ইসলামে মেয়েদের রোজা সংক্রান্ত মাসয়ালা সম্পর্কে জানুন-ইসলামিক টিপস

ইসলামে মেয়েদের রোজা সংক্রান্তমাসে মহিলাদের পিরিয়ডের রোজা না রাখলে অথবা রোজা রাখার পর পিরিয়ড শুরু হলে তার জন্য পানাহার করা বৈধ তবে অন্য লোকদের সামনে পান আহার করা উচিত নয়। দিনের বেলা যদি ঋতু বন্ধ হয়ে স্বাভাবিক হয়ে উঠে তাহলে দিনের বাকি অংশে রোজাদারের মতো পানাহার ও যৌনাচার বর্জন করা ওয়াজিব। (আহসানুল ফতোয়া ৪/৪২০)

ইসলামে মেয়েদের রোজা সংক্রান্ত মাসয়ালা

এই প্রসঙ্গে হাদিসে আছে উম্মুল মুমিনীন হযরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু থেকে বর্ণিত, যে তাকে জিজ্ঞেস করা হলো, হায়েজ থেকে পবিত্রতার পর মহিলারা কি নামাজ ও রোজার কাজা আদায় করবে? তিনি বললেন এই অবস্থায় আমাদের রোজার কাজা আদায় করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নামাজের নয়। (সহিহ বুখারী ও মুসলিম)

রোজা কাজা করা আর নামাজ কাজা না করা সম্পর্কে উম্মুল মুমিনিন হযরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু যা বলেছেন সমস্ত উলামায়ে কেরাম তার সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন অর্থাৎ ইজমা বা ঐক্যমত প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

শবে মেরাজের ঘটনা ও শবে মেরাজের আমল-ইসলামিক টিপস

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু প্রিয় পাঠক পাঠিকা বন্ধুরাSS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ এর পক্ষ থেকে সবাইকে জানাচ্ছি আজকের আর্টিকেলে স্বাগতম। আমাদের আজকের আর্টিকেলটি লেখা হয়েছে মহিলাদের রোজা সংক্রান্ত মাসআলা নিয়ে।এ বিষয়ে যাদের ধারণা কম তারা আজকের আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ে নিজেদের ধারণা বৃদ্ধি করতে পারেন।

চলুন বন্ধুরা আজকের মূল আলোচনা শুরু করা যাক।

রোজা সম্পর্কে পবিত্র কুরআনের কথা

রোজা সম্পর্কে পবিত্র কুরআনে বর্ণিত রয়েছে,হে ঈমানদারগণ! তোমাদের ওপর রোজা ফরজ করা হয়েছে।যেমন ফরজ করা হয়েছিল তোমাদের পূর্ববর্তী লোকদের উপর যেন তোমরা পরহেজকারী অর্জন করতে পারো।(সূরা আল বাকারাহ)

গণনার কয়েকটি দিনের জন্য অতঃপর তোমাদের মধ্য যে অসুখ থাকবে তা সফরে থাকবে। তার পক্ষে অন্য সময়ের সে রোজা পূরণ করে নিতে হবে আর এটি যাদের জন্য অত্যন্ত কষ্টদায়ক হয় তারা এর পরিবর্তে একজন মিসকিন কে খাদ্য দান করবে। যে ব্যক্তি খুশির সাথে সৎ কর্ম করবে তা তার জন্য কল্যাণকর হবে আর যদি রোজা রাখো তবে তোমাদের জন্য বিশেষ কল্যাণকর যদি তোমরা তা বুঝতে পারো। (সূরা আল বাকারাহ)

রমজান মাসে হল সেই মাস যাতে নাযিল করা হয়েছে কুরআন যা মানুষের জন্য হেদায়েত এবং সত্য পথযাত্রীদের জন্য সুস্পষ্ট পথ নির্দেশ আর ন্যায় ও অন্যায়ের মাঝে পার্থক্য বিধানকারী। কাজেই তোমাদের মধ্য যে লোক এই মাসটি পাবে সে এ মাসের রোজা রাখবে। আর যে লোক অসুস্থ কিংবা মুসাফির অবস্থায় থাকবে সে অন্য দিনে গণনা পূরণ করবে। আল্লাহ তোমাদের জন্য সহজ করতে চান।

