ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খোলার নিয়ম – ৪০ টাকা বোনাস সহ দুর্দান্ত সব অফার

ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খুললেই পাওয়া যাবে 40 টাকা বোনাস সহ দুর্দান্ত সব অফার।আজকে জানতে পারবেন ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং কি?ওকে ওয়ালেট একাউন্ট এর ফিচারসমূহ এবং ওকে একাউন্ট সহজে ঘরে বসে খোলার নিয়ম সহ ওকে ওয়ালেটের সুবিধা ও অসুবিধা সুমহ।বিস্তারিত।

ওকে ওয়ালেট কি?

“ওকে ওয়ালেট” হল ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডের একটি মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস অ্যাপ্লিকেশন ।যা মানুষের কাছে দ্রুত নগদ টাকা পাঠাতে, মোবাইল টক টাইম রিচার্জ করতে, ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করতে, পছন্দের দোকানে অর্থ প্রদানের জন্য একটি সহজ সেবা, এই মোবাইল ব্যাংকিং সহজেই ব্যবহারযোগ্য এবং অত্যন্ত সুরক্ষিত মোবাইল আর্থিক অ্যাপ। এবং QR কোড স্ক্যান করে অথবা ওকে মার্চেন্ট পেমেন্ট ব্যবহার করেও টাকা উঠাতে পারবে।

ওয়ান ব্যাংক 20 বছরেরও বেশি সময় ধরে সুনামের সাথে গ্রাহক সেবায় অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। ওয়ান ব্যাংক সবসময় নিরবচ্ছিন্ন গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করতে আধুনিক প্রযুক্তি ভিত্তিক ব্যাংকিং সমাধানে বিশ্বাসী। এরই ধারাবাহিকতায়, ওয়ান ব্যাংক তার গ্রাহকদের জন্য ওকে ওয়ালেট, একটি মোবাইল আর্থিক পরিষেবা চালু করেছে। একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি তার মোবাইল ফোনে ওকে ওয়ালেট ব্যাংকিং পরিষেবাগুলি অ্যাক্সেস করতে পারবে তার ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট থাকুক বা না থাকুক৷ ওকে ওয়ালেট যেমন বিকাশ, রকেট, নগদ মোবাইল ব্যাংকিংএর মতোই।

?ঘরে বসে পার্সেল ডেলিভারি করুন এবং ডেলিভারি নিন

ওকে ওয়ালেট অনলাইন-অফলাইন কেনাকাটা, পানি ও বিদ্যুৎ সহ বিভিন্ন পরিষেবার বিলিং, দেশের যেকোনো প্রান্তে নিরাপদ রেমিট্যান্স, মোবাইল রিচার্জ, ক্রেডিট কার্ড বিল পরিশোধ, ডিপিএস জমা সহ বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য অফার করে।

ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খোলার নিয়ম

ওকে ওয়ালেট একাউন্ট এর কিছু সুবিধা

বিকাশ, নগদ বা রকেটের মতো ওকে ওয়ালেট ব্যবহার করে মোবাইল ব্যাংকিং পরিষেবা উপভোগ করা যায়। আসুন জেনে নেই ওকে ওয়ালেটের সুবিধা সম্পর্কে।

Sopping payments: ওকে ওয়ালেট ব্যবহার করে বিভিন্ন শপিং আউটলেটে টাকা প্রদান করা যেতে পারে। অনেক শপিং আউটলেট ওকে ওয়ালেট ব্যবহার করে পেমেন্টের জন্য ডিসকাউন্ট এবং বোনাস অফার করছে ।তাই আপনিয়ও অ্যাকাউন্ট করুন এবং শপিং করুন।

Bill Pay service: আপনি অনন্য সব মোবাইল ব্যাংকিং সেবা গুলোর মত ওকে ওয়ালেট ব্যবহার করে গ্যাস, পানি, ইন্টারনেট ইত্যাদি ইউটিলিটি বিল পরিশোধ করতে পারবেন।এছাড়াও বিল পরিশোধে অনেক অফার ও দিয়ে থাকেন ওকে ওয়ালেট।

