস ইত্যাদি।

কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার

হার্ড ওয়ার মূলত কম্পিউটারের শারীরিক যন্ত্রাংশের যে কোন অংশকে বোঝায়। অর্থাৎ মাউস কিবোর্ড প্রিন্টার স্ক্যানার স্পিকার ইত্যাদি হার্ডওয়ারের অংশ। সাধারণত কম্পিউটারের সকল অভ্যন্তরীণ অংশের সঙ্গে হার্ডওয়ার যুক্ত।

কম্পিউটারের আবিষ্কারক কে

আধুনিক কম্পিউটারের জনক চার্লস ব্যাবেজকে। সর্বপ্রথম তিনি যান্ত্রিক কম্পিউটার ডিজাইন করেন এবং punch card এর সাহায্যে তথ্য প্রবেশ করানো হয়। এটিকে analytical engine বলা হয়। এছাড়াও চার্লস ব্যাবেজকে এ এ এল ইউ, বেসিক ফ্লো কন্ট্রোল এবং ইন্টিগ্রেটেড মেমোরির ধারণা এবং ইঞ্জিনে বাস্তবায়িত করেন। তার এই মডেলের উপর ভিত্তি করে আজকের কম্পিউটার ডিজাইন করা হয়েছে। ফলে চার্জ ব্যাবেজকে কম্পিউটারের জনক বলা হয়।

কম্পিউটার ব্যবহারে সুবিধা

কম্পিউটার ব্যবহারের অনেক সুবিধা রয়েছে।কম্পিউটার ব্যবহারে মানুষের কাজের সময় অপচয় অনেকটাই রোধ হয়েছে। কম্পিউটার খুব সহজে ব্যবহারকারীর ইনপুট গ্রহণ করে প্রসেসিং করে তা আউটপুট আকারে কম সময়ের মধ্যে প্রদান করে। কম্পিউটার ব্যবহারের সুবিধা সমূহ নিম্নে তুলে ধরা হলো:

১)কম্পিউটারের মাল্টিটাস্কিং অর্থাৎ কম্পিউটার একজন ব্যক্তির কাজ সহজে কয়েক সেকেন্ডের মধ্য করে দিতে পারে যা মানুষের করতে অনেক সময় লেগে যায়।

২) কম্পিউটার অতি দ্রুত কাজ করে। মাত্র এক সেকেন্ডে লক্ষ লক্ষ নির্দেশ প্রক্রিয়া করতে পারে কম্পিউটার।

৩) কম্পিউটার নির্ভুলভাবে কাজ করে। কম্পিউটারে এসব ফলাফল প্রদান করা হয় তাতে কোন ত্রুটি পাওয়া যাবে না।

৪) কম্পিউটার ক্লান্তি মুক্তভাবে অনবরত কাজ করতে পারে।

৫) কম্পিউটার একটি বহুমুখী গণনাকারী যন্ত্র। এর মধ্য টাইপিং, ডকুমেন্ট, রিপোর্ট, গ্রাফিক্স, ভিডিও, ইমেইল ইত্যাদি প্রয়োজনীয় সব কাজ করা যায়।

৬) কম্পিউটারে মহান শক্তি হলো অটোমেশন। এটি কোন রকম মানুষের হস্তক্ষেপ ছাড়াই অনেক কাজ সম্পন্ন করতে পারে।

৭) কম্পিউটার ডিভাইস অন্যান্য ইলেকট্রনিক ডিভাইস এর সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে নেটওয়ার্কের মাধ্যমে। একে অপরের সাথে ডেটা বিনিময় করতে পারে।

৮) কম্পিউটারে অনেক বড় মেমোরি রয়েছে। কম্পিউটার স্টোরেজ ক্ষমতা অনেক যার কারণে উৎপাদিত ফলাফল নির্দেশনা বলে তথ্য অন্যান্য সমস্ত ধরনের ডেটা কম্পিউটার মেমোরিতে বিভিন্ন আকারে সংরক্ষণ করতে পারে।

৯) কম্পিউটার একটি নির্ভরযোগ্য মেশিন যা দীর্ঘ সময় ব্যবহার করা যায়।

১০) কম্পিউটারের কাজ করতে কোন রকম খাতা কলম প্রয়োজন হয় না তথ্য সংগ্রহের জন্য কোন কাগজে নথি তৈরি করতে হয় না। কম্পিউটার মেমরিতেই সব সেটআপ করে রাখা যায়।

কম্পিউটার ভাইরাস কি

ব্যবহারকারী অনুমতি বা নির্দেশনার সারা কম্পিউটার নিজে নিজেই বিভিন্ন প্রোগ্রাম কপি করে বা নিজের প্রতিরোধ সৃষ্টি করতে পারে যাকে বলা হয় কম্পিউটার ভাইরাস। কম্পিউটার ভাইরাস হলো একটি ধ্বংসাত্মক প্রোগ্রাম এবং হ্যাকিং।

কম্পিউটার ডিভাইসের ভাইরাস গুলো সহজেই ইমেইলের  সংযুক্তির মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন ফাংশনে। অনেক সময় কম্পিউটার ডিভাইসে ইউএসবি অথবা যেকোনো সংক্রামিত ওয়েবসাইট থেকে কম্পিউটার এক্সেস করা যেতে পারে। যখন এটি কম্পিউটারে পৌঁছায় তখন কম্পিউটারকে ভাইরাসে আক্রমিত করে।

কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এর কাজ কি

কম্পিউটার প্রকৌশলীর সাধারণ কার্যাবলীর মধ্য রয়েছে সাধারণ বিশেষ কম্পিউটারের জন্য সফটওয়্যার তৈরি করা, এমবেডেড মাইক্রো কন্ট্রোলার এর জন্য ফার্মওয়্যার লিখা, বিভিন্ন বি এল এস আই চিপ ডিজাইন, বিভিন্ন অ্যানালগ সেন্সর ডিজাইন, বিভিন্ন সার্কিট বোর্ড ডিজাইন এবং অপারেটিং সিস্টেম ডিজাইন প্রভৃতি।

গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন

কম্পিউটারকে কোনভাবেই বেঁধে রাখা যায় না।কম্পিউটার ব্যবহারকারীর নির্দেশনা অনুযায়ী অনবরত কাজ করে যায় যা আমাদের দৈনন্দিন জীবনকে আরো সহজ করে তুলেছে এবং সময় অপচয় রোধ করেছে। এটি নির্ভুলভাবে কাজ করে বিধায় সকলে কম্পিউটারের কাজের উপর ভরসা করে। কম্পিউটার ব্যবহারকার ীর নির্দেশ গ্রহণ করে ইনপুট ডিভাইসের সাহায্যে এবং সেগুলোকে প্রসেসিং করে পরে আউটপুট ডিভাইসগুলির সাহায্যে তথ্য আকারে সেই ডাটা ব্যবহারকারীর কাছে সরবরাহ করে।

সচরাচর জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন

কম্পিউটারের full form কি?

কম্পিউটারের ফুল ফর্ম যদিও প্রযুক্তিগতভাবে নেই। তবে কম্পিউটারের একটি কাল্পনিক ফুল ফর্ম রয়েছে। যেমন:

C-Commonly

O-Operated

M-Machine

P-Particularly

U-Used for

T-Technical and

E-Educational

R-Research

কম্পিউটারের ফাংশন কয়টি?

কম্পিউটারের প্রধানত তিনটি ফাংশন রয়েছে। প্রথম ডেটা নেওয়া যাকে আমরা ইনপুট বলে থাকি। দ্বিতীয় হল সেই ডেটা প্রসেসিং করা এবং তৃতীয় হলো সেই প্রসেসিং করার ডেটা দেখানো যাকে আউটপুট বলা হয়।

কম্পিউটার কি?

কম্পিউটার হলো এমন একটি ইলেকট্রনিক যন্ত্র যেখানে গণনা সংক্রান্ত কাজকর্ম খুব দ্রুত সম্পন্ন করা সম্ভব। এছাড়াও হিসাব নিকাশ সংক্রান্ত কাজকর্ম সম্পন্ন করা হয়।

আমাদের শেষ কথা

কম্পিউটার কি? কম্পিউটারের জনক কে? এই সম্পর্কে ইতিমধ্যেই আজকের আর্টিকেল থেকে জানতে পেরেছেন। আপনাদের কারো কোন জিজ্ঞাসা থাকলে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না। নিয়মিত আরো বিভিন্ন বিষয়ে আর্টিকেল গুলো পেতে হলে অবশ্যই  আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করবেন। আজকের মতো বিদায় নিচ্ছি। আল্লাহ হাফেজ

পোস্ট ট্যাগ

আধুনিক কম্পিউটারের জনক কে?তিনি কোন দেশের নাগরিক?,ইন্টারনেট ও কম্পিউটারের জনক কে,পার্সোনাল কম্পিউটারের জনক কে,কম্পিউটার কত সালে আবিষ্কার হয়,কম্পিউটার কে কবে আবিষ্কার করেন,কম্পিউটার কাকে বলে কম্পিউটারের জনক কে,কম্পিউটারের জনক কে কেন তাকে জনক বলা হয়,জন ভন নিউম্যান কিসের জনক।

আপনার জন্য আরো 

আরও পড়ুন-

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস

বঙ্গবন্ধুর জীবনী ইতিহাস- বঙ্গবন্ধু কে ছিলেন? কোথাই থেকে এসেছেন? কেমন ছিলেন?

ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ধারণা থাকা প্রতিটি বাঙ্গালির জন্য কর্তব্য

ইসলামের ইতিহাস সম্পর্কে আপনার জানা এবং অজানা সকল তথ্য যেনে নিন

মিয়া খলিফা সম্পর্কে  অজানা সকল তথ্য যেনে নিন

কেন অর্থ বুঝে নামাজ পড়া উচিৎ: পড়ুন

আত্মীয়তার সম্পর্ক কেমন হওয়া উচিৎ – জানুন

সালাম দিলে কি আপনি লাভবান হবেন? জানুন

বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা

SS IT BARI– ভালোবাসার টেক ব্লগের যেকোন ধরনের তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কিত আপডেট পেতে আমাদের মেইল টি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ৪৯২ other subscribers

SS It BARI JOB NEWS

SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ টিম