তোমাদের জন্য জটিলতা কামনা করেন না। যাতে তোমরা গণনা পূরণ কর এবং তোমাদের হেদায়েত দান করার দরুণ আল্লাহ তালার মহত্ব বর্ণনা করো যাতে তোমরা কৃতজ্ঞতা স্বীকার করো। (সূরা আল বাকারাহ)

আর আমার বান্দারা যখন তোমার কাছে জিজ্ঞেস করে আমার ব্যাপারে বস্তুত আমি রয়েছি সন্নিকটে। যারা প্রার্থনা করে তাদের প্রার্থনা কবুল করে নেই‌ যখন আমার কাছে প্রার্থনা করে। কাজেই আমার হুকুম মান্য করা এবং আমার প্রতি নিঃসংশয়ে বিশ্বাস করা তাদের একান্ত কর্তব্য যাতে তারা সৎ পথে আসতে পারে। (সূরা আল বাকারাহ)

মাহে রমজানের রোজা ভাঙ্গার কারণ গুলো কি কি

রোজার রাতে তোমাদের স্ত্রীদের সাথে সহবাস করা তোমাদের জন্য হালাল করা হয়েছে। তারা তোমাদের পরিচ্ছদ এবং তোমরা তাদের পরিচ্ছদ। আল্লাহ অবগত রয়েছেন যে তোমরা আত্মপ্রতারণা করেছিলে। সুতরাং তিনি তোমাদেরকে ক্ষমা করেছেন এবং তোমাদের অব্যাহতি দিয়েছেন অতঃপর তোমরা নিজেদের স্ত্রীদের সাথে সহবাস করা এবং যা কিছু তোমাদের জন্য আল্লাহ দান করেছেন তা আহরণ কর। আর পানাহার করো যতক্ষণ না কাল রেখা থেকে ভোরের শুভ্র রেখা পরিষ্কার দেখা যায়।

রোজা পূর্ণ কর রাত পর্যন্ত। আর যতক্ষণ তোমরা ইত্তেফাক অবস্থায় মসজিদে অবস্থান করো ততক্ষণ পর্যন্ত স্ত্রীদের সাথে মিশো না। এই হল আল্লাহ কর্তৃক বেঁধে দেয়া সীমানা অতএব এর কাছেও যেও না। (সূরা আল বাকারাহ)

এমনিভাবে বর্ণনা করেন আল্লাহ নিজের আয়াত সমূহ মানুষের জন্য যাতে তারা বাঁচতে পারে।

রোজা সংক্রান্ত মহিলাদের জন্য জরুরি মাসআলা

মাসায়ালা-১ঃহায়েজ (মাসিক পিরিয়ড), নেফাজের (প্রসব পরিবর্তি শ্রাব) সময় গুলোতে রোজা রাখা নিষেধ। তবে পরবর্তীতে এই দিনগুলির রোজা কাজা আদায় করতে হবে।

মাসায়ালা-২ঃপবিত্র অবস্থায় রোজা রাখার পর যদি হায়েজ শুরু হয় বা সন্তান প্রসব হয় তাহলে রোজা ভেঙে যাবে এবং পরে তা কাজা আদায় করতে হবে। হোক সেটা ফরজ বা নফল রোজা।

মাসয়ালা-৩ঃমহিলারা রমজান মাস ছাড়া স্বামীর অনুমতি ব্যতীত রোজা রাখবে না। (তিরমিজি, হাদিস নম্বর 782)

মাসয়ালা-৪ঃযে মেয়ে বালেগ হয়েছে অথচ লজ্জার কারণে প্রকাশ করে না এবং রোজাও রাখে না তাহলে তার ওপর তাওবা ও ছুটে যাওয়ার রোজার কাজা করা ওয়াজিব।