Add money Service: অ্যাড মানি বা ব্যালেন্স ওকে ওয়ালেটে ক্যাশ ইন, ওয়ান ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট, ভিসা/মাস্টারকার্ড, অন্য ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট, বা মানি ট্রান্সফারের মাধ্যমে  ওকে ওয়ালেটে ক্যাশ ইন করা যেতে পারে।

Send Money Service: ওকে ওয়ালেট ব্যবহার করে অন্য যেকোনো ওকে ওয়ালেট ব্যবহারকারীকে সহজে টাকা পাঠানো যাবে।

Cash out Service: ওকে ওয়ালেট ব্যালেন্সে জমা করা টাকা যেকোনো এজেন্ট, এটিএম বা ওয়ান ব্যাংকিং পরিষেবা থেকে ক্যাশ আউট করা যাবে।

Mobile Recharge: ওকে ওয়ালেট এর ব্যালেন্স ব্যবহার করে  দেশের সকল অপারেটরে(Gp,Robi,airtel,teletalk,banglalink  মোবাইল রিচার্জ করা যাবে ।এছাড়াও অনেক রকমের সেবা ওকে ওয়ালেট ওয়ান ব্যাংকের রয়েছে তাই আপনি তাদের এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবাটি নির্ভয়ে নিষ্যন্দে উপভোগ করতে পারেন।

ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নতুন নিয়ম ২০২২।

ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিংয়ের অসুবিধা

প্রতিটি জিনিসের যেমন বরাবর সুবিধা থাকে তেমন কমবেশি অসুবিধা রয়েছে। তেমনই ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিংয়ে আমার কাছে পার্সোনালি যে অসুবিধা টি মনে হয়েছে, সেটি হচ্ছে পর্যাপ্ত মার্চেন্ট না থাকা বা পর্যাপ্ত বিভিন্ন জায়গায় ATM Both, আউটলেট না থাকার ফলে হয়তোবা আপনার টাকা পাঠানো এবং ক্যাশআউট করার সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। এছাড়া অন্য সবকিছুই অন্যান্য রকেট, বিকাশ, নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর মত আরো সার্ভিস এবং সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট খোলার নিয়ম

ওকে ওয়ালেট একাউন্ট খুলতে কি লাগে?

18 বছর বা তার বেশি বয়সী এবং ন্যাশনাল আইডি কার্ড থাকলে যে কেউ ওকে ওয়ালেট অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন। ঘরে বসে বা ওকে ওয়ালেটের কাগজ-ভিত্তিক কেওয়াইসি ফর্ম ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট খোলা যেতে পারে। আপনাকে ঘরে বসে OK Wallet অ্যাপের মাধ্যমে স্ব-নিবন্ধন করে ওকে ওয়ালেট অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। ব্যক্তিগত জাতীয় পরিচয়পত্র অর্থাৎ NID। একটি অ্যাকাউন্ট খোলার সময় আপনার পরিচয় যাচাইকরণের অংশ হিসাবে আপনাকে একটি সেলফি তুলতে হবে।

আবার কাগজ-ভিত্তিক KYC ফর্ম পূরণ করে ওকে ওয়ালেট অ্যাকাউন্ট খোলা যেতে পারে। সেক্ষেত্রে কেওয়াইসি ফর্ম পূরণের পাশাপাশি এক কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের আসল ও ফটোকপি, ড্রাইভিং লাইসেন্স এবং পাসপোর্টের যেকোনো একটি। উল্লিখিত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ ওয়ান ব্যাংক বা ওকে এজেন্ট থেকে ওকে ওয়ালেট অ্যাকাউন্ট খোলা যেতে পারে।

মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে ওকে ওয়ালেট একাউন্ট খোলার নিয়ম

১.প্রথমে আপনি আমাদের দেওয়া লিঙ্ক থেকে গুগল প্লে স্টোর থেকে খুব সহজেই ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাপস টি ডাউনলোড করে নিন। IOS App Store: click here

২.এর পরে আপনি ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাপস টি ইন্সটল করে ওপেন করুন।

৩.অ্যাপসটি ওপেন করার পর আপনার সামনে লগইন (Login)এবং ক্রিয়েট একাউন্ট(Create Account) বলে দুটি অপশন আসবে নিচের ছবি দেওয়া হল ।s 02

৪.আপনি নতুন একাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে ক্রিয়েট (Create account) অপশনটি বেছে নিন।

 

 

৫.পরে আপনার সামনে ওকে ওয়ালেট ওয়ান ব্যাংকিং সেবার ট্রামস এন্ড কন্ডিশন অপশন চলে আসবে। সেখান থেকে  কন্ডিশন আপনার পড়ার প্রয়োজন হলে পড়ুন অথবা কন্ডিশন অপশনটিতে ক্লিক করুন। নিচে ছবি দেওয়া হল।ট্রামস এন্ড কন্ডিশন

৬.এরপরে আপনার সামনে মোবাইল নাম্বার দেওয়ার একটি অপশন আসবে।( Enter your mobile No)  আপনি যে মোবাইল নাম্বারের এর অধিনে  ওকে ব্যাংকিং ওয়ালেট খুলতে চাচ্ছেন সেই মোবাইল নাম্বারটি দিন।Enter your mobile No

৭.এরপরে নেক্সট বাটনে আপনি ক্লিক করলে আপনার সামনেও মোবাইল অপারেটর সিলেক্ট করার অপশন টি চলে আসবে। আপনি আপনার যে মোবাইল নাম্বারটি যে অপারেটরের সেই অপারেটরটি বাছাই করুন এবং নেক্সট বাটনে ক্লিক করুন।

মোবাইল অপারেটর সিলেক্ট

৮.নেক্সট অপশনে ক্লিক করার সঙ্গে সঙ্গে আপনার রেজিস্টার কৃত ওই মোবাইল নাম্বারে একটা ওটিপি কোড মেসেজ আকারে চলে যাবে।ওটিপি কোড প্রদান করে নেক্সট বাটনে ক্লিক করলেই আপনার সামনে আপনার এনআইডি কার্ড এই জাতীয় ইনফরমেশন দেওয়ার অপশন চলে আসবে।

ওটিপি কোড

৯.এরপরে ওকে একাউন্ট খোলার জন্য ওয়ান ব্যাংকের দেওয়া কিছু নির্দেশনা অনুযায়ী ডকুমেন্টস প্রদান করতে হবে আমি নিচে সুন্দরভাবে বর্ণনা করলাম কি ডকুমেন্টস কিভাবে প্রদান করবেন।

ডকুমেন্টস

  • Step-01 capture photo on your in ID card: এখানে আপনার এনআইডি কার্ড সাবমিট করতে হবে।
  • Step-02 capture a photo your face: আপনি এখন যে অবস্থায় আছেন তা একটি সেলফি আকারের ছবি আপনার প্রদান করতে হবে।
  • Step-3 confirm personal information and address: আপনার ব্যক্তিগত তথ্য এবং আপনার ঠিকানা প্রদান করতে হবে।
  • Step-04 Enter nominee information and photo আপনার অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনার একজন নমিনি এবং তার ফটো প্রয়োজন হবে।
  • Step-5 Give a digital signature on a screen.আপনাকে একটি ডিজিটাল সিগনেচার আপনার মোবাইল ফোনের স্ক্রিনের মাধ্যমে প্রদান করতে হবে।

ডকুমেন্টস গুলো উপরের দেওয়া এই কাগজপত্র এবং রেডি করা হলে আপনি নেক্সট বাটনে ক্লিক করুন।

১০.নেক্সট বাটনে ক্লিক করার পর আপনার সামনে একটি নিচের দেওয়া উইন্ডোর মত ক্যামেরা আসবে সেখানে আপনি আপনার এনআইডি কার্ডের ফন্টের ছবি তুলুন এবং সাবমিট করুন।WhatsApp Image 2022 01 08 at 2.53.39 PM 17

১১.এরপরে আপনার এনআইডি কার্ডের উল্টোপিঠ এর ছবি তুলুন এবং পুনরায় সাবমিট করুন। সাবমিট করা হয়ে গেলে আপনার সামনে একটি আপনার এনআইডি কার্ড নাম্বার সহ ইনফর্মেশন দেখতে পারবেন আপনি চাইলে সেখান থেকে আপনার এনআইডি নাম্বার এবং আপনার নাম পরীক্ষা করে নিতে পারেন।