মাসয়ালা-৫ঃমহিলারা যদি নিজের হায়েজের আদ্রতা তথা পবিত্রতার নিদর্শন দেখতে পায় তারা যদি বুঝতে পারে যে সে এখন পাক হতে যাচ্ছে তাহলে রাতেই রোজার নিয়ত করবে। আর যদি পবিত্রতার নিদর্শন না দেখা যায় তাহলে ভেতরে তুলা লাগিয়ে দেবে। যদি পরিষ্কার থাকে তাহলে রোজা রাখবে। যদি দ্বিতীয়বার হায়েজের রক্ত আসে তাহলে রোজার ভেঙে ফেলবে।

২০২৩ সালের রোজার খাবার তালিকা

মাসয়ালা-৬ঃমহিলা যদি নিজের অভ্যাস অনুযায়ী বুঝতে পারে যে আগামীকাল তার হায়েজ জারি হবে, তাহলেও সে রোজা ভাঙবে না। যতক্ষণ না সে তার হায়েজের রক্ত দেখতে পায়। (আপকে মাসায়েল)

মাসয়ালা-৭ঃহায়যা মহিলার জন্য উত্তম হলো নিজের স্বাভাবিক অবস্থার উপর থাকা। আল্লাহ তাআলা তার উপর যে ফয়সালা করেছেন, তার ওপর সন্তুষ্ট থাকা। এমন কিছু ব্যবহার না করা যার দ্বারা রক্ত বন্ধ হয়ে যায় বরং হায়েজ অবস্থায় রোজা ছেড়ে দেওয়া। অতঃপর কাজা করে নেওয়া। কেননা উম্মুল মুমিনীন ও আকবর মহিলারা এমনটি করেছেন আর যদি ওষুধ দিয়ে রক্ত বন্ধ করে দেওয়া হয় তাহলে রোজা হয়ে যাবে। (আপকে মাসায়েল)

মাসয়ালা-৮ঃনেফাজওয়ালা মহিলা যদি 40 দিন হওয়ার আগেই পাক হয়ে যায় তাহলে রোজা রাখবে এবং নামাজের জন্য গোসল করে নিবে।

মাসয়ালা-৯ঃআর যদি ৪০ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরও রক্ত জারি থাকে তাহলে সে রোজা রাখবে এবং গোসল করে নেবে। কেননা তার রক্ত ইস্তেহাজা (রোগ) হিসেবে গণ্য করা হবে। (বেহেশতি জিওর)

মাসয়ালা-১০ঃহায়েজ ওয়ালা মহিলা যদি সূর্য হালার আগেই পাক হয়ে যায় এবং রোজার নিয়ত করে তাহলে তার ফরজ আদায় হবে না । (শামী)

যে অবস্থায় রোজা ভেঙ্গে ফেলার অনুমতি রয়েছে

যদি এমন অসুস্থ হয়ে পড়ে যে রোজা রাখার শক্তি নেই বা রোজা রাখার দ্বারা অসুস্থতা বেড়ে যাবে। তাহলে তার জন্য রোজা না রাখার অনুমতি রয়েছে। তবে হ্যাঁ যখনই সুস্থ হয়ে যাবে তখনই তার ওপর রোজা কাজা করে নেওয়া ওয়াজিব। (আপকে মাসায়েল)

১) যে ব্যক্তি এমন দুর্বল হয়ে যায় যে রোজা রাখার শক্তি নেই।

২) এমন খোদা বা পিপাসা লাগে যে প্রাণ চলে যাওয়ার উপক্রম হয়ে যায়।

৩) গর্ভধারিণী বা স্তমদানকারীনি মহিলা যদি নিজের অথবা নিজের বাচ্চার প্রাণ পাতের আশঙ্কা করেন তাহলে তার জন্য রোজা ভেঙে ফেলা জায়েজ আছে।