এনআইডি

১২.এরপরে আপনার সামনে আপনার ফেস এর ছবি উঠানোর জন্য ক্যামেরার একটি উইন্ডো আসবে। সেখানে প্রথমে প্রস্তুতি গ্রহণ করুন এবং পরবর্তীতে তাদের দেওয়া নির্দেশনা অনুযায়ী সেলফি উঠান।

তবে আপনি সেলফি উঠানোর সময় অবশ্যই আপনি যদি সানগ্লাস বা চশমা ব্যবহার করে থাকেন সেটি খুলে রাখবেন তাহলে আপনার ছবিটি দ্রুত সাবমিট লোড নিবে।

ফেস এর ছবি

১৩.সম্পূর্ণভাবে আপনার সেলফি টি নেওয়া হয়ে গেলে আপনার সামনে পার্সোনাল ইনফরমেশন বলে একটি অপশন আসবে সেখান থেকে আপনি আপনার এনআইডি কার্ড দেওয়া তথ্যগুলো চেক করুন এবং আপনার জেন্ডার সিলেক্ট করে নেক্সট বাটনে ক্লিক করুন।

Gander

১৪.এখন আপনার সম্পূর্ণভাবে এনআইডি কার্ড থেকে তথ্য নিয়ে আপনার সামনে আপনার এড্রেস দেখাবে সেখানে আপনার জেলা, আপনার গ্রাম সিলেক্ট করুন।

এড্রেস

১৫.এরপরে নেক্সট বাটনে ক্লিক করলে আপনার সামনে অ্যাডিশনাল ইনফর্মেশন বলে একটি বক্স আসবে। আপনি চাইলে সেখান থেকে আপনার কিছু প্রয়োজনীয় মেইল এড্রেস আপনার স্ত্রীর নাম আপনার প্রফেশন সহকারে কিছু অ্যাডিশন ইনফরমেশন দিয়ে রাখতে পারেন।অ্যাডিশনাল ইনফর্মেশন

১৬.এরপরে আপনার সামনে নমুনি ইনফরমেশনের বক্সটি চলে আসবে। সেখান থেকে আপনি আপনার নমিনির নাম প্রদান করুন আপনি চাইলে আপনার নমিনির ভোটার আইডি কার্ড অথবা তার ছবি সেলফি আকারে দিয়ে আপলোড দিতে পারেন। তবে নমিনির নাম টা অবশ্যই দিতে হবে বাকি সব না দিলেও চলবে এরপর নেক্সট বাটনে ক্লিক করুন।নমুনি ইনফরমেশনের

১৭.সর্ব শেষ ধাপে আপনার সামনে ডিজিটাল সিগনেচার স্ক্রিনটি চলে আসবে আপনি সেখান থেকে চাইলে আপনার সিগনেচার টি ডিজিটাল আকারে দিয়ে দিতে পারেন অথবা না দিলেও স্কিপ করে নেক্সট বাটনে ক্লিক করলে কোন অসুবিধা নাই।

সিগনেচার স্ক্রিনটি

১৮.এখন আপনার সামনে অ্যাপ্লিকেশন রিভিউ বলে একটি অপশন আসবে এতক্ষণ পর্যন্ত আমরা যেসব কাজগুলো করেছি তার একটি ফাইনাল সামারি আপনার সামনে আসবে। সেখানে আপনি আপনার প্রোফাইলের সবকিছু আবারও নতুন করে আপনি চেক দিয়ে নিতে পারবেন এবং কোন পরিবর্তন হলে নিচে দেওয়া চেঞ্জ অপশন থেকে তা পরিবর্তন করে নিতে পারবেন।

final review

১৯.সম্পূর্ণভাবে আপনার চেক দেওয়া হয়ে গেলে এবং সবকিছু ঠিক থাকলে আপনি সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন এবং আপনার সাবমিট বাটনে ক্লিক করার সঙ্গে সঙ্গে আপনার রেজিস্টার কৃত মোবাইল ফোনে একটি এসএমএস(পিন) চলে যাবে এবং Congratulations বলে একটা welcome দিবে।

Congratulations

২০.এরপরে নেক্সট বাটনে ক্লিক করলে আপনার পিডিএফ অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম টি জেনারেট হবে এবং সেখান থেকে আপনি ডাউনলোড দিয়ে রাখতে পারেন আপনার পরবর্তী কোন প্রয়োজনে।

ওকে ওয়ালেট আপনার পিন পরিবর্তন করার নিয়ম

একাউন্টের আবেদনটি সম্পূর্ণভাবে করা হয়ে গেলে আপনি পুনরায় আপনার মোবাইল অ্যাপসে লগইন করুন এবং আপনার লগইন অপশন এ আপনার ফোন নাম্বার এবং ওকে ওয়ালেট থেকে যে পিন নাম্বার প্রদান করেছে সেই পিনের নাম্বার দেন।

তাহলে  আপনার আগের পিন নাম্বার এবং নতুন পিন নাম্বার দিতে বলবে সেখানে আপনি আপনার নতুন পিন নাম্বার বসিয়ে সাবমিট করলেই আপনার নতুন পিন পরিবর্তন হয়ে যাবে।

ওকে ওয়ালেট এর ইউএসএসডি(USSD) কোড

যাদের স্মার্টফোন নেই, তারা ওকে ওয়ালেটের ইউএসএসডি মেনুর সাহায্যে ওকে ওয়ালেটের সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। ওকে ওয়ালেট অ্যাকাউন্টের জন্য USSD কোড হল *269# যা অ্যাকাউন্ট খোলা ছাড়া ওকে ওয়ালেটের প্রায় সমস্ত বৈশিষ্ট্য অ্যাক্সেস করতে ব্যবহার করা যেতে পারে।

এক নজরে ওকে ওয়ালেট এর ফিচারসমূহ

অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং যেমন বিকাশ নগদ রকেট এদের বিচারের সঙ্গে ওয়ান ব্যাংকের ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং এর ফিচার অনেকটাই মিল রয়েছে আপনি যেসব জিনিস বা কাজ এখানে করতে পারবেন।

ওকে ওয়ালেট এর মোবাইল অ্যাপসে যে ফিচারটি সর্বপ্রথম রয়েছে তা হচ্ছে পে( Pay) আপনি কিউআর (QR)কোডের মাধ্যমে এই অপশন দিয়ে আপনার পেমেন্ট সম্পন্ন করতে পারবেন।এছাড়াও রয়েছে ক্যাশ আউট ,সেন্ড মানি, অ্যাড মানি .সহকারে অনেক ধরনের সুযোগ-সুবিধা।

ওকে ওয়ালেট ফি চার্জসমূহ

আসুন ওকে ওয়ালেটের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য ব্যবহার করার জন্য ফি এবং চার্জগুলি সংক্ষিপ্তভাবে দেখে নেওয়া যাক। উল্লেখ্য, ওকে অ্যাকাউন্টের বিভিন্ন ফিচার ব্যবহারের জন্য USSD কোড *269# এবং ওকে ওয়ালেট অ্যাপ ব্যবহারের জন্য ফি পরিবর্তিত হয়।

ওকে ওয়ালেট অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য কোনো ফি নেই হয়না। ওকে অ্যাকাউন্ট বা ওকে এজেন্ট থেকে ক্যাশ আউটের ক্ষেত্রে কোনো চার্জ কাটা হয় না।কোনো অতিরিক্ত ফি ছাড়াই ওকে ওয়ালেটে যেকোনো ব্যাংকিং থেকে অ্যাড মানি করা যাবে। যাইহোক, ক্রেডিট কার্ড এবং ডেবিট কার্ড চার্জ 0.5% থেকে 1% কাটা হবে। কোনো অতিরিক্ত চার্জ ছাড়াই ওয়ান বাংকের ডেবিট কার্ড থেকে টাকা যোগ( অ্যাড মানি) করা যাবে।

ওকে ওয়ালেট এর ক্যাশ আউট চার্জ

ইউএসএসডি (USSD)কোড ব্যবহার করে ক্যাশ আউটের ক্ষেত্রে ১.৮% এবং অ্যাপ থেকে ক্যাশ আউট হলে ওকে ওয়ালেটের ক্ষেত্রে ১.৭% চার্জ প্রযোজ্য হবে। উল্লেখ্য যে ন্যূনতম ক্যাশ আউট চার্জ 10 টাকা হতে পারে।