৪) রোজা থাকার কারণে যদি জীবন যাপনের সামগ্রী উপার্জন করতে দুর্বল হয়ে যায় তাহলে তার জন্য রোজা ভেঙে ফেলার অনুমতি রয়েছে। তবে তা পরে কাজা করে নিতে হবে। তাও সম্ভব না হলে ফিদিয়া আদায় করবে এবং প্রতি রোজার পরিবর্তে সদকায়ে ফিতর পরিমাণ দান করে ফিদিয়া আদায় করবে।

৫) অনুরূপভাবে ফসল কর্তন করার ক্ষেত্রে যদি রোজা থাকা অবস্থায় ফসল কর্তন করা সম্ভব না হয়। অন্যদিকে দেরি হলে ফসল নষ্ট হয়ে যাবে।তাহলে রোজা না রাখার অনুমতি আছে এবং অন্য সময় কাজা করে নেবে।

যে কারণে রোজার কাজা আদায় করতে হবে

*ভুলে স্ত্রীসম্ভোগ করার পর রোজা ভেঙে গেছে মনে করে আবার স্ত্রী সহবাস করা।

*কাঁচা চাল আটার খামির বা একত্রে অনেক লবণ খাওয়া।

*এমন কোন বস্তু খাওয়া যা সাধারণত খাওয়া হয় না। যেমনঃ কাঠ,লোহা, কাগজ, পাথর, মাটি, কয়লা ইত্যাদি।

*পাথর, কাদামাটি, কংকর, তুলা, সুতা, তৃণলতা, খড়কুটা ও কাগজ গিলে ফেলা।

*নিজের থুতু হাতে নিয়ে গিলে ফেলা।

*বিড়ি সিগারেট বা হুকু সেবন করা।

*কানে বা নাকের ছিদ্রে তরল ওষুধ দেওয়া।

গুগল নিউজে SS IT BARI সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন

*দাঁত দিয়ে রক্ত বের হলে যদি তা থুটুর চেয়ে পরিমাণে বেশি হয় এবং কন্ঠনালীতে চলে যায়।

*মুখে পান দিয়ে ঘুমিয়ে যাওয়া এবং এই অবস্থায় সুবহে সাদিক করা।

*হস্তমৈথুন করা।

*রোজা শরম থাকা অবস্থায় কুলি কিংবা নাকে পানি দেওয়ার সময় কন্ঠনালীতে পানি চলে যাওয়া।

*কাউকে জোর জবরদস্তি করে পানাহার করানো।

*রাত মনে করে সুবহে সাদিকের পর সেহরি খাওয়া।

*কোন পুরুষ নিজ মলদ্বারে পানি বা তৈল লাগানো হাত প্রবেশ করানো।

*ইচ্ছাকৃতভাবে বমি করা বা বমি আসার পর তা গিলে ফেলা।

*সূর্যাস্ত হয়ে গেছে মনে করে বলে দিনে ইফতার করা।

*যদি কেউ রাত ধারণা করে স্ত্রী সহবাসে লিপ্ত হয়ে যায় অতঃপর সুবহে সাদিকের কথা জানতে পেরে তৎক্ষণাৎ সহবাস থেকে বিরত হয়ে যায়।

*বৃষ্টি বা বরফের টুকরা খাদ্য নালীর ভেতরে চলে গেলে।

*ভুলে খাওয়া বা পান করার পর রোজা ভেঙে গেছে মনে করে আবার ইচ্ছাকৃতভাবে খাওয়া বা পান করা।

মিথ্যা কথা বলা, মিথ্যা সাক্ষী দেওয়া, গীবত করা বা দোষ চর্চায় লিপ্ত থাকা, মিথ্যা কসম করা, অশ্লীল কথা বলা বা অশ্লীল কাজ করা, জুলুম করা কারো সঙ্গে শত্রুতা রাখা,  পরনারীর প্রতি দৃষ্টি করা, তাদের সঙ্গে মেলামেশা করা, সিনেমা দেখা, সবই নাজায়েজ। এইসব কাজ ছাড়া সব গুনার কাছ থেকে বিরত থাকা একান্ত জরুরী। এসব কারণে রোজা ভঙ্গ হয় না তবে মাকরুহ হয় অবশ্য সোওয়াব কম হয়।

সচারচর জিজ্ঞাসা

মহিলারা কখন স্বামীর অনুমতি ছাড়া রোজা রাখবে না?

উত্তর: মহিলারা রমজান মাস ছাড়া স্বামীর অনুমতি ব্যতীত রোজা রাখবে না।

নেফাজওয়ালা মহিলা কখন রোজা রাখবে?

নেফাজ ওয়ালা মহিলা ৪০ দিন পার হওয়ার পর কিংবা ৪০ দিন পার হওয়ার আগেই যদি পাক হয়ে যায় তাহলে রোজা রাখবে এবং নামাজের জন্য গোসল করে নেবে।

রোজার নিয়ত কি?

রোজার নিয়ত-নাওয়াইত ওয়ান অসুম্মা গাদাম মিন শাহরি রমাদান আল মোবারকী ফারদুল্লাকা ইয়া আল্লাহু ফাতাকাব্বাল মিন্নি ইন্নাকা‌ আন্তাস সামিউল আলিম।

সুপ্রিয় SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ এর সম্মানিত ভিজিটর বন্ধুরা আশা করছি আজকের আর্টিকেলটি আপনারা শেষ পর্যন্ত পড়েছেন। আপনাদের জানার সুবিধার্থে আমাদের আজকের আরটিক্যালিটি মহিলাদের রোজা সংক্রান্ত মাসয়ালা নিয়ে লিখা হয়েছে।

আমাদের আজকের আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ে যাদের সামান্যতম উপকারে এসেছে তারা অবশ্যই বন্ধুদের সাথে আমাদের ওয়েবসাইটটির কথা শেয়ার করতে ভুলবেন না।আপনাদের যেকোনো বিষয়ে জানার থাকলে আমাদের কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন আমরা আপনাদের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। ধন্যবাদ সবাইকে।

পোস্ট ট্যাগ-

মহিলাদের রোজা ভঙ্গের কারণ,নেফাস অবস্থায় রোজা,মেয়েদের মাসিকের সময়সীমা,মাসিক শেষে পবিত্র হওয়ার উপায়,হায়েজ শেষে নামাজ,সাদা স্রাব গেলে কি রোজা হবে,অনিয়মিত মাসিক হলে রোজা হবে কি,মাসিকের সময় কতদিন।

আপনার জন্য আরো –

আরও পড়ুন –

মাহে রমজানের রোজা সম্পর্কে হাদিসের কথা

রোজা থাকা অবস্থায় ঘুমের মতো স্বপ্নদোষ হলে রোজা ভঙ্গ হবে কিনা?

শাওয়ালের ছয় রোজা কোন নিয়মে রাখতে হয়

রোজা রাখার নিয়ত ও ইফতারের দোয়া ২০২৩

SS IT BARI– ভালোবাসার টেক ব্লগের যেকোন ধরনের তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কিত আপডেট পেতে আমাদের মেইলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন.

সর্বশেষ প্রযুক্তি বিষয়ক তথ্য সরাসরি আপনার ইমেইলে পেতে ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন!

Join ৪৯২ other subscribers

প্রতিদিন আপডেট পেতে আমাদের নিচের দেয়া এই লিংক এ যুক্ত থাকুন

SS IT BARI- ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুনঃ এখানে ক্লিক করুন

SS IT BARI- ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকুনঃ এখানে ক্লিক করুন।
SS IT BARI- ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে :এখানে ক্লিক করুন এবং দারুণ সব ভিডিও দেখুন।

SS IT BARI- টুইটার থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- লিংকদিন থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- ইনস্টাগ্রাম থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- টুম্বলার (Tumblr)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে :এখানে ক্লিক করুন।

SS IT BARI- পিন্টারেস্ট (Pinterest)থেকে আমাদের খবর সবার আগে পেতে : এখানে ক্লিক করুন।

SS It BARI JOB NEWS

SS IT BARI-ভালোবাসার টেক ব্লগ টিম