ওকে ওয়ালেট এটিএম থেকে ক্যাশ আউট চার্জ

ওয়ান ব্যাঙ্কের শাখা বা ওয়ান ব্যাঙ্ক এটিএম থেকে ক্যাশ আউটের ক্ষেত্রে 1% ক্যাশ আউট চার্জ কেটে নেওয়া হবে। এক্ষেত্রে ন্যূনতম ক্যাশ আউট চার্জ 5 টাকা।

আপনি যদি USSD কোড ব্যবহার করে- এক ওকে ওয়ালেট থেকে অন্য ওকে ওয়ালেটে টাকা পাঠান, তাহলে 5 টাকা ফি প্রযোজ্য হবে। তবে, আপনি যদি ওকে ওয়ালেট অ্যাপ ব্যবহার করে টাকা পাঠান, তাহলে আপনি বিনামূল্যে টাকা পাঠাতে পারবেন। মোবাইল রিচার্জ বা মার্চেন্ট পেমেন্ট ওকে ওয়ালেট ব্যালেন্স ব্যবহার করে কোনো অতিরিক্ত ফি ছাড়াই করা যাবে।

গ্যাস, পানি, ইন্টারনেট ইত্যাদি ব্যবহার করে ওকে ওয়ালেট; অর্থাৎ ইউটিলিটি বিল পেমেন্টের ক্ষেত্রে 1% ফি প্রযোজ্য হবে। এই ফি সর্বনিম্ন 5 টাকা এবং সর্বোচ্চ 25 টাকা হতে পারে।

ওকে ওয়ালেট হেল্পলাইন নাম্বার

এছাড়াও আপনি যদি কোনো ওকে ওয়ালেট সম্পর্কিত তথ্য জানার প্রয়োজন পড়ে থাকে তাহলে আপনি 24 ঘন্টা সপ্তাহে ৭ দিন কল করুন এই নাম্বারে- ১৬২৬৯

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ-অনেকে হয়তো বা ভাবছেন পোষ্টের ক্যাপশনে যেহেতু 40 টাকা বোনাস এর কথা বলা হয়েছে। কিন্তু পুরো পোস্ট জুড়ে আপনারা এখনও এই বোনাসের বিষয়ে আমার কোন লিখা লিখি দেখতে পান নাই।

?? গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন ??

তাদের উদ্দেশ্যে বলবো আপনারা কখনোই 40 টাকা বোনাস এর আশায় এই ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট করবেন না। কারণ ওকে ওয়ালেট একাউন্ট একটি সম্পূর্ণ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবস্থা। তাই অবশ্যই এটি অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবার  মতো করেই ব্যবহার করবেন। আর যদি আপনি এই ৪০ টাকা বোনাস একাউন্টে না পেয়ে থাকেন।

তাহলে আমাদের কমেন্টস করে জানান অথবা আপনি আমাদের এই অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত কোন বিষয় বুঝতে না পারলে আপনি কমেন্ট করে আমাদেরকে জানিয়ে দিতে পারেন।আমাদের ভালবাসার টেক ব্লগ টিম খুব দ্রুত আপনাকে পরামর্শ অথবা সমাধান দিতে সহায় হবে ইনশাল্লাহ।

?বিকাশ থেকে জামানত ছাড়া লোন নেওয়ার উপায়?

?বিকাশ থেকে 250 টাকায় ইনস্ট্যান্ট বোনাস

?বিকাশ থেকে 250 টাকায় ইনস্ট্যান্ট বোনাস

?বিকাশ অ্যাপ এ আসলেই 150 টাকা পর্যন্ত বোনাস।

?বিকাশ একাউন্ট কার আইডি দিয়ে খোলা

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ২৬৩ other subscribers

pp

তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক লেখালিখি করি। এর আগে বিভিন্ন পোর্টালের সাথে যুক্ত থাকলেও, SS IT BARI-আমার হাতেখড়ি। তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিশ্লেষণ বাংলায় জানতে ভিজিট করুন http://ssitbari.com

Leave a Reply

Your email address will not be